php glass

থার্টিফার্স্ট নাইটে রাজধানীর ৯ জোনে চার স্তর নিরাপত্তা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

ইংরেজী নববর্ষের রাতে রাজধানীতে নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত থাকবে ৭ হাজার পুলিশ। ঢাকা মহানগরীকে নয়টি জোনে ভাগ করে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে ঢাকা মেট্রোপালিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

ঢাকা: ইংরেজী নববর্ষের রাতে রাজধানীতে নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত থাকবে ৭ হাজার পুলিশ। ঢাকা মহানগরীকে নয়টি জোনে ভাগ করে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে ঢাকা মেট্রোপালিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

ডিএমপি সদর দপ্তরে বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ১১টায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি কমিশনার বেনজীর আহমেদ এ কথা জানিয়েছেন।

সব ধরনের আতশবাজি ও মাদকদ্রব্যের ব্যবহার বন্ধ, ইভটিজিং রোধ, ড্রাইভিং লাইসেন্সবিহীন গাড়ি চলাচল নিয়ন্ত্রণ, ট্রাফিক ব্যবস্থা নিশ্চিতকরন এবং সব ধরনের উচ্ছৃঙ্খল আচরন বন্ধের লক্ষ্যে এ নিরাপত্তা ববেস্থা গ্রহণ করা হবে।

ডিএমপির ভাগ করা নয়টি জোন হচ্ছে- গুলশান, উত্তরা, তেজগাঁও, ওয়ারী, রমনা, মিরপুর, মতিঝিল, লালবাগ এবং সেন্সরী (বিশেষ জোন)।

এ সব জোনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে রাস্তায় থাকবে স্ট্যাটিক ডিউটি, পেট্রোল/মোবাইল ডিউটি, চেকপোষ্ট এবং স্টাইকিং রিজার্ভ ফোর্স।

নিরাপত্তায় নিয়োজিত আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সঙ্গে থাকবে রেকার, অশ্বারোহী পুলিশ, এপিসি, এলকোহল ডিটেক্টর, এম্বুলেন্স, ভিডিও ও স্টিল ক্যামেরা এবং পানিবাহী গাড়ি।

৩১ ডিসেম্বর (শুক্রবার) সন্ধ্যা ৭ টার পর থেকে এসব নিরাপত্তা ব্যবস্থা কার্যকর করা হবে। রাজধানীর বিশেষ বিশেষ স্থাপনা, অভিজাত এলাকা ও কূটনৈতিক পাড়ায় বিশেষ নজরধারী থাকবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

নববর্ষের রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও অভিজাত এলাকায় বহিরাগতদের যাতায়াত বন্ধে সন্ধ্যা ৭ টা থেকে পরদিন ভোর ৫ টা পর্যন্ত যানবাহন চলাচলের ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়েছে।

এ সময়ে শুধু শাহবাগ ক্রসিং, পুরাতন হাইকোর্ট ক্রসিং, ঢাকা মেডিকেল কলেজ জরুরি বিভাগ গেট ক্রসিং এবং নীলক্ষেত ক্রসিং দিয়ে পুলিশকে পরিচয়পত্র প্রদর্শন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ করা যাবে।

একই সময়ে অভিজাত এলাকা গুলশান, বারিধারা ও বনানী এলাকায় প্রবেশের জন্য তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকা-ফনিক্স রোড ক্রসিং, আমতলী ক্রসিং, ডিওএইচএস বারিধারা-ইউনাইটেড হাসপাতাল ক্রসিং এবং নতুন বাজার ক্রসিং ব্যবহার করা যাবে।

নির্র্বিঘ্নে নববর্ষ উদযাপনের লক্ষ্যে শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে পরদিন ভোর ৫টা পর্যন্ত বিভিন্ন আবাসিক হোটেল, রেঁস্তোরা, জনসমাবেশ ও উৎসবস্থলে যে কোন ধরনের বৈধ আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার সম্পূর্ন নিষিদ্ধ করেছে ডিএমপি। এছাড়া সব অনুমোদনবিহীন বার পুরোপুরি বন্ধ থাকবে।  

সংবাদ সম্মেলনে নগরবাসীকে ইংরেজী নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘সকল গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্টের ভিত্তিতে নববর্ষ উপলক্ষ্যে ঢাকা মহানগরীতে এই নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। আমরা কোন ধরনের নাশকতার আশঙ্কা উড়িয়ে দিচ্ছি না। তবে কোন ধরনের অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতির আশাও আমরা করি না।’

নববর্ষের রাতে রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে কোন ধরনের সভা- সমাবেশ ও অনুষ্ঠানের অনুমতি দেয়া হয়নি বলে তিনি জানান।

বাংলাদেশ সময় ১৩৪০ ঘন্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০১০

৭ ডিসেম্বর হানাদার মুক্ত হয় চুয়াডাঙ্গা
৭ ডিসেম্বর শেরপুর মুক্ত দিবস
রোটারি ইন্টারন্যাশনালের টিআরএফ সেমিনার
৭ ডিসেম্বর নালিতাবাড়ী মুক্ত দিবস
হোয়াটস অ্যাপ আইডি হারাচ্ছেন কাশ্মীরের ব্যবহারকারী


কজনা’র সভাপতি অলোক বসু-সম্পাদক অনিমেষ কর
জাতীয় বিচার বিভাগীয় সম্মেলন শনিবার
আদালতে বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের হট্টগোল, টেলিপ্যাবের নিন্দা
বিপ্লবী বাঘা যতীনের জন্ম
ইতিহাসের এই দিনে

বিপ্লবী বাঘা যতীনের জন্ম

নোয়াখালীতে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় পথচারী নিহত