জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে মতামত চেয়ে খসড়া কয়লানীতি প্রকাশ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

জনসাধারণের মতামত গ্রহণের জন্য আবারো ওয়েবসাইটে কয়লানীতি প্রকাশ করলো সরকার।  রোববার বিকালে সরকারের বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে এই নীতি প্রকাশ করা হয়।

php glass

ঢাকা : জনসাধারণের মতামত গ্রহণের জন্য আবারো ওয়েবসাইটে কয়লানীতি প্রকাশ করলো সরকার।  রোববার বিকালে সরকারের বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে এই নীতি প্রকাশ করা হয়।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে সংশোধিত চুড়ান্ত খসড়া কয়লানীতি উপস্থাপন করা হলে তিনি এ বিষয়ে মতামত নেওয়ার জন্য ওয়েবসাইটে প্রকাশ করার নির্দেশ দেন।

 বর্তমান কয়লানীতিটি ২০০৭ সালের জুন মাসে প্রণীত খসড়া কয়লানীতির সংক্ষিপ্তসার। এটি ৩৫ পৃষ্ঠার।

খসড়া কয়লানীতি প্রসঙ্গে গত জুলাই মাসে ভারপ্রাপ্ত জ্বালানি সচিব মোহাম্মদ মেজবাহউদ্দিন বাংলানিউজ’কে বলেছিলেন, `এটা গোপনীয বিষয়। এই ব্যাপারে এখনই কোন কিছু বলা যাবে না।`

 কয়লানীতির কাজ চলছে জানিয়ে তিনি বলেছিলেন, `প্রকাশিত হলেই জানতে পারবেন কি কি থাকবে।`

তবে গত ৬ জুলাই খসড়া কয়লানীতি  সম্পর্কে বাংলানিউজে প্রকাশিত খবরে কয়লানীতির উল্লেখযোগ্য দিকতুলে ধরা  হয়।

প্রকাশিত খসড়া কয়লানীতিতে বহুল বির্তকিত খনন পদ্ধতি নির্দিষ্টকরণ হয়নি। তবে আবিষ্কৃত কয়লাক্ষেত্রের ভু-তাত্ত্বিক কাঠামো, ভু-গঠন ও প্রকৃতি বিবেচনায় রেখে কারিগরি এবং অর্থনৈতিকভাবে গ্রহণযোগ্য পদ্ধতিতে কয়লা উত্তোলন করার সুপারিশ করা হয়েছে। এই কয়লানীতিতে কয়লা উত্তোলন কিভাবে করা হবে তা নির্দিষ্ট করে উল্লেখ না করে বরং বলা হয়েছে:“ভু-গর্ভস্থ পদ্ধতি/ উন্মুক্ত পদ্ধতি প্রয়োগের মাধ্যমে খনির উন্নয়ন করা হবে।”

বিগত চারদলীয় জোট সরকারের আমলে কয়লানীতিতে উন্মুক্ত পদ্ধতি অর্ন্তভুক্ত করায় ফুলবাড়িতে এর বিরুদ্ধে গণ অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়ে ভয়াবহ সংঘর্ষের সূচনা হয়েছিল। এ সময় পুলিশের গুলিতে কয়েকজন আন্দোলনকারী নিহত হয়। পরে জনগণের চাপের মুখে সেখান থেকে সরকার  এশিয়া এনার্জির অফিস গুটিয়ে নেয় এবং উন্মুক্ত পদ্ধতিতে খনি উন্নয়ন না করার ঘোষণা দেয় ।

বর্তমানে দেশে আবিষ্কৃত কয়লাখনির সংখ্যা ৫টি। এর মধ্যে জামালগঞ্জ কয়লাখনি ছাড়া বড়পুকুরিয়া, খালাসপীর, ফুলবাড়ি ও দীঘিপাড়া কয়লাখনিতে মোট মজুদের পরিমাণ ১১৬৮ মিলিয়ন টন। জামালগঞ্জ কয়লাখনির গভীরতা বেশি হওয়ায় এখনও এটির মজুদের পরিমাপ করা হয়নি।

খসড়া কয়লানীতিতে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনে সর্বোচ্চ  অগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ভু-তাত্ত্বিক জরিপ অধিদপ্তর ও খনিজ সম্পদ উন্নয়ন ব্যুরোকে শক্তিশালী করার কথা বলা হয়েছে। এছাড়া প্রয়োজনবোধে কয়লা ব্যবস্থাপনার জন্য নতুন প্রতিষ্ঠান গঠনের কথা বলা হয়েছে।

দেশের জ্বালানি নিরাপত্তার স্বার্থে সরকারি ও বেসরকারি যৌথ উদ্যোগ ও প্রত্যক্ষ দেশি/বিদেশি বিনিয়োগকে স্বাগত জানানো হবে বলেও খসড়া কয়লানীতিতে উল্লেখ রয়েছে। দেশি-বিদেশি যৌথ বিনিয়োগকেও অগ্রাধিকার দেয়া হবে।

বাংলাদেশ স্থানীয় সময় : ২১২২, ২৪ অক্টোবর, ২০১০।

দুর্বৃত্তের হামলায় মহিলা আইনজীবী নিহত
মালিবাগে পুলিশের গাড়িতে হামলার ঘটনা তদন্তে সিটিটিসি
উত্তরায় চুরির মামলায় নারীসহ গ্রেফতার ৫
কালিগঞ্জে মেজ ভাইয়ের দায়ের কোপে সেজ ভাই নিহত
পণ্ডিত ও দার্শনিক ইবনে খালদুনের জন্ম


বৃষ্টিতে পণ্ড দক্ষিণ আফ্রিকা-উইন্ডিজ প্রস্তুতি ম্যাচ
জামালপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১, আহত ৫
গুলিস্তানে ছিনতাইকারী চক্রের ৫ সদস্য আটক
ঈদের পোশাকের টাকা না দেয়ায় ছেলের হাতে প্রাণ গেলো মায়ের
‘ওয়ার্ল্ড প্রেস ফ্রিডম ডে ২০১৯’ উদযাপন