চারদলীয় জোটের সৃষ্ট বিপর্যয় কাটাতে মহাজোট সরকার কাজ করছে : প্রধানমন্ত্রী

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর তাদের সীমাহীন দুর্নীতি ও লাগামহীন দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি জনজীবনকে বিপর্যস্ত করে তোলে।

php glass

ঢাকা : আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর তাদের সীমাহীন দুর্নীতি ও লাগামহীন দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি জনজীবনকে বিপর্যস্ত করে তোলে।

দারিদ্র্য-দূনীতি-র্দুদর্শা বেড়ে যাওয়ায় দেশে নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। এই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে মহাজোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রম গ্রহণ করেছে।

এগুলো হলো- মুল্যস্ফীতি সহনীয় সীমায় রেখে রাজস্ব আয় ও ব্যয় যৌক্তিক হারে বাড়ানো, সরকারের উন্নয়ন ব্যয় বর্তমানে জিডিপির ৪ শতাংশ থেকে ক্রমান্বয়ে ৬.৬ শতাংশে উন্নীতকরণ, কৃষিখাতে পর্যাপ্ত ভর্তূকি, সেচ কাজে পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ, সরকারি পর্যায়ে খাদ্যদ্রব্য সংগ্রহ বাড়ানো ও শিল্পের মৌলিক কাঁচামাল আমদানির ক্ষেত্রে শুল্ক কমানো।

এছাড়া দারিদ্র্য বিমোচন ও সামাজিক নিরাপত্তা খাতের পরিধি সম্প্রসারণ ও বরাদ্দ যৌক্তিক হারে বাড়ানো, সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্ব উদ্যোগ শক্তিশালীকরণ ইত্যাদি পদক্ষেপের কথা প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন।

বুধবার সংসদে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য একেএম রহমতুল্লাহর এক প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, শিক্ষাক্ষেত্রে গতি আনতে ২০০৯-১০ বর্ষে ১ম থেকে ১০ম শ্রেণী পর্যন্ত প্রায় ১৯ কোটি পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হয়েছে। ২০১০-১১ শিক্ষাবর্ষে এ সংখ্যা বাড়িয়ে ২৩ কোটি বই বিতরণের কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে।

ভর্তি বাণিজ্য ও সহিংসতা বন্ধে বর্তমান সরকার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে এসএমএস এবং অনলাইন ই-মেইল প্রযু্ক্তি ব্যবহার শুরু করেছে। এতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এ ধরণের অনাচার প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে।

অপর এক প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শ্রমিকদের স্বার্থ সংরক্ষণ ও তাদের জীবনমান উন্নয়নের জন্য বর্তমান সরকার বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।
 
পোশাক শ্রমিকসহ অন্যান্য খাতে নিয়োজিত শ্রমিকদের জন্য সরকার সব চেয়ে কম সময়ের মধ্যে মজুরি কাঠামো ঘোষণা করেছে। শ্রম আইন যুগোপোযোগী, কল্যাণমুখী ও আধুনিক করার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। জাতীয় শ্রমনীতি প্রণয়নও চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।

আরেক প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বেকার যুব ও যুব মহিলাদের আত্মকর্মসংস্থানের জন্য কর্মসংস্থান ব্যাংকের মাধ্যমে বর্তমানে ৫টি ঋণ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে, নিজস্ব ঋণ বিতরণ কর্মসূচি, শিশু-শ্রম নিরসনকল্পে ঋণ কর্মসূচি, সরকারি মালিকানাধীন শিল্প কারখানা থেকে চাকরিচ্যুত ও ছাঁটাইকৃত বেকার শ্রমিক-কর্মচারীদের ঋণ বিতরণ কর্মসূচি, কৃষি-ভিত্তিক শিল্প ঋণ কর্মসূচি ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ঋণ কর্মসূচি।  

বাংলাদেশ সময় ১৬৩০ ঘণ্টা, অক্টোবর ০৬,  ২০১০

জায়ানের মরদেহ আসবে মঙ্গলবার
অজ্ঞাত নারীর মরদেহ উদ্ধার
স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়া থামাতে গিয়ে সংঘর্ষ, আহত ১১
রোহিঙ্গা সংকট: সম্মিলিত সব ধরনের উদ্যোগ চায় ব্রুনেই
মহাদেবপুরে পাহারাদারের মরদেহ উদ্ধার


আফগানদের বিশ্বকাপ দলে আসগর-হামিদ
নালিতাবাড়ীতে নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার
ভিটে ছাড়লেন বৃদ্ধ নিরঞ্জন, নেপথ্যে সাত ভূমিদস্যু
নারীর প্রতি সহিংসতার প্রতিবাদে বরিশালে মানববন্ধন
বালি দ্বীপে অগ্ন্যুৎপাত, আটকা পড়েছেন অসংখ্য পর্যটক