মতিঝিলে ভ্রাম্যমাণ আদালত: বোতলজাত পানির ২৪ কোম্পানিকে জরিমানা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

ঢাকা জেলা প্রশাসন ও বিএসটিআইয়ের যৌথ উদ্যোগে মতিঝিলে আজ বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত চলা ভেজাল বিরোধী অভিযানে ২৭ টি কোম্পানির পানি ও কাগজপত্র পরীক্ষা করা হয়। এরমধ্যে ২৪টি কোম্পানির পানিতে পিএইচ মান সঠিক না থাকা এবং কাগজপত্রে অসঙ্গতি পাওয়ায় সব মিলিয়ে ৬ লাখ ৯০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

php glass

ঢাকা: ঢাকা জেলা প্রশাসন ও বিএসটিআইয়ের যৌথ উদ্যোগে মতিঝিলে আজ বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত চলা ভেজাল বিরোধী অভিযানে ২৭ টি কোম্পানির পানি ও কাগজপত্র পরীক্ষা করা হয়। এরমধ্যে ২৪টি কোম্পানির পানিতে পিএইচ মান সঠিক না থাকা এবং কাগজপত্রে অসঙ্গতি পাওয়ায় সব মিলিয়ে ৬ লাখ ৯০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া বাজেয়াপ্ত করা হয় ৪শ’ জার দূষিত ও মেয়াদোত্তীর্ণ পানি।

অপরদিকে ৩ টি কোম্পানির পানির মান ও কাগজপত্র সঠিক থাকায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

বিএসটিআই কর্মকর্তা এবং র‌্যাব-পুলিশ সদস্যদের অংশগ্রহণে ঢাকা জেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আল আমিনের নেতৃত্বে মতিঝিলের নটরডেম কলেজ এলাকায় সকাল ৮টা থেকে শুরু হয় দুপুর ২টা পর্যন্ত চলে এ অভিযান। অভিযানকে কেন্দ্র করে সেখানে বসানো হয় পুলিশ চেকপোস্ট।

সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত এখান দিয়ে চলাচলরত বোতলজাত মিনারেল ওয়াটার বহনকারী ৩১ ভ্যান ও গাড়িকে থামিয়ে  পানির গুণমান পরীক্ষা শুরু করা হয়। একই সঙ্গে ওইসব গাড়িতে থাকা সংশ্লিষ্ট কোম্পানিগুলোর ৪০ জন কর্মচারীকেও বসিয়ে রাখা হয়।

ম্যাজিস্ট্রেট আল আমিন বাংলানিউজকে জানান, ৩১টি গাড়িতে থাকা পানির জারগুলো পরীক্ষা ও আটক ব্যক্তিদের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য নেওয়ার পর আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যে সব কোম্পানির গাড়ি আটকানো হয়েছে তার মধ্যে আছে আলপাইন, নোয়াখালি ফুড প্রডাক্টস, রাজিব ফ্রেশ ড্রিঙ্ক, ইউনিট ওয়াটার, জান কোম্পানি, থাই এট কর্নার, রুবেল, এ ওয়ান কোম্পানি প্রভৃতি।

দুপুর পৌনে ১২টা পর্যন্ত ৭টি কোম্পানিকে জরিমানা করা হয়। মান সম্পন্ন না হওয়া এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ঠিক না থাকায় ইউনিট ওয়াটারকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ২ মাসের কারাদণ্ড, জান কোম্পানিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১মাস, থাই এট কোম্পানিকে ৫০ হাজার অনাদায়ে ২ মাস, চিটাগাং রোডের রুবেলকে ২০ হাজার
অনাদায়ে ১ মাস, রাজিব এন্টারপ্রাইজকে ২০ হাজার অনাদায়ে ২ মাস, এ ওয়ান কোম্পানিকে ৪০ হাজার অনাদায়ে ২ মাস, নোয়াখালী ফুডকে ৩০ হাজার অনাদায়ে ১ মাস এবং এক্সিম কোম্পানিকে ৫০ হাজার টাকা অনাদায়ে ২ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

ম্যাজিস্ট্রেট আল আমিন জানান, সর্বশেষ দুপুর ২ টা পর্যন্ত ২৭ টি কোম্পানির পানি ও কাগজপত্র পরীক্ষার পর ২৪ টিতেই গরমিল পাওয়া যায়।  

তিনি জানান, এর মধ্যে ২০টি কোম্পানির মালিকদের কাছ থেকে জরিমানার টাকা আদায় করা হয়েছে। বাকিদের কাছন থেকে আদায়ের তৎপরতা চলছে।

কর্মকর্তারা জানালেন, এখানে পানির দুই ধরনের পরীক্ষা করা হয়। এগুলো হল টিডিএস (টোটাল ডিজল্ভ সলিড) ও  পিএইচ। পানিতে দ্রবীভূত অবস্থায় যেসব পদার্থ থাকে তার গুণমান পরীক্ষার নাম টিডিএস। আর পানির ক্ষার বা অম্লত্বের পরিমান পরীক্ষা করা হয় পিএইচ পদ্ধতিতে।

এছাড়া এ অভিযানে পানি ও বোতলের পরিচ্ছন্নতা, উৎপাদন ও মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখসহ অন্যান্য বিষয়ও পরীক্ষা করা হয় বলে জানান বিএসটিআই পরিদর্শক আবু সাঈদ।

বিএসটিআই-এর সহকারি পরিচালক কেএম হানিফ বললেন, ‘ভেজাল বিরোধী অভিযান চালাতে গিয়ে কিছুদিন ধরে ল্য করা গেছে যে এক শ্রেণীর বোতলজাত পানি ব্যবসায়ী রাতের আঁধারে অননুমোদিত ও অনির্ধারিত স্থান থেকে অনিরাপদ পানি বোতলজাত করে তা সরবরাহ করছে। জনস্বাস্থ্যের জন্য এই পানি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। কিন্তু দায়ী প্রতিষ্ঠানগুলোকে ধরা যাচ্ছিল না। এ অবস্থায় বিএসটিআই ও জেলা প্রশাসন আজকের এ উদ্যোগ নিয়েছে।’
 
হানিফ আরও জানান, পানির গুণমান পরীক্ষা করা হয় সঙ্গে থাকা ভ্রাম্যমাণ ল্যাবরেটরিতে।

বাংলাদেশ সময়: ১২০৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ০৬, ২০১০

কৃষকের ন্যায্যমূল্যের কথা আমরা ভাবছি না: খাদ্যমন্ত্রী
মাত্র ৩১ বছর বয়সেই ক্রিকেটকে বিদায় বললেন নাজমুল
বাস চালককে পিটিয়ে হত্যা, ধর্মঘটে অনড় শ্রমিক নেতারা
যৌন হয়রানির অভিযোগে বখাটের কারাদণ্ড
সত্যেন্দ্রনাথ বসুর নাম থেকেই কোয়ান্টাম কণার নাম ‘বোসন’


ঝিনাইদহে বাসচাপায় আলমসাধু চালক নিহত
ঢাকা মাতাতে আসছে ‘অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম’
স্থানীয় সরকারকে সচল করতে আয় বাড়াতে হবে
যাত্রীর প্রত্যাশা অনুযায়ী সেবা দেয়ার তাগিদ
নিয়মই অনিয়ম চুনারুঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তারদের