সিএনজি স্টেশনে ১ নভেম্বর থেকে ধর্মঘটের আল্টিমেটাম

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

সাত দফা দাবি না মানলে ১ নভেম্বর থেকে সারা দেশের সিএনজি ফিলিং স্টেশনগুলোতে ধর্মঘট পালন করবে বাংলাদেশ সিএনজি ফিলিং স্টেশন অ্যান্ড কনভার্সন ওয়ার্কশপ ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন।

ঢাকা: সাত দফা দাবি না মানলে আগামী ১ নভেম্বর থেকে সারা দেশের সিএনজি ফিলিং স্টেশনগুলোতে ধর্মঘট পালন করবে বাংলাদেশ সিএনজি ফিলিং স্টেশন অ্যান্ড কনভার্সন ওয়ার্কশপ ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন।

শনিবার সকালে রাজধানীর বেইলি রোডস্থ অফিসার্স ক্লাবে এক জরুরি সাধারণ সভা শেষে সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন নয়ন এ ঘোষণা দেন।

তিনি আরও বলেন, ‘ধর্মঘট ডাকতে হলে আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে হয়। এক্ষেত্রে ধর্মঘট ঢাকার আগে সংশ্লিষ্টদের ২১ দিন সময় দিতে হয়। আমরা এই সময়টুকু সরকারকে দিতে চাই। এর মধ্যে আমাদের দাবি নিয়ে সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসার চেষ্টা করবো। যদি সরকারের পক্ষ থেকে সাড়া পাওয়া যায় তাহলে আলোচনা চলবে।’

এ সময় সংগঠনের সভাপতি শফিউল ইসলাম কামাল, সিনিয়র সহ-সভাপতি মাসুদ খান, সহ-সভাপতি সৈয়দ সাদাত আহমেদ, অর্থ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

তাদের সাত দফা দাবি হল- সিএনজি স্টেশন ৬ ঘণ্টা বন্ধ রাখার ঘোষণা বাতিল, গ্যাসের চাপ সঙ্কট ও পিক আওয়ারে রেশনিংয়ের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত ঋণখেলাপি স্টেশনগুলোর জন্য দীর্ঘমেয়াদী কিস্তির ব্যবস্থা, সব স্টেশনে আগামী ৩০ অক্টোবরের মধ্যে ইভিসি (ইলেকট্রিক ভলিউম কারেক্টর) মিটারের রিডিং অনুযায়ী বিল নেওয়া ও গত মে পর্যন্ত  নেওয়া অতিরিক্ত বিল সমন্বয়, এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের লাইসেন্স ফি এক লাখ টাকার স্থলে ৫ হাজার ও নবায়ন ফি এক লাখ টাকার পরিবর্তে এক হাজার টাকা করা, পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্রের বাধ্যবাধকতা থেকে অব্যাহতি, রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাস কোম্পানি (আরপিজিসিএল) এর বাৎসরিক ফি প্রত্যাহার এবং সিএনজি খাত সংক্রান্ত যে কোনো সিদ্ধান্ত সিএনজি ফিলিং স্টেশন ও কনভার্সন ওয়ার্কশপ ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে গ্রহণ করা।

প্রসঙ্গত, সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গত ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত সিএনজি ফিলিং স্টেশনগুলো বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয় পেট্রোবাংলা।

শনিবার সংগঠনটির জরুরি সাধারণ সভা শুরু হয় সকাল ১০টায়। এতে ঢাকাসহ অ্যাসোসিয়েশনের ১৪ জোনের প্রায় ৫০০ সদস্য যোগ দেন।

সভায় সংগঠনের নির্বাহী কমিটি সিএনজি স্টেশন ৬ ঘণ্টার পরিবর্তে ৩ ঘণ্টা বন্ধ রাখার প্রস্তাব দিলে সাধারণ সদস্যরা তা নাকচ করে দেন। সিএনজি স্টেশন ৬ ঘণ্টা বন্ধ রাখার ঘোষণা পুরোপুরি বাতিল করার পক্ষে মত দেন তারা। একই সঙ্গে ওই সিদ্ধান্ত বাতিল না হলে ধর্মঘট ডাকার দাবি তোলেন।

সভায় প্রতিটি সাংগঠনিক জোন থেকে একজন করে বক্তব্য প্রদান করেন। জোনগুলো হল- ঢাকা দক্ষিণ, ঢাকা উত্তর, ঢাকা পশ্চিম, সিলেট, বগুড়া, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, নেয়াখালী, নারায়ণগঞ্জ, টাঙ্গাইল, গাজীপুর, মানিকগঞ্জ, আশুলিয়া-বাইপাইল-চন্দ্রা ও নরসিংদী জোন।

বক্তারা বলেন, ‘এখন ৬ ঘণ্টা স্টেশন বন্ধ রাখতে হচ্ছে। আর যতোক্ষণ খোলা রাখা হয়, তার অধিকংশ সময়ই বিদ্যুৎ থাকে না। হিসেব করলে দেখা যাবে, দিনে ৪/৫ ঘণ্টার বেশি সিএনজি পাম্প চালানো যায় না। এভাবে চলতে থাকলে সিএনজি স্টেশনে কোটি কোটি টাকা বিনিয়োগ করেও পথে বসতে হবে।’

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩৬, অক্টোবর ২, ২০১০

Nagad
১২ জুলাই থেকে বরিশালে ফ্লাইট চালু 
দুর্দান্ত জয়ে নতুন মাইলফলকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড
সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে মেয়র নাছিরের শোক
নেতারা বলছেন সাহেদ আওয়ামী লীগের কেউ না
পাটুরিয়া নৌরুট পারের অপেক্ষায় তিন শতাধিক ট্রাক


রামেক হাসপাতালে করোনা রোগীর মৃত্যু
বগুড়া-১, যশোর-৬ উপ-নির্বাচনের তদন্ত কমিটি গঠন ইসির
পায়ে পায়ে ৬৪ দিনে ৬৪ জেলা (পর্ব-৬৪)
বগুড়া-১, যশোর-৬ উপ-নির্বাচন: অনিয়মে জরিমানা ১ লাখ টাকা
করোনা: চট্টগ্রামে নতুন ১৬২ জনসহ মোট আক্রান্ত ১১১৯৩