৪ সহযোগীসহ জেএমবি’র ভারপ্রাপ্ত আমীর ‘পঙ্গু সোহেল’ গ্রেপ্তার

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

র‌্যাব সদর দপ্তরের একটি দল অভিযান চালিয়ে নিষিদ্ধ-ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবি’র ভারপ্রাপ্ত আমীর সোহেল মাহফুজ ও তার চার সহযোগীকে গ্রেপ্তার করেছে। এ সময় বিপুল পরিমাণ জিহাদি বই ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়।

ঢাকা : র‌্যাব সদর দপ্তরের একটি দল অভিযান চালিয়ে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবি’র ভারপ্রাপ্ত আমীর সোহেল মাহফুজ ও তার চার সহযোগীকে গ্রেপ্তার করেছে। এ সময় বিপুল সংখ্যক জিহাদি বই ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়।

শুক্রবার রাত সোয়া ১১ টার দিকে এ গ্রেপ্তার অভিযান চালানো হয় বলে জানা গেছে।

র‌্যাব সদর দপ্তর সূত্র বাংলানিউজকে জানায়, রাজধানীতে জেএমবি’র একটি আস্তানায় গোপন বৈঠককালে তাদেরকে আটক করা হয়। তবে অভিযানের স্থান ও জেএমবি’র নয়া আমীর সোহেল মাহফুজ ছাড়া আটক আর কারও নাম প্রকাশ না করে সূত্র জানায়, গোপন বৈঠকটিতে উপস্থিত সবাই ছিল শীর্ষ পর্যায়ের জেএমবি নেতা।

সূত্র জানায়, গ্রেপ্তারের পরপর জেএমবি আমীর সোহেল মাহফুজসহ অন্যদের র‌্যাব সদর দপ্তরে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করা হয়েছে।

অন্য জঙ্গিদের ধরতে পরবর্তী অভিযান চালানোর স্বার্থে র‌্যাব কর্মকর্তারা এখনি এ বিষয়ে কোনও তথ্য প্রকাশ করতে রাজি হননি।

শায়খ আব্দুর রহমান থেকে সোহেল মাহফুজ

শায়খ আব্দুর রহমান, বাংলা ভাইসহ শীর্ষ ৬ জঙ্গি নেতার ফাঁসি হওয়ার পর থেকে প্রায় নেতৃত্বশূণ্য হয়ে পড়া জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ (জেএমবি)’র আমীর হন জঙ্গি  নেতা সাইদুর রহমান। কিন্তু গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে সাইদুরও গ্রেপ্তার হওয়ার পর নেতৃত্বহীন অবস্থায় প্রায় স্থবির হয়ে পড়ে জেএমবির কর্মকাণ্ড।

শীর্ষ নেতৃত্বে এ শূন্যতার সুযোগ নিয়ে জেএমবি’র শূরা সদস্যদের নিয়ে গ্রুপটির সামরিক শাখার কমান্ডাররা সংগঠনের কর্তৃত্বে চলে আসে। কিন্তু সামরিক শাখার প্রধান ভাগ্নে শহিদও গ্রেপ্তার হওয়ায় জেএমবি কঠিন সংকটে পড়ে।

একাধিক গোয়েন্দা সূত্র জানায়, বিপর্যস্ত জেএমবি’র হাল ধরতে অতি সম্প্রতি শূরা সদস্যদের বৈঠকে অনেকটা অপারগ হয়েই নতুন আমীর হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয় সোহেল মাহফুজ ওরফে পঙ্গু সোহেলকে। ২০০৮ সালে নাশকতার ঘটনা ঘটাতে গিয়ে বিস্ফোরণে সোহেল মাহফুজের বাম হাতটি দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সেই থেকে গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর রেকর্ডপত্রে সোহেল মাহফুজ ‘পঙ্গু সোহেল’ হিসেবে চিহ্নিত হয়ে আসছে।

সূত্র আরও জানায়, দক্ষ অস্ত্রবাজ হিসেবে চিহ্নিত জেএমবি’র প্রতিষ্ঠাতা শূরা সদস্য সোহেল মাহফুজ দীর্ঘদিন ভারতে আত্মগোপনে থাকার পর দেড়-দুই মাস আগে বাংলাদেশে ফিরেন। রাজশাহী, সিলেট ও জামালপুরে অবস্থান শেষে সর্বশেষ রাজধানীর মিরপুর মাজার এলাকায় সোহেল ঘাঁটি গাড়েন বলে গোয়েন্দারা খবর পান।

গোয়েন্দা সূত্র মতে, ঢাকায় এসে পঙ্গু সোহেল ঘনিষ্ঠ সহযোগী সারফুল ইসলামকে ‘শাখা আমীর’ নিয়োগ দিয়ে রাজশানীতে সাংগঠনিক কার্যক্রম গুছিয়ে নিতে তৎপরতা শুরু করেন। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১০ দিনে উত্তরা, মিরপুর, আশুলিয়া ও টঙ্গীতে বেশ কয়েকটি গোপন বৈঠক হয় তাদের।

এসব বৈঠকের সূত্র ধরেই শুক্রবার বিকেল থেকে র‌্যাবের একাধিক টিম মিরপুর, আশুলিয়া, তুরাগ ও উত্তরার কয়েকটি স্থানে কড়া নজরদারি শুরু করে। সূত্র জানায়, র‌্যাব গোয়েন্দা উইংয়ের কাছে খবর ছিল- শুক্রবার রাতে যে কোনও একটি আস্তানায় জেএমবি’র শীর্ষ পর্যায়ের গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক বসতে পারে।

এদিকে র‌্যাব সদর দপ্তরের গোয়েন্দা উইংয়ের প্রধান লে. কর্নেল জিয়াউল আহসান পঙ্গু সোহেলের খোঁজে কয়েকটি স্থানে অভিযান চালানোর কথা স্বীকার করেছেন। এ বিষয়ে তিনি বাংলানিউজকে বলেন, ‘কোন আস্তানা থেকে কাকে আটক করা হয়েছে তা এ মুহূর্তে নিশ্চিত করা যাচ্ছে না, তবে অভিযান চলছে।’

তবে রাত ৮ টার পর থেকে গোয়েন্দা উইংয়ের সমন্বয়ে র‌্যাব সদর দপ্তরের শক্তিশালী দুটি টিম মিরপুর ও আশুলিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে জেএমবি আমীর দুর্ধর্ষ সোহেল মাহফুজ ওরফে পঙ্গু সোহেলকে আটক করতে সমর্থ হয় বলে র‌্যাব সূত্র নিশ্চিত করেছে। এ সময় জঙ্গি সংগঠনটির শীর্ষ পর্যায়ের আরও ৪ নেতাকে আটক করে র‌্যাব সদর দপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয় বলে গোয়েন্দা টিমের একটি সূত্র বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেছে।

বাংলাদেশ সময় : ০৩২১ ঘণ্টা, অক্টোবর ০২, ২০১০

Nagad
মানবতাবিরোধী অপরাধের আসামি সাতক্ষীরার বাকীর মৃত্যু
ঈদের ছুটিতে কর্মস্থলে থাকার নির্দেশ
মালদ্বীপে বিক্ষোভের সময় ৩৯ বাংলাদেশি আটক
করোনা পরিস্থিতি ‘খারাপ থেকে আরও খারাপের’ দিকে যেতে পারে: হু
বগুড়ায় ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন


মুজিব শতবর্ষ ঘিরে ১০০ নদীর তীরে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি নোঙর’র
চালককে মারধরের পর অটোরিকশা ছিনতাই
আর্যবিশপ মজেস কস্তার মৃত্যুতে নওফেলের শোক
স্বল্প পরিসরে বেচাকেনা হচ্ছে, স্বপ্ন দেখছেন ব্যবসায়ীরা
‘সংগঠন বিরোধী কর্মকাণ্ডে’ যুক্ত জায়েদ, প্রযোজক সমিতির শোকজ