php glass

অভিনেতা চ্যালেঞ্জারের চিরবিদায়

15 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

বিশিষ্ট অভিনেতা চ্যালেঞ্জার ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ...... রাজেউন)। ১২ অক্টোবর মঙ্গলবার রাত সাড়ে নয়টায় তিনি রাজধানীর মোহাম্মদপুরের শেখেরটেকে নিজ বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে গুণী এই অভিনেতার বয়স হয়েছিল ৫২ বছর। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ব্রেন ক্যানসারে ভুগছিলেন।

ঢাকা: বিশিষ্ট অভিনেতা চ্যালেঞ্জার ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ...... রাজেউন)। ১২ অক্টোবর মঙ্গলবার রাত সাড়ে নয়টায় তিনি রাজধানীর মোহাম্মদপুরের শেখেরটেকে নিজ বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে গুণী এই অভিনেতার বয়স হয়েছিল ৫২ বছর। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ব্রেন ক্যানসারে ভুগছিলেন।

জনপ্রিয় কথাশিল্পী ও নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের হাত ধরেই চ্যালেঞ্জার নাট্যাভিনয়ে আসেন। তার আসল নাম এএফএম তোফাজ্জল হোসেন (সাদেক)। চ্যালেঞ্জার নামটি হুমায়ূন আহমেদেরই দেয়া। এ নামেই তিনি অভিনেতা হিসেবে তুমুল জনপ্রিয়তা লাভ করেন।

হুমায়ূন আহমেদের ‘হাবলঙ্গের বাজারে’ নাটকের মধ্য দিয়ে চ্যালেঞ্জারের অভিনয় জীবন শুরু হয়। অভিনীত উল্লেখযোগ্য নাটকগুলো হচ্ছে উড়ে যায় বক পী, জুতা বাবা, সাদেক দফাদার, ওয়ারেন, ঢোল বাদ্যি প্রভৃতি।  প্রায় দেড়শ টিভিনাটকে তিনি অভিনয় করেন। অভিনয় করেছেন চলচ্চিত্রেও। অভিনীত চলচ্চিত্রের মধ্যে শহীদুল ইসলাম খোকনের ‘লাল সবুজ’, হুমায়ূন আহমেদের ‘শ্যামল ছায়া’, আমজাদ হোসেনের ‘কাল সকালে’ উল্লেখযোগ্য।

গতবছর জুলাই মাসে চ্যালেঞ্জারের ব্রেন ক্যান্সার ধারা পড়ে। দ্রুত চিকিতসার জন্য তাকে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এভারেস্ট হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে পাঁচ মাস চিকিৎসা শেষে তিনি দেশে ফিরেন। কিন্তু তার শারিরীক অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় একমাস পর আবারো তাকে সিঙ্গাপুরে নেয়া হয়। কিন্তু সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এভারেস্ট হাসপাতালের ডাক্তারদের কাছ থেকে তার শারীরিক অবস্থা উন্নতির আশ্বাস না পাওয়ায় তাকে শেষ পর্যন্ত দেশেই ফিরিয়ে আনা হয়। আর তখন থেকেই বিভিন্ন সময়ে তাকে হাসপাতালেই থাকতে হয়েছে। গত ঈদ উল ফিতর তিনি তার পরিবারের সাথে কাটালেও পরদিনই তাকে বাংলাদেশ মেডিক্যালে অসুস্থাবস্থায় ভর্তি হতে হয়। সে সময় তিনি দশদিন আইসিসিইউতে এবং পরবর্তী দশদিন সাধারণ কে অস্স্থুাবস্থায় ছিলেন। গত নয়দিন আগে তাকে তার শেখেরটেকেস্থ বাসায় নিয়ে আসা হলেও তার শারীরিক অবস্থা ছিল বেশ নাজুক। মঙ্গলবার বিকেল থেকেই তিনি প্রচন্ড জ্বর অনুভব করেন। এ সময় তাকে ওষুধ সেবন করানো হলেও তিনি অচেতন হয়ে পড়েন এবং রাত সাড়ে নয়টায় শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন।

অভিনেতা চ্যালেঞ্জার ১৯৫৯ সালে ঢাকার খিলগাঁওয়ে জন্মগ্রহণ করেন। তিন ভাই ও দুই বোনের মধ্যে তিনিই ছিলেন সবার বড়। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়ে ও বহুগুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

১৩ অক্টোবর বুধবার সকাল ১০টায় তার বাসার পার্শ্ববর্তী শেখেরটেক জামে মসজিদে নামাজে জানাজা শেষে অভিনেতা চ্যালেঞ্জারের মৃতদেহ কেন্দ্রীয় শহীদমিনারে নিয়ে যাওয়া হবে। সহকর্মী ও শিল্পীদের শ্রদ্ধা নিবেদনের পর গ্রামের বাড়ি ধামরাইয়ের পাইকপাড়ায় তার মায়ের কবরের পাশে তাকে দাফন করা হবে।

বাংলাদেশ স্থানীয় সময়  ১২১০ অক্টোবর ১৩, ২০১০

‘দেশে লবণের সংকট নেই, দাম বৃদ্ধির বিষয়টি গুজব’
সৈয়দপুরে ভেজালবিরোধী অভিযানে ৪২ হাজার টাকা জরিমানা
নীলফামারীতে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা
করাগারে বাহুবল যুবলীগ সভাপতি
তিন বিলে রাষ্ট্রপতির সম্মতি


চাঁপাইনবাবগঞ্জে আগ্নেয়াস্ত্রসহ গ্রেপ্তার ১
৩ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা, নিষিদ্ধ পলিথিন জব্দ
নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরি, ৩ বেকারিকে জরিমানা
বরিশালে ৫ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা
রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে দিল্লি-বাংলার পয়েন্ট ভাগাভাগি