php glass

লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার : ঢাকা থেকে ১০৪ জন ন্যাশানাল রাউন্ডে

26 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

রূপ আর গুণের খোঁজে আয়োজিত লাক্স চ্যানেল আই সুপার স্টার এবারও সারা দেশে বেশ সাড়া জাগিয়েছে। এখন চলছে ইভেন্টের রিজিওনাল অডিশন রাউন্ড। ঢাকার অডিশন রাউন্ড শুরু হয়েছে ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে, শেষ হয়েছে বুধবার ২৯ সেপ্টেম্বর ।

রূপ আর গুণের খোঁজে আয়োজিত লাক্স চ্যানেল আই সুপার স্টার এবারও সারা দেশে বেশ সাড়া জাগিয়েছে। এখন চলছে ইভেন্টের রিজিওনাল অডিশন রাউন্ড। ঢাকার অডিশন রাউন্ড শুরু হয়েছে ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে, শেষ হয়েছে বুধবার ২৯ সেপ্টেম্বর । রাজধানীর গুলশানের ইমান্যুয়েল ব্যাঙ্কুয়েট অডিটোরিয়ামে টানা চারদিন অনুষ্ঠিত ঢাকা অঞ্চলের প্রাথমিক অডিশনে প্রায় সাড়ে চার হাজার প্রতিযোগী অংশ নিয়েছে।

‘রূপকথার তারকালোকে স্বাগতম/তারা ভরা মায়ার ভুবনে যাত্রা হলো শুরু’ স্লোগান নিয়ে গত ২০ জুলাই থেকে শুরু হয়েছিল লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার ২০১০ এর রেজিস্ট্রেশন পর্ব, শেষ হয় ১০ আগস্ট। দেড় লক্ষাধিক প্রতিযোগী এবার প্রাথমিক অডিশনে অংশ নেয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন করে।

লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার-এর রিজিওনাল অডিশন শুরু হয় ২২ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহে। এই অডিশনে ১০জন প্রতিযোগী জাতীয় পর্যায়ের অডিশনে অংশ নেয়ার জন্য ইয়েস কার্ড পায়। বগুড়ায়  রিজিওনাল রাউন্ড অনুষ্ঠিত হয় ২৪ সেপ্টেম্বর। এখানেও পরবর্তী রাইন্ডে অংশ নেয়ার জন্য ১০জন প্রতিযোগী নির্বাচিত হয়। ঢাকায় ২৬ সেপ্টেম্বর রোববার শুরু হওয়া অডিশন রাউন্ডের প্রথম দিন ইয়েস কার্ড পেয়েছে ৩৮ জন প্রতিযোগী। ২৭ সেপ্টেম্বর সোমবার ইয়েস কার্ড পেয়েছে ২১ জন। ২৮ অক্টোবর মঙ্গলবার পায় ৩৫ জন এবং ২৯ সেপ্টেম্বর বুধবার পেয়েছে ১০জন। ঢাকায় সবমিলিয়ে ইয়েস কার্ড পাওয়া প্রতিযোগীর সংখ্যা ১০৪জন।

ঢাকা রিজিওনাল অডিশনে বিচার হিসেবে ছিলেন জিতু আহসান, রোজি সেলিম, চ্ঞ্চল চৌধুরী, দীপা খন্দকার, বন্যা মির্জা, ফারাহ রুমা, নাজনীন চুমকি, আজাদ আবুল কালাম, হৃদি হক, শামীম শাহেদ প্রমুখ।

ঢাকার পাশাপাশি ২৭ সেপ্টেম্বর সোমবার রাজশাহী অঞ্চলেও অনুষ্ঠিত হয়েছে প্রাথমিক অডিশন। এখান ১৩ জন প্রতিযোগী পরবর্তী রাউন্ডে অংশ নেয়ার জন্য মনোনীত হয়েছেন। ২৯ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার খুলনার আঞ্চলিক বাছাইয়ে ইয়েস কার্ড পান ১১ জন।

বন্দরনগরী চট্রগ্রামে অডিশন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ০৩ অক্টোবর। রিজিওনাল অডিশন রাউন্ড শেষ হবে সিলেটে আগামী ০৫ অক্টোবর।

প্রাথমিক বাছাইকৃত প্রতিযোগীদের মুখোমুখি হতে হবে ন্যাশানাল সিলেকশন রাউন্ডে। এই রাউন্ডে উত্তীর্ণদের নিয়ে অক্টোবরের মাঝামাঝি সময়ে অনুষ্ঠিত হবে আবাসিক ক্যাম্প। আবসিক ক্যাম্পে প্রতিযোগীদের গ্রুমিং করবেন দেশসেরা অভিনেতা-অভিনেত্রী, মডেল, ফ্যাশন ও সৌন্দর্য-বিশেষজ্ঞরা।

প্রতিবারের মতো এবারও লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার-এর সৌভাগ্যবান বিজয়ী পাবেন চলচ্চিত্রে অভিনয়ের সুযোগ, একটি ব্র্যান্ড নিউ গাড়ি এবং অভিনয়ে উচ্চশিক্ষার জন্য আন্তর্জাতিক স্কলারশিপ। এছাড়াও সেরা পাঁচে জায়গা করে নেয়া প্রতিযোগিদেরও পুরস্কৃত করা হবে।  ২০০৫ সালে প্রথম আয়োজন করা হয় লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার ইভেন্ট। প্রথমবার বিজয়ী হন শানারৈ দেবী শানু। ২০০৬ সালের ইভেন্টে সুপারস্টার খেতাব বিজয়ী হন জাকিয়া বারী মম। ২০০৭ সালে সুপারস্টার খেতাব জিতেন বিদ্যা সিনহা মিম। ২০০৮ সালে বিজয়ী হন চৈতি। গত বছর এই প্রতিযোগিতার শিরোপা বিজয়ী হন মেহজাবিন। লাক্স-চ্যানেল আই ইভেন্ট থেকে বেরিয়ে আসা অনেক প্রতিযোগীই বর্তমানে মিডিয়ায় গড়ে তুলেছেন ঝলমলে অবস্থান। যাদের মধ্যে আছেন বিন্দু, বাঁধন, মুনমুন, রাহি, আলভী, ফারিয়া, সূচনা, আমব্রিন, জয়া, উর্মী, রাহা, অর্ষা ও আরো অনেকে ॥

বাংলাদেশ স্থানীয় সময় ১৬৪০,  সেপ্টেম্বর  ২৯, ২০১০

এখন পর্যন্ত শতভাগ বিদ্যুতায়িত উপজেলা ৩৬১টি
ইন্দোনেশিয়ায় পুলিশ সদরদপ্তরে বোমা হামলা, নিহত ১
আ’লীগ থেকে বিএনপিতে আসার অবস্থা তৈরি হয়েছে: ফখরুল
ভারত-বাংলাদেশ কলকাতা টেস্টের সময় এগিয়ে আনা হলো
বশেমুরবিপ্রবির সাবেক ভিসির বিরুদ্ধে দুদকের অনুসন্ধান শুরু


বেপরোয়া রাজনীতি রাজনৈতিক দুর্ঘটনা ঘটাতে পারে: কাদের
শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত ভারতের ক্রিকেট
দেশে ১ কোটি মানুষ কর দিতে সক্ষম: তথ্যমন্ত্রী
রিজেন্ট টেক্সটাইলের ৫ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা
সূচকের মিশ্র প্রবণতায় চলছে লেনদেন