ঈদে ছোটপর্দার ব্যস্ত নির্মাতারা

26 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

বিভিন্ন টিভি চ্যানেলের ঈদ অনুষ্ঠানসূচি এখন প্রায় চূড়ান্ত। নির্মাতারা মোটামুটি জেনে গেছেন, তার কোন নাটকটি যাচ্ছে কোন চ্যানেলে। তবে যাদের ওপর কাজের চাপটা একটু বেশি, তারা এখনো তাদের প্রডাকশনের পুরো কাজ শেষ করতে পারেননি। হাতে সময়ও নেই। শেষ মুহূর্তের কাজ নিয়ে তারা এত ব্যস্ত যে, কথা বলার সময় পর্যন্ত নেই।

php glass

বিভিন্ন টিভি চ্যানেলের ঈদ অনুষ্ঠানসূচি এখন প্রায় চূড়ান্ত। নির্মাতারা মোটামুটি জেনে গেছেন, তার কোন নাটকটি যাচ্ছে কোন চ্যানেলে। তবে যাদের ওপর কাজের চাপটা একটু বেশি, তারা এখনো তাদের প্রডাকশনের পুরো কাজ শেষ করতে পারেননি। হাতে সময়ও নেই। শেষ মুহূর্তের কাজ নিয়ে তারা এত ব্যস্ত যে, কথা বলার সময় পর্যন্ত নেই।

এবার ঈদে সর্বাধিক নাটক নির্মাণ করেছেন সালাউদ্দিন লাভলু । প্রায় সব চ্যানেলেই প্রচার হবে তার নাটক। এছাড়াও নূরুল আলম আতিক, মোহন খান, ফেরদৌস হাসান, চয়নিকা চৌধুরী, রেদোয়ান রনী, গোলাম সোহরাব দোদুল, মুহম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ, সুমন আনোয়ার, অনিমেষ আইচ, আলভী আহমেদ প্রমুখের পরিচালনায় একাধিক নাটক প্রচার হবে বিভিন্ন চ্যানেলে। বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডি ঈদের কাজ নিয়ে কথা বলেছে ছোটপর্দার আলোচিত কজন নির্মাতার সঙ্গে। আসুন জেনে নেওয়া যাক, এই ঈদে নির্মাতারা কে কী করছেন।

মামুনুর রশীদ

এবার ঈদে বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব ও নির্মাতা মামুনুর রশীদ তিনটি নাটক নির্মাণ করেছেন। তাকে অভিনয়েও দেখা যাবে। এ বিষয়ে মামুনুর রশীদ বলেন, এটিএন বাংলার জন্য নির্মাণ করেছি টেলিছবি ‘ঝগড়ালি’। ঈদের চতুর্থ দিন বিকেল সাড়ে ৪টায় প্রচার হবে এটি। এখানে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, আলভী, আ খ ম হাসান, সিদ্দিক, ডলি জহুর, আমিরুল হক চৌধুরী, এটিএম শামসুজ্জামান, খুশী ও অনেকে। এছাড়াও ‘ঠেটারো’ নামে একটি একপর্বের নাটক নির্মাণ করেছি। এখানে অভিনয় করেছেন ডলি জহুর, এটিএম শামসুজ্জামান, চঞ্চল চৌধুরী, তমালিকা কর্মকার । ‘জবা কাহিনী’ নামে আরেকটি টেলিছবি তৈরি করছি। এখানে অভিনয় করেছেন জয়রাজ, এটিএম শামসুজ্জামান, চঞ্চল চৌধুরী, রোজি সিদ্দিকী এবং তমালিকা কর্মকার। প্রতিটি নাটকই আমার লেখা এবং প্রত্যেকটিতেই আমি অভিনয় করেছি।

সালাহউদ্দিন লাভলু

সালাউদ্দিন লাভলু এবারের ঈদে সর্বাধিক নাটক নির্মাণ করেছেন। সাতটি চ্যানেলে প্রচার হবে তার নাটক। ঈদের প্রডাকশনের কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভীষণ কাজের চাপের মধ্যে আছি। ‘তিন গেদা’ নামে একটি টেলিছবি নির্মাণ করছি। এর রচয়িতা বৃন্দাবন দাস। এটি প্রচার হবে এটিএনে, ঈদের দ্বিতীয় দিন বিকেল পৌনে ৪টায়।  অভিনয় করছেন  চঞ্চল চৌধুরী, আলভী, আ খ ম হাসান, সিদ্দিক, ডলি জহুর, আমিরুল হক চৌধুরী প্রমুখ। চ্যানেল আইয়ের জন্য করছি নাটক ‘পয়েন্ট থ্রি’। এটি রচনা করেছের ফারুক হোসেন। এখানে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, প্রভা, মোশারফ করিম । নাটকটি প্রচার হবে ঈদের দিন রাত ৯টা ৩৫ মিনিটে। এছাড়া ‘সার্ভিস হোল্ডার’ এবং ‘মহর শেখ’ নামে দুটি নাটক নির্মাণ করেছি। আরটিভির জন্য বানাচ্ছি ৬ পর্বের খ-নাটক।  

শহীদুজ্জামান সেলিম

ঈদে কী করছেন জানতে চাইলে শহীদুজ্জামান সেলিম বলেন, অভিনয় করছি ১০-১২টি নাটকে। খুব বেশি নাটক এবার নির্মাণ করছি না, এবারের ঈদে মাত্র দুটি কাজ করছি । ‘ঝামেলা নন স্টপ’ নামে একপর্বের একটি নাটকের কাজ শেষ করলাম। এটি প্রচার হবে বৈশাখী টিভিতে। মারুফ রহমানের লেখা এ নাটকে অভিনয় করছেন জিতু আহসান, প্রীতিসহ আরো অনেকে। এটি হাসির নাটক হলেও চলতি ধাঁচের শস্তা কমেডি নয়। আরেকটি কাজ করেছি একটু সিরিয়াসধর্মী, এটি যাবে এনটিএন বাংলায়। দেওয়ান শামসুর রাকিবের লেখা এ নাটকের নাম ‘শায়ালা’। এখানে অভিনয় করছেন মামুনুর রশীদ, রোজি সিদ্দিকী এবং তারিন। দুটি নাটকেই আমি অভিনয় করেছি।

তৌকীর আহমেদ

অভিনেতা-নির্মাতা তৌকীর আহমেদ জানালেন, এবারের ঈদে তার পরিচালনায় তিনটি নাটক প্রচার নিশ্চিত হয়েছে। এ বিষয়ে তিনি বলেন, এবার ঈদে এনটিভির জন্য করেছি ‘শূন্য মানব’ নামের একটি একক নাটক। এটি বিপাশা হায়াতের লেখা। অভিনয় করেছেন আবুল হায়াত, ওয়হিদা মল্লিক জলি, তানভীর  সুইটি এবং আমি। এনটিভির জন্য করেছি আরেকটি একপর্বের নাটক, নাম ‘প্রকৃতস্থ’ । এটিও বিপাশা হায়াতের লেখা। এখানে আমার সাথে আরো অভিনয় করেছেন তারিন এবং মৌসুমী বিশ্বাস। দেশ টিভির জন্যও বিপাশা হায়াতের লেখা আরেকটি নাটক করছি। এ নাটকটির নাম এখনো ঠিক হয়নি।

চয়নিকা চৌধুরী

অন্য ঈদের চেয়ে এবার কাজ নিয়ে অনেক বেশি ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন নাট্যকার-নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী। এবার ঈদে তার ৭-৮টি নাটক প্রচারের সম্ভাবনা আছে।  তিনি বলেন, এ মুহূর্তে আমি হুমায়ূন আহমেদের ‘রূপা’ উপন্যাসটি নিয়ে কাজ করছি। এটির নাট্যরূপ দিয়েছেন নজরুল ইসলাম। এখানে অভিনয় করছেন মাহফুজ আহমেদ, প্রভা এবং বাঁধন। এবারই প্রথম আমি দেশ টিভির জন্য একটা প্রডাকশন নির্মাণ করেছি । ইমদাদুল হক মিলন রচিত এ নাটকের নাম ‘যারা বৃষ্টিতে ভিজেছিল’। এতে প্রধান দুই চরিত্রে অভিনয় করেছেন আনিসুর রহমান মিলন এবং প্রভা। এছাড়া মিলনের লেখা আরেকটি নাটক তৈরি করেছি, নাম ‘দেখা হবে ভালবাসা বেদনায়’ । এখানে প্রথমবারের মতো একসাথে অভিনয় করছেন অপূর্ব, বিন্দু এবং প্রভা। অরুণ চৌধুরীর লেখা নাটক ‘ আলোকের ঐ ঝর্ণাধারা’র নির্মাণ কাজ শেষ করেছি। এখানে অভিনয় করেছেন তমালিকা কর্মকার, তিন্নি এবং অপূর্ব। শাহরুখ শহীদের লেখা  একটি নাটকের কাজ করেছি। এখানে অভিনয় করেছেন শর্মিলী আহমেদ, তিন্নি এবং অপূর্ব। বিপাশা হায়াতের লেখা ‘সুরঞ্জনা’ নাটকটিরও নির্মাণ কাজ শেষ হয়ে গেছে। এখানে অভিনয় করেছেন  শর্মিলী আহমেদ , শহীদুজ্জামান সেলিম, অপূর্ব, প্রভা এবং প্রত্যাশা। নূনা আফরোজের রচনায় করেছি নাটক ‘কৃষ্ণচূড়ার দিন’। আমেরিকা থেকে ফিরে এসে রিচি সোলায়মান এ নাটকের মাধ্যমেই আবার অভিনয় শুরু করেছেন।  নজরুল ইসলামের রচনায় নির্মাণ করেছি ‘পাগলামি তোমার সঙ্গে’ নামের একটি নাটক। এখানে প্রভা এবং হিল্লোল অভিনয় করেছেন। সাগর জাহানের লেখা ‘অপেক্ষা’ নাটকটির নির্মাণ কাজও শেষ। এখানে অভিনয় করেছেন অপি করিম, প্রভা, অপূর্ব, এবং  ইরেশ যাকের।

নূরুল আলম আতিক

নূরুল আলম আতিক জানালেন এই ঈদে প্রচারিত হবে তার পরিচালনায় নির্মিত তিনটি নাটক। নাটক তিনটি হচ্ছে  হাইওয়ে, ডালিম কুমার এবং সাইফুল আর্টিস। তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এ মুহূর্তে আমি ‘সাইফুল আর্টিস’-এর শুটিংয়ে আছি।  একজন ব্যানার-আর্টিস্টের জীবন-যাপনের টানাপোড়েন নিয়ে নাটকটি লিখেছেন ধ্রুব এষ। ডিজিটাল ব্যানারের যুগে ব্যানার আর্টিস্টদের বদলে যাওয়া জীবনের কাহিনীই চিত্রায়িত হয়েছে এ নাটকে। ধ্রুব এষের লেখা আরেকটি নাটক ‘হাইওয়ে’ আমি নির্মাণ করছি। এছাড়া মাতিয়া বানু শুকু রচিত ‘ডালিম কুমার’ নামের একটি নাটক নির্মাণ শেষ করেছি। এতে একজন ইন্সুরেন্স দালালের জীবন তুলে ধরা হয়েছে। মীর সাব্বির এতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন। কোনটি কোন চ্যানেলে যাবে, তা এখনো নিশ্চিত হয়নি।

গোলাম সোহরাব দোদুল

নির্মাতা গোলাম সোহরাব দোদুল জানালেন, ঈদের জন্য তিনি ৩-৪ টি প্রডাকশন তৈরি করছেন। তিনি বলেন, টেলিফিল্ম ‘ব্ল্যাকআউট’ নির্মাণ করেছি দেশ টিভির জন্য। এটির মূল গল্প সত্যজিৎ রায়ের। নাট্যরূপ আমার। এতে অভিনয়ে করেছেন  রাইসুল ইসলাম আসাদ, জেনী, রুনা খান, তুষার খান এস এম মহসীন, স্বাধীন খসরু, শতাব্দী ওয়াদুদ প্রমুখ। এটি প্রচার হবে ঈদের ষষ্ঠ দিন বেলা ৩টায়। এটিএন বাংলার জন্য নির্মাণ করেছি ‘কবি ও যন্ত্রর মন্তর’। এখানে প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইরেশ যাকের  এবং তিশা ।  বিটিভির জন্য করছি ‘অবদান’ নামে একটি নাটক। এটি গ্রন্থপ্রেমী পলান সরকারের জীবন ও কর্ম অবলম্বনে লেখা। এখানে পলান সরকারের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন আবুল হায়াত এবং একটি বিশেষ চরিত্রে অভিনয় করেছেন তারিন ।

রেদওয়ান রনি

রেদওয়ান রনির কাছে ফোন করা হলে প্রথমেই তিনি বললেন, আমি খুবই দৌড়ের ওপর আছি। কাজের চাপে জীবন শেষ। তিনি বলেন, ঈদে দেশ টিভির জন্য নির্মাণ করছি সাত পর্বের একটি ধারাবাহিক। নাটকটির নাম ‘হিমু মিসির আলী বড়চাচা এবং বাকের ভাই’। এখানে আলী যাকের, আসাদজ্জামান নূর এবং মোশাররফ করিম অভিনয় করছেন। চ্যানেল আইয়ের জন্য নির্মাণ  করেছি ‘অপরাজিতা’ নামের একটি নাটক। এখানে মৌসুমী এবং পার্থ বড়–য়া প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন। আরটিভির জন্য নির্মাণ করবো ‘সারমেয়’ নামের একটি নাটক। এটার জন্য এখনো অভিনেতা-অভিনেত্রী ঠিক করিনি। ‘হিমু মিসির আলী বড়চাচা এবং বাকের ভাই’ নাটকটি করছি খুব মনোযোগের সঙ্গে। কারণ এ নাটকের চরিত্রগুলো মানুষের খুব পছন্দের, তাই কাজটা নিয়ে অনেক রিস্ক আছে।

ইফতেখার আহমেদ ফাহমী

ইফতেখার ফাহমী জানালেন, ঈদের জন্য তিনি ৫-৬টি কাজ করেছেন। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘পেন্ডুলাম’
নামের একটি টেলিফিল্ম নির্মাণ করেছি। এটি লিখেছেন আনিসুল হক। অভিনয় করেছেন মোনালিসা, তানজিকা, মিশু এবং সাব্বির প্রমুখ । এটি ঈদের পঞ্চম দিন বিকেল ৩টা ৫ মিনিটে চ্যানেল আইয়ে প্রচার হবে । আনিসুল হক  রচিত ‘বিবর্তন’ নামের আরেকটি টেলিফিল্ম নির্মাণ শেষ করলাম। এখানে প্রধান দুই চরিত্রে অভিনয়ে করেছেন জাহিদ হাসান ও বিন্দু । ঈদের দিন বিকেল ৩টা ০২ মিনিটে এটি  দেশ টিভিতে প্রচার হবে । আরটিভির জন্য ‘ব্রেকিং নিউজ’ নামে একটি নাটক তৈরি করেছি। এখানে আছেন শহীদুজ্জামান সেলিম, আখম হাসান আর বিন্দু । বাংলাভিশনের জন্য করছি ‘এই গল্পের নাম কী’। এখানে অভিনয় করছেন সুমাইয়া শিমু  এবং পার্থ বড়–য়াসহ অনেকে । ইটিভির জন্য করছি নাটক ‘অসম’। এখানে অভিনয় করছেন মৌটুসি এবং মিশু। তাছাড়া ‘ব্রেক আপ’ নামে  আরেকটি নাটক নির্মাণ করছি। এটি কোন চ্যানেলে প্রচার হবে তা ঠিক হয়নি । এতে অভিনয় করছেন শখ, মিশু এবং মিতু।

অনিমেষ আইচ

তরুণ নির্মাতা অনিমেষ আইচ জানালেন, এবারের ঈদকে সামনে রেখে তিনি দুটি নাটক নির্মাণ করেছেন। এছাড়া আগের একটি নাটকেরও প্রচার এই ঈদেই হতে পারে। তিনি বলেন, এই ঈদে দুটি নাটক নির্মাণ করছি। দুটিই আমার লেখা। একটির নাম ‘অপরিচিত’ এখানে মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন অপি করিম এবং ইরেশ যাকের । অন্যটির নাম ‘কাঁটা’। এতে প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করছেন মোশাররফ করিম এবং দিপান্বিতা।


মীর সাব্বির
 
জনপ্রিয় অভিনেতা মীর সাব্বির পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন। গত ঈদে তার পরিচালনায় নির্মিত হাসির নাটক ‘নোয়াখালীর ছেলে ও বরিশালের মেয়ে’ বেশ প্রশংসা অর্জন করে। সেই সাফল্যের ধারাবাহিকতায় এবারও নির্মাণ করেছেন একটি নাটক। এ সম্পর্কে মীর সাব্বির বলেন, এবার নিজের লেখা ‘কাঁচা গাব পাকা গাব’ নামে একটি নাটক নির্মাণ করলাম । নাটকটিতে আমি নিজেও একটি চরিত্রে অভিনয় করেছি। আশা করি এ নাটকটিও দর্শকদের হাসাতে পারবে।



বাংলাদেশ স্থানীয় সময় ২০২৫, আগস্ট ২৯, ২০১০

ভারতে ভোট গণনায় কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা
অস্ত্রসহ গ্রেফতার ছিনতাইকারী
মানুষের মৃত্যুর প্রহর গুনেন তারা
অসহ্য গরমের পর স্বস্তির বৃষ্টি চট্টগ্রামে
পাইকারিতে আড়াই টাকার লেবু খুচরা পর্যায়ে ১০ টাকা


মার্কেটে মার্কেটে পুলিশের সেবা বুথ
ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে লক্ষ্য সুনির্দিষ্ট: পলক
২৫০ রোগীর বিপরীতে ১ জন চিকিৎসক
বগুড়া-৬ উপ-নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন না খালেদা জিয়া
খিলগাঁয়ে কাভার্ড ভ্যানচাপায় শিক্ষার্থীর মৃত্যু