ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আইন ও আদালত

সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় মামলা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২১৯ ঘণ্টা, অক্টোবর ১২, ২০২০
সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় মামলা রায়হান

সিলেট: সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে রায়হান উদ্দিন (৩০) নামে এক যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।  সোমবার (১২ অক্টোবর) মৃত যুবকের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার তান্নি বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার নম্বর (নং-২০ (১০)২০২০)।  

সোমবার বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সিলেট কোতোয়ালি থানার (ওসি-তদন্ত) সৌমেন মৈত্র।

তিনি বলেন, এজাহারে তাহমিনা আক্তার তান্নি উল্লেখ করেছেন, ‘আমার স্বামীকে কে বা কারা বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে গিয়ে পুলিশি হেফাজতে রেখে তার হাত-পায়ে আঘাত করে রক্তাক্ত করে এবং হাতের নখ উপড়ে ফেলে। পুলিশ ফাঁড়িতে রাতব্যাপী নির্যাতনের ফলে আমার স্বামী মৃত্যুবরণ করেন। ’

এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়, ‘তাদের আড়াই মাস বয়সী একটি সন্তান রয়েছে। রোববার (১১ অক্টোবর) ভোর ৪টা ৩৩ মিনিটের দিকে ০১৭৮৩-৫৬১১১১ মোবাইল নাম্বার থেকে আমার শাশুড়ির নাম্বারে ফোন আসে। ফোন রিসিভ করেন রায়হানের সৎ বাবা হাবিবুল্লাহ। ফোন রিসিভ করতেই রায়হান বলেন, আমাকে বাঁচাও, তুমি টাকা নিয়ে বন্দরফাঁড়িতে আসো। হাবিবুল্লাহ ৫টা ৩০ মিনেটর দিকে টাকা ফাঁড়িতে পৌঁছান। তখন দায়িত্বরত এক কনস্টেবলের কাছে রায়হানের খবর জানতে চাইলে বলা হয় রায়হান ঘুমিয়ে এবং যারা তাকে ধরে এনেছেন, তারাও চলে গেছেন সকাল সাড়ে ৯টায় আসতে বলা হয়। এদিন সকাল সাড়ে ৯টায় ১০ হাজার টাকা নিয়ে বন্দরবাজার ফাঁড়িতে যাওয়ার কথা বলেও ওই কনস্টেবল। পুলিশের কথামতো নিহতের সৎ বাবা হাবিবুল্লাহ টাকা নিয়ে ফাঁড়িতে গিয়ে রায়হান কোথায় জানতে চাইলে রায়হান অসুস্থ হওয়ায় তাকে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার সৎ শ্বশুর হাসপাতালে গিয়ে রায়হানের মরদেহ দেখতে পান।

পুলিশের দাবি, নগরের কাষ্টঘর এলাকায় ছিনতাইকালে গণপিটুনিতে রায়হানের মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু স্বজনদের দাবি, তাকে পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে।  

রায়হান সিলেট নগরের আখালিয়া ধানুহাটারপাড় এলাকার মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে। তিনি নগরের রিকাবিবাজার স্টেডিয়াম মার্কেটে শাহজালাল ল্যাবে চিকিৎসকের সহকারী হিসেবে কাজ করতেন।  

এদিকে নগরের কাষ্টঘর এলাকায় এ দিন সকালে কোনো ছিনতাইয়ের গণপিটুনির ঘটনা ঘটেনি বলেও জানান স্থানীয়রা। ওই এলাকার সিসিটিভি ফুটেজে গণপিটুনির কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলেও জানিয়েছেন সিলেট সিটি করপোরেশনের ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম মুনিম।

বাংলাদেশ সময়: ১২০৮ ঘণ্টা, অক্টোবর ১২, ২০২০/আপডেট: ১২৪৬ ঘণ্টা,
এনইউ/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa