ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আইন ও আদালত

রায় শুনে কান্নায় ভেঙে পড়েন দণ্ডিতদের স্বজনরা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৪৮ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০
রায় শুনে কান্নায় ভেঙে পড়েন দণ্ডিতদের স্বজনরা

বরগুনা: আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় তার স্ত্রী মিন্নিসহ ছয় জনের ফাঁসির দণ্ড দিয়েছেন আদালত। খালাস পেয়েছেন চারজন।

রায় শুনেই দণ্ডিতদের পাশাপাশি কান্নায় ভেঙে পড়েন স্বজনরা।

বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান ২শ পৃষ্ঠার এ রায় ঘোষণা করেন।

রায় শুনে আদলত চত্বরেই কান্নায় ভেঙে পড়েন। পরে আসামিদের বিকেল ৩টার দিকে যখন আদালত থেকে প্রিজনভ্যানে কারাগারে নেওয়া হয় তখন সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা স্বজনরা কান্না ও আহাজারি করতে থাকেন।

এসময় তারা গণমাধ্যমকর্মীদের ছবি তুলতে নিষেধ করেন।  

এদিকে রায় ঘোষণার পর মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হক কিশোর প্রথমে আদালত প্রাঙ্গণ থেকে বেরিয়ে যান। তিনি ন্যায় বিচার না পাওয়ার কথা জানান। তবে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা বলছেন মিন্নির ফাঁসির দণ্ডের মধ্য দিয়ে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হয়েছে।

এদিকে মিন্নির বাবার মতো তার পক্ষের আইনজীবীও রায় ঘোষণার পরপরই আদালত প্রাঙ্গণ ত্যাগ করেন। তারা জানান, এ রায়ের বিরুদ্ধে তারা আপিল করবেন।

রায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি, রাকিবুল হাসান রিফাত ওরফে রিফাত ফরাজী, আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বী আকন, মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত, রেজওয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় ও মো. হাসান। খালাস পেয়েছেন মো. মুসা, রাফিউল ইসলাম রাব্বী, মো. সাগর এবং কামরুল ইসলাম সাইমুন।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৪৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০
এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa