বিচারপতি জিনাত আরাকে বিদায়ী সংবর্ধনা

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বিচারপতি জিনাত আরা

walton

ঢাকা: আপিল বিভাগের দ্বিতীয় নারী বিচারপতি জিনাত আরাকে বিদায়ী সংবর্ধনা দিয়েছে অ্যাটর্নি জেনারেল অফিস ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি।

বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) প্রধান বিচারপতির কোর্টে এ সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এসময় অ্যাটর্নি জেনারেল অফিসের পক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ এম আমিন উদ্দিন বক্তব্য দেন।

এ সংবর্ধনার জবাবে বিচারপতি জিনাত আরা বলেন, ৪১ বছরের বেশি কর্মজীবন শেষে আজ অবসরে যাচ্ছি। শেষের কয়েকটা মাস মনে হচ্ছিল দ্রুত সময় কেটে গেলেই আমার মুক্তি। কিন্তু আজ মুক্তির স্বস্তি থাকলেও বিচারাঙ্গণ থেকে সবাইকে ছেড়ে যেতে যে বিষণ্নতা কাজ করছে তা অস্বীকার করি কি করে?

তিনি আরও বলেন, ২০০৩ সালের ২৭ এপ্রিল আমি হাইকোর্ট বিভাগে অস্থায়ী বিচারপতি হিসেবে শপথ গ্রহণ করি। ওইদিন আমার মন ছিলো বিষণ্নতায় ভরা। আমার বাবা এর মাত্র তিনমাস আগে ২৭ জানুয়ারি ইন্তেকাল করেন। অনেক দিন ধরে শোনা যাচ্ছিল আমি বিচারপতি হচ্ছি। আমার বাবা আমাকে বিচারপতি হিসেবে দেখার জন্য উন্মুখ ছিলেন। অথচ দেখে যেতে পারেননি।

প্রসঙ্গ বিচারপতি জিনাত আরার বাবা হাফেজ মোহাম্মদ রইস উদ্দিন সিদ্দিকী জেলা ও দায়রা জজ ছিলেন।

আগামী ১৪ মার্চ এ বিচারপতির ৬৭ বছর পূর্ণ হবে। কিন্তু ওই সময়ে অবকাশকালীন ছুটি থাকায় বৃহস্পতিবার তাকে বিদায় সংবর্ধনা দেওয়া হয়। বিচারপতি জিনাত আরা আপিল বিভাগে নিয়োগ পাওয়া দ্বিতীয় নারী বিচারপতি। তিনি বিএসসি ও এলএলবি ডিগ্রি অর্জনের পর ১৯৭৮ সালের ৩ নভেম্বর মুন্সেফ (সহকারী জজ) হিসেবে বিচার বিভাগে নিয়োগ পেয়েছিলেন। এরপর ১৯৯৫ সালে পদোন্নতি পেয়ে জেলা ও দায়রা জজ হন।

পরবর্তীকালে ২০০৩ সালের ২৭ এপ্রিল হাইকোর্টে অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পান। দুই বছর পরে তিনি স্থায়ী হন। এরপর ২০১৮ সালের ৮ অক্টোবর আপিল বিভাগের বিচারপতি নিয়োগ পান।

এর আগে প্রথম নারী বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছিলেন নাজমুন আরা সুলতানা। বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ১৯৭৫ সালের ২০ ডিসেম্বর মুন্সেফ নিয়োগ পান। আর এতেই হয়ে যান ইতিহাসের অংশ। দেশ ও বিচার বিভাগের ইতিহাসে তিনিই প্রথম নারী বিচারক।

১৯৯১ সালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জেলা জজের আসনে উন্নীত করে। আর এটাও প্রথম কোনো নারীর জেলা জজ হওয়ার ঘটনা।

২০০০ সালের ২৮ মে তিনি হাইকোর্টে অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পান। এর দুই বছর পর হাইকোর্টে স্থায়ী হন তিনি। আবার হাইকোর্টেও তিনি প্রথম। সবশেষ ২০১১ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি তিনি আপিল বিভাগের প্রথম নারী বিচারপতি হিসেবে শপথ নেন। পরে তিনি ২০১৭ সালে অবসরে যান।

** অবসরে যাচ্ছেন আপিল বিভাগের বিচারপতি জিনাত আরা

বাংলাদেশ সময়: ১৮০৪ ঘণ্টা, মার্চ ১২, ২০২০
ইএস/ওএইচ/

সোনাইমুড়িতে জ্বর-শ্বাসকষ্টে ইতালি প্রবাসীর মৃত্যু
আদ্-দ্বীন মেডিকেল কলেজে চলছে অনলাইনে ক্লাস-পরীক্ষা
প্রতিনিয়তই লকডাউন হচ্ছে রাজধানীর নতুন এলাকা
রক্তাক্ত ধর্ষিতা শিশুকে থানায় নিয়ে মায়ের আহাজারি
ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ থেকে বিকল্প পথে গ্রামগঞ্জে শতশত মানুষ


যমুনা টিভির এক সাংবাদিক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত
ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে ঘরেই শবেবরাতের ইবাদতে রাজধানীবাসী
বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার গঠন
বিএসএমএমইউ’র অধ্যাপক ও মেয়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত
করোনা:আইসিইউ থেকে ওয়ার্ডে ফিরলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী জনসন