php glass

ভারতে সরকারকেও কাঁদাতে পারে পেঁয়াজ!

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

নাসিক পেঁয়াজ/ফাইল ফটো

walton

কলকাতা: টানা বর্ষণ ও বন্যায় সংরক্ষণে থাকা পেঁয়াজের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে মহারাষ্ট্রে। এর প্রভাব পড়েছে কলকাতার বাজারেও। খুচরা বাজারগুলোতে পেঁয়াজের দাম চড়তে শুরু করেছে। কয়েকদিন আগেও বাজারগুলোতে সাধারণ মানের পেঁয়াজ কেজি প্রতি ৩০ রুপির আশপাশে বিক্রি হচ্ছিল। তা এখন বেড়ে ৪০ রুপি হয়েছে। 

কলকাতার সবচেয়ে বড় সবজির পাইকারি বাজার কোলে মার্কেটের দায়িত্বপ্রাপ্ত এক কর্মকর্তা ও পশ্চিমবঙ্গ সরকারের নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর টাস্কফোর্সের সদস্য কমল দে জানান, রাজ্যে পেঁয়াজের অবস্থা খুবই উদ্বেগজনক। পশ্চিমবঙ্গে উৎপাদিত পেঁয়াজ প্রায় শেষের পথে। ভিন রাজ্যই ভরসা। কিন্তু ওসব রাজ্য থেকে সরবরাহ প্রায় অর্ধেক হয়ে গেছে। ফলে দামও চড়ছে কলকাতার বাজারে। 

দিন দশেক আগেও কলকাতার পাইকারি বাজারে ৪০ কেজি পেঁয়াজের বস্তার দাম মান অনুযায়ী ৬শ থেকে ৮শ রুপির মধ্যে ছিল। এখন ওই পেঁয়াজের বস্তার দাম এক লাফে বেড়ে ১২শ থেকে ১৪শ রুপি হয়েছে। সে কারণেই কলকাতায় খুচরো বাজারে বেড়েছে দাম।

পশ্চিমবঙ্গে মাসিক পেঁয়াজের চাহিদা ৬০ থেকে ৬৫ হাজার টন থাকে। চাহিদার মূল অংশ অর্থাৎ ৭০ শতাংশ আসে মহারাষ্ট্র থেকে। কিছু আসে অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে। এই মুহূর্তে মহারাষ্ট্র থেকে চাহিদার মাত্র ১০ শতাংশ পেঁয়াজ আসছে কলকাতায়। এতে যা ঘাটতি হচ্ছে, তা অন্ধ্রপ্রদেশের পেঁয়াজ মোটেও মেটাতে পারছে না।

অপরদিকে চিন্তা বাড়িয়েছে, মহারাষ্ট্রে নতুন পেঁয়াজ জমি থেকে উঠতে এখনও দেরি রয়েছে। মূলত নভেম্বর মাস নাগাদ নতুন পেঁয়াজ ওঠে মাঠ থেকে। ফলে এখনও মাস তিনেক পেঁয়াজের সমস্যা বা বাড়তি দাম থাকবে কলকাতায়। তবে এটা শুধু পশ্চিমবঙ্গে নয়, গোটা দেশেই বাড়বে দাম। বাদ পড়বে না বাংলাদেশও।

এরকম চলতে থাকলে সেপ্টেম্বর থেকে ‘পেঁয়াজ’ আমজনতার পাশাপাশি সরকারকেও কাঁদাতে পারে। এমনই মনে করছে পশ্চিমবঙ্গের ব্যবসায়ী মহল। অতীতের পেঁয়াজের ব্যাপক মূল্যবৃদ্ধির জেরে বিধানসভা ভোটে ক্ষমাতসীন দলের ভোট নষ্ট হওয়ার নজির রয়েছে ভারতে।
 
তবে পশ্চিমবঙ্গে পেঁয়াজ উৎপাদন এখন অনেকটাই বেড়েছে। এবছর সাড়ে চার লাখ টনের বেশি পেঁয়াজ উৎপাদন হয়েছে। রাজ্যে উৎপাদিত পেঁয়াজ ফেব্রুয়ারি মাস নাগাদ বাজারে আসে। থাকে জুলাই মাস পর্যন্ত। ফলে ওই সময়টায় বাজারে রাজ্যের পেঁয়াজের জোগান ভালোই ছিল। এখনও অল্প কিছু পেঁয়াজ চাষিদের ঘরে আছে।

এই সুযোগে ওই চাষিরা বেশি দাম হাঁকাচ্ছেন। রাজ্যে পেঁয়াজ চাষের পরিকাঠামো আগের থেকে ভালো হলেও সংরক্ষণের পরিকাঠামো এখনও উন্নত নয়। সংরক্ষণ উন্নত হলে চাহিদা মেটানো সম্ভব হতো। ভিন রাজ্যের দিকে তাকাতে হতো না। এমনই জানিয়েছেন কোলে মার্কেটের দায়িত্বপ্রাপ্ত কমল দে। 

বাংলাদেশ সময়: ২১৩০ ঘণ্টা, আগস্ট ২৫, ২০১৯
ভিএস/এএ

ksrm
ইন্দোনেশিয়ার সাবেক রাষ্ট্রপতির শোক বইয়ে মোমেনের সই
ই-কমার্স মার্চেন্টদের জন্য প্রিপেইড কার্ড 
মমেক ছাত্রকে কোপানোর ঘটনায় যুবকের যাবজ্জীবন
জাপান প্রবাসীদের নিয়ে ক্রিকেট প্রতিযোগিতা
সাদার্নের ইংরেজি বিভাগে বিদায় অনুষ্ঠান


১১ লাখ রোহিঙ্গার তথ্য ইসির কাছে, ভোটার হওয়ার সুযোগ নেই
সার্জেন্টের ওপর মোটরসাইকেল তুলে দিল কেসিসির কর্মচারী
নুহাশ হুমায়ুনের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে সুনেরাহ
আরএসআরএমের স্টিল মিল পরিদর্শনে সিআইইউর শিক্ষার্থীরা
মাদকবিরোধী প্রচারণায় ২২ কিমি পথ পেরোবেন ২৩৬ সাইক্লিস্ট