php glass

বর্ষাহীন কলকাতায় ক্যালেন্ডারেই আষাঢ়-শ্রাবণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

কলকাতার একটি রেলস্টেশন। ছবি: বাংলানিউজ

walton

কলকাতা: বন্যায় বিধ্বস্ত গোটা আসাম রাজ্য। বৃষ্টিতে ভেসে যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গের উত্তরের জেলাগুলোও। কিন্তু রাজ্যের দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলোতে আষাঢ় পেরিয়ে শ্রাবণ আসলেও বৃষ্টির দেখা নেই বললেই চলে। 

সোমবার (২২ জুলাই) ছিল শ্রাবণ মাসের পাঁচ তারিখ। কলকাতার আকাশ দেখে কে বলবে, বর্ষাকাল চলছে। দিগন্ত থেকে দিগন্ত ঝলমলে নীল আকাশ, সাদা তুলোর মতো মেঘ সঙ্গে অস্বস্তিকর গরম, যা গরমকালকেও হার মানায়। লোকমুখে একটাই প্রশ্ন, এবার বৃষ্টি কি হবে না? 

বর্ষা যে কার্যত উধাও তা অবশ্য আবহাওয়া অফিসের তথ্যে চোখ রাখলেই বোঝা যাচ্ছে। ১ জুন থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ বর্ষার ঘাটতিতে দ্বিতীয়।

বর্ষার ঘাটতিতে স্বাভাবিক ভাবেই চাষের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। কৃষকেরা বলছেন, এ সময় থেকেই ধান চাষ শুরু হয়। বীজতলার কাজ শুরু হয়। ফলে বৃষ্টি না হলে সে কাজ ক্ষতিগ্রস্ত হবে। এ পরিস্থিতিতে চাষের কাজে একমাত্র সহায় ভূগর্ভের পানি। তবে তাতেও আশঙ্কা থাকছে। কারণ বর্ষা না হওয়ায় পশ্চিমবঙ্গের ভূগর্ভস্থ পানির স্তরও অনেকটা নেমে গেছে। 

পরিবেশ এবং আবহাওয়াবিদরা বলছেন, আবহাওয়া বদলের প্রভাবে বর্ষার চরিত্র বদলাচ্ছে। 

এ বিষয়ে কলকাতার আবহাওয়া দফতরের কর্মকর্তা গনেশ কুমার দাস বলেন, বঙ্গোপসাগরে কোনো নিম্নচাপ তৈরি হলে বর্ষা জোর পাবে। কিন্তু এবার সে পরিস্থিতিও দেখা যাচ্ছে না।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৩২ ঘণ্টা, জুলাই ২৩, ২০১৯
ভিএস/এইচএডি

ksrm
ইন্দোনেশিয়ার সাবেক রাষ্ট্রপতির শোক বইয়ে মোমেনের সই
ই-কমার্স মার্চেন্টদের জন্য প্রিপেইড কার্ড 
মমেক ছাত্রকে কোপানোর ঘটনায় যুবকের যাবজ্জীবন
জাপান প্রবাসীদের নিয়ে ক্রিকেট প্রতিযোগিতা
সাদার্নের ইংরেজি বিভাগে বিদায় অনুষ্ঠান


১১ লাখ রোহিঙ্গার তথ্য ইসির কাছে, ভোটার হওয়ার সুযোগ নেই
সার্জেন্টের ওপর মোটরসাইকেল তুলে দিল কেসিসির কর্মচারী
নুহাশ হুমায়ুনের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে সুনেরাহ
আরএসআরএমের স্টিল মিল পরিদর্শনে সিআইইউর শিক্ষার্থীরা
মাদকবিরোধী প্রচারণায় ২২ কিমি পথ পেরোবেন ২৩৬ সাইক্লিস্ট