শাবানের চাঁদ দেখা নিয়ে বিতর্কের অবসানে কমিটি

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠক। ছবি: বাংলানিউজ

walton

ঢাকা: শাবান মাসের চাঁদ দেখা নিয়ে বিতর্কের অবসান ঘটাতে ১১ সদস্যের সাব-কমিটি গঠন করে দিয়েছে সরকার। এ কমিটি শবে বরাতের আগে আগামী ১৭ এপ্রিলের মধ্যে তাদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে।

php glass

শনিবার (১৩ এপ্রিল) বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠক শেষে এ কথা জানান ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ।

প্রায় দুই ঘণ্টার বৈঠক শেষে প্রতিমন্ত্রী জানান, বিষয়টা যেহেতু ধর্মীয়, যারা আমাদের দেশে সব চাইতে জ্ঞানবান আলেম, তাদের ওপর দায়িত্বটা দেওয়া হয়েছে। তারাই সিদ্ধান্ত নেবেন।

কমিটির প্রধান হিসেবে রয়েছেন বিশিষ্ট আলেম রাজধানীর মিরপুরের মারকাজুদ দাওয়ার শিক্ষাপরিচালক মাওলানা মুফতি আব্দুল মালেক। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহের ইমাম আল্লামা ফরিদ উদ্দীন মাসউদ, ফরিদাবাদ মাদ্রাসার মুহতামিম ও বেফাকের মহাসচিব মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, গোপালগঞ্জের গওহরডাঙ্গা মাদ্রাসার মুহতামিম মুফতি রুহুল আমীন, শায়খ যাকারিয়া (রহ.) ইসলামিক রিসার্চ সেন্টারের মহাপরিচালক মুফতি মিজানুর রহমান সাঈদ, জামিয়া ইসলামিয়া দারুল উলুম (মসজিদুল আকবর কমপ্লেক্স) মাদ্রাসার মুহতামিম মুফতি দিলাওয়ার হোসাইন, তেজগাঁও মদীনাতুল উলুম কামিল মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক আল আযহারী, লালবাগ মাদ্রাসার মুহাদ্দিস মুফতি মো. ফয়জুল্লাহ, লালবাগ মাদ্রাসার প্রধান মুফতি মাওলানা ইয়াহ্ইয়া, মোহাম্মদপুর জামেয়া রাহমানিয়ার প্রিন্সিপাল মুফতি মো. মাহ্ফুজুল হক ও বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম মুফতি মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান।।

গত ৬ এপ্রিল জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি সভা করে জানিয়েছিলো, ওই দিন দেশের আকাশে কোথাও শাবান মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। ফলে ৮ এপ্রিল থেকে শাবান মাস গণনা শুরু হবে এবং ২১ এপ্রিল দিনগত রাতে পবিত্র লায়লাতুল বরাত পালিত হবে।

তবে ‘মজলিসু রুইয়াতিল হিলাল’ নামে একটি সংগঠনের দাবি, সেদিন খাগড়াছড়িতে চাঁদ দেখা গেছে। তাদের দাবি অনুযায়ী, ২০ এপ্রিল দিবাগত রাতে পবিত্র লায়লাতুল বরাত পালিত হওয়ার কথা। এ নিয়ে বিতর্ক এড়াতেই জরুরি বৈঠক ডাকে সরকার।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, বৈঠকে উভয়পক্ষের আলোচনা হয়েছে। আলোচনাটা এক পর্যায়ে বাকবিতণ্ডার মধ্যে গেছে। আমি সবাইকে বলেছি এটা (২১ এপ্রিল বরাত) কোনো সরকারি সিদ্ধান্ত হিসেবে বিবেচনা করবো না। আমাদের সরকার, আমাদের একটা ঘোষণা আছে- কোরআন এবং হাদিসের বাইরে এই সরকার কোনো সিদ্ধান্ত নেবে না। চাঁদ দেখার বিষয়টা একটা ধর্মীয় ব্যাপার, এ ব্যাপারেও আমরা চাপিয়ে দেওয়ার মতো কোনো সিদ্ধান্ত নেইনি এবং নেবো না।

ওই দিনের বৈঠকে সভাপতিত্ব করে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেছিলেন প্রতিমন্ত্রী। সেদিনের সিদ্ধান্তের ঘোষণা পাঠ করে শোনানোর প্রেক্ষাপট তুলে ধরে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা যে সিদ্ধান্ত নিছি, আমাদের চাঁদ দেখা কমিটি ৬৪ জেলায় আছে, কেন্দ্রে আছে। তাদের সবার সম্মতির ওপরে সবাই যেটি বলেছি সেটা পড়ে শুনিয়েছি।

সাব-কমিটির সিদ্ধান্ত সবার কাছে গ্রহণযোগ্য হবে কি হবে না- প্রশ্নে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য সবার মতে একটা সাব-কমিটি গঠন করে দিয়েছি। এ বিষয়ে তারা যে সিদ্ধান্ত দেবে তা আমরা গ্রহণ করবো।

‘এই সাব-কমিটিকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার সর্বময় ক্ষমতা চাঁদ দেখা কমিটির পক্ষ থেকে অর্পণ করলাম। ওনারা সবার সঙ্গে আলাপ করে সিদ্ধান্ত জানাবেন। কুরআন এবং সুন্নত মোতাবেক যেভাবে সিদ্ধান্ত নিলে সহজ হয়- এই কাজটা করার জন্য আমরা ক্ষমতা অর্পণ করেছি।’

বাকবিতণ্ডা কী নিয়ে- প্রশ্নে প্রতিমন্ত্রী বলেন, কেউ কেউ দাবি করেছে যে আমরা চাঁদ দেখেছি, এটা নিয়ে।

যারা চাঁদ দেখেছে তাদের প্রতিনিধিও কমিটিতে রয়েছে বলে দাবি করেছেন প্রতিমন্ত্রী।

২১ এপ্রিল শবে বরাতের তারিখ নির্ধারণের পর চলমান এইচএসসির পাঁচ দিনের পরীক্ষার সূচি বদল করে দেওয়া হয়েছে।

ধর্ম সচিব মো. আনিছুর রহমান ছাড়াও ইসলামিক ফাউন্ডেশন এবং সংশ্লিষ্টরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৫১ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৩, ২০১৯
এমআইএইচ/এইচএ/

** শাবান মাসের চাঁদ দেখা নিয়ে বিতর্ক, বৈঠকে কমিটি

জিতেই চলেছে বসুন্ধরা কিংস
সাভারে বসুন্ধরা সিমেন্টের ইফতার মাহফিল
ঋণের সুদ ৯ শতাংশ না হলে আমানত নয়
রংপুরে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৬
‘২ জুনের আগেই গার্মেন্টস শ্রমিকদের বেতন, বোনাস ৩০ মে’


সংবাদ সম্মেলন করলেন না মমতা
খাতা পুনর্মূল্যায়নের বিধান না থাকা নিয়ে রুল
শুক্রবার সকালে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রে লেখক-পাঠক সংলাপ
বিশ্বকাপ কাঁপাতে পারেন যে দশ ব্যাটসম্যান
বরিশালে ৩ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা