php glass

প্রিয়নবী (সা.) এর পরিবার ও বংশ

ইসলাম ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

মসজিদে নববী, মদিনা মুনাওয়ারা, সৌদি আরব। ছবি : সংগৃহীত

walton

বিশ্ব মানবতার মুক্তির বার্তা নিয়ে প্রিয়নবী (সা.) জন্মগ্রহণ করেন। মানবজাতিকে অজ্ঞতা, অমানবিকতা ও সর্বোপরি ‘আইয়ামে জাহিলিয়্যাতে’র নিকষ আঁধারি থেকে মুক্তি দিতেই তার আগমন। সুদীর্ঘ ৬৩ বছরের জীবনে তিনি সমগ্র বিশ্ববাসীর জন্য নিখুঁত কালজয়ী আদর্শ রেখে যান।

মহানবী (সা.) এর  জন্মের সাল নিশ্চিত হলেও জন্ম তারিখ নিয়ে কিছুটা মতানৈক্য রয়েছে। তবে প্রসিদ্ধ অভিমত অনুযায়ী তিনি ১২ রবিউল আউয়াল জন্মগ্রহণ করেন। তার পরিবার ও বংশ তৎকালীন আরবের অভিজাত ও শ্রেষ্ঠ বংশ ছিল। বাংলানিউজের পাঠকদের জন্য তার পরিবার-বংশের সংক্ষিপ্ত তালিকা দেয়া হলো।

নাম : মুহাম্মদ (সা.)।

উপনাম : আবুল কাসেম।

পিতা : আবদুল্লাহ বিন আবদুল মুত্তালিব (আবদুল মুত্তালিবের দশ সন্তানের সর্বকনিষ্ঠ)।

মাতা : আমেনা বিনতে ওহ্হাব।

দাদা : আবদুল মুত্তালিব বিন হাশেম।

দাদি : ফাতেমা বিনতে আমর।

নানা : ওহ্হাব বিন আবদে মানাফ।

নানি : বোররা বিনতে ওমজা।

বংশলতিকা : মুহাম্মদ (সা.) বিন আবদুল্লাহ বিন আবদুল মুত্তালিব বিন হাশেম বিন আবদে মানাফ বিন কুসাই বিন কিলাব বিন মোররা বিন কাআব বিন লুয়াই বিন গালেব বিন ফেহের (তাঁর উপাধি ছিল কোরাইশ। এখান থেকে কোরাইশ বংশের প্রচলন) বিন মালেক বিন নজর বিন কানানা বিন খোজাইমা বিন মোদরাকা বিন ইলিয়াস বিন মুজার বিন নেজার বিন মাআদ বিন আদনান। (এ পর্যন্ত সব ঐতিহাসিকের ঐক্য আছে। এ বংশলতিকা হজরত ইসমাইল ও ইব্রাহিম (আ.) হয়ে হজরত আদম (আ.) পর্যন্ত পৌঁছেছে।)

জন্মস্থান : মক্কা (বর্তমান সৌদি আরবে অবস্থিত)।

গোত্র : কোরাইশ।

বংশ : হাশেমি।

জন্ম সময় : রাত অতিবাহিত হয়ে প্রত্যুষে।

ইসলাম বিভাগে লেখা পাঠাতে মেইল করুন: [email protected]
বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ২১, ২০১৮
এমএমইউ/এসএইচ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ইসলাম
কোরবানির বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় ফ্রি ব্যাগ, ৪ লাখ লিফলেট
ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল হলেন আবুল হাশেম
ভালুকায় অজ্ঞাত ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার
অবনী মাহবুবের কণ্ঠে রবীন্দ্রসঙ্গীত
শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় সিক্ত হলেন সাংবাদিক অজয় বড়ুয়া


২৪০০ কোটি টাকার জিপিএইচে ৮৮৫০ জনের কর্মসংস্থান হবে
পদ্মাসেতুতে রোডওয়ে গার্ডার বসানো শুরু
ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি, এক ব্যক্তির মৃত্যু
শিক্ষামন্ত্রীর স্বামীর সুস্থতা কামনায় দোয়া
ভারতে তসলিমার ভিসার মেয়াদ বাড়লো