php glass

এখন থেকে কানাডায় নেকাব বৈধ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
কানাডায় পরিবর্তনের ডাক দিয়ে ক্ষমতায় আসা জাস্টিন ট্রুডুর (Justin Trudeau) সরকার শুরু থেকেই নানা চমক দেখিয়ে চলছে। গত নির্বাচনে পরাজিত হার্পার (Harper) সরকার মুসলিম নারীদের নেকাব পরিধানের ওপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে হাইকোর্টে যে আপিল করেছিল, তা প্রত্যাহার করে নিল নতুন সরকার।

কানাডায় পরিবর্তনের ডাক দিয়ে ক্ষমতায় আসা জাস্টিন ট্রুডুর (Justin Trudeau) সরকার শুরু থেকেই নানা চমক দেখিয়ে চলছে। গত নির্বাচনে পরাজিত হার্পার (Harper) সরকার মুসলিম নারীদের নেকাব পরিধানের ওপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে হাইকোর্টে যে আপিল করেছিল, তা প্রত্যাহার করে নিল নতুন সরকার।

সরকারের আপিল প্রত্যাহারের ফলে দেশটিকে নেকাব পরা নিয়ে চলমান সব জটিলতার অবসান ঘটল। বিশেষজ্ঞরা এটাকে নেকাবের জয় হিসেবে অভিহিত করেছেন।

কানাডার অ্যাটর্নি জেনারেল যদি উইলসন রেবল্ড (Jody Wilson Raybould) গত সোমবার (১৭ নভেম্বর) বলেছেন, তিনি সুপ্রিম কোর্টকে জানিয়েছেন, নতুন সরকার আর ওই মামলাটি চালাতে চায় না।

তিনি অভিবাসনমন্ত্রী জন ম্যাককালামের (John McCallum) সঙ্গে দেয়া এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন, কানাডার বৈচিত্র্যই তার সবচেয়ে বড় শক্তি। যারাই নাগরিকত্ব পাবেন, তারাই কানাডা পরিবারে অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবেন। আমরা মনে করি, মতবিরোধে নয়, ঐক্যেই খুশি।

এর আগে জুনেরা ইসহাক (zunera ishaq) নামের পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত এক মুসলিম নারী হিজাব পরার অধিকার আদায় করেছিলেন আদালত থেকে। তিনি তার চোখ দুটি ছাড়া পুরো দেহ ঢেকে রাখেন। আদালত এতে আপত্তিকর কিছু পায়নি। কিন্তু এর বিরুদ্ধে পূর্ববর্তী সরকার উচ্চতর আদালতে চ্যালেঞ্জ জানায়। কানাডার জাতীয় নির্বাচনের কিছুদিন আগে এই ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নির্বাচনে ব্যাপক প্রভাব ফেলে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

জুনেরা ২০০৮ সালে পাকিস্তান থেকে কানাডা যান। ২০১৩ সালে তিনি নাগরিকত্ব পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। কিন্তু মুখ খুলতে অস্বীকৃতি জানালে তাকে শপথ গ্রহণ করতে দেয়া হয়নি। পরে তিনি আদালতের দ্বারাস্থ হলে রায় তার পক্ষে যায়।

১৯ অক্টোবরের নির্বাচনের ১০ দিন আগে তিনি কানাডার নাগরিক হিসেবে শপথ গ্রহণ করেছেন।

উল্লেখ্য যে, গত মাসে কানাডার ৪২তম জাতীয় নির্বাচনে লিবারেল পার্টি ক্ষমতায় আসে। নির্বাচনে জাস্টিন ট্রুডো ও তার দল মুসলিম নারীদের স্বাধীনতার পক্ষে, নেকাব পরার অধিকারের পক্ষে এবং কানাডার বৈচিত্র্য সংস্কৃতির পক্ষে ছিলেন।

তখন জাস্টিন ট্রুডো বলেছিলেন, তিনি সংখ্যালঘু মুসলিম নারীদের অধিকার ও স্বাধীনতা রক্ষার পদক্ষেপ নেবেন। কোনো নাগরিককে তার পোশাকের ব্যাপারে বাধ্য করবেন না। সংখ্যালঘুদের অধিকার নিশ্চিত করবেন এবং নারীদের নেকাব পরার অধিকারের পক্ষে থাকবেন। আপিল প্রত্যাহারের মধ্য দিয়ে জাস্টিন ট্রুডো তার কথা রাখলেন।

-ডেইলি সাবাহ অবলম্বনে



বাংলাদেশ সময়: ১৬১০ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৭, ২০১৫
এমএ

মওলানা ভাসানীর প্রয়াণ
ইতিহাসের এই দিনে

মওলানা ভাসানীর প্রয়াণ

পাহাড়ের মাটি যাচ্ছে ইটভাটায়
গভীর রাতে উন্নয়ন কাজ তদারকিতে মেয়র নাসির
আমিরাতে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
সৌদিতে নারী কর্মী পাঠানো নিয়ে বিপাকে সরকার


রোববার প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দেবে বিএনপি
১৮ কোটি মানুষ পেঁয়াজের জন্য আর্তনাদ করছে: কর্নেল অলি
এপিকটায় অংশ নেবে দেশের ৩২ প্রকল্প
বনশ্রীতে বাসার দরজা ভেঙে এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার
শেষ হলো অস্ট্রেলিয়া-বাংলাদেশ প্রথম বাণিজ্য সম্মেলন