পাকিস্তানে ৯৯ আরোহীর প্লেন বিধ্বস্ত, ৩৭ জনের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঘটনাস্থল, ছবি: সংগৃহীত

walton

পাকিস্তানের করাচিতে একটি যাত্রীবাহী প্লেন বিধ্বস্ত হয়েছে। এতে এ পর্যন্ত ৩৭ জন নিহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ডন। পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের (পিআইএ) ফ্লাইটটি লাহোর থেকে যাত্রী ও ক্রু মিলে ৯৯ আরোহী নিয়ে করাচি যাচ্ছিল।

শুক্রবার (২২ মে) স্থানীয় সময় বিকেল পৌনে তিনটার দিকে করাচির জিন্নাহ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে একটি আবাসিক এলাকায় পিআইএর জেট প্লেন এ-৩২০ বিধ্বস্ত হয়। এতে আরও মৃত্যু হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। উদ্ধার অভিযান চলছে।

সংবাদমাধ্যম বলছে, সিন্ধুর স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এ দুর্ঘটনায় এ পর্যন্ত ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তবে এটা স্পষ্ট নয় যে, যাদের মৃত্যৃ হয়েছে, তারা সবাই ফ্লাইট আরোহী ছিলেন কি-না। কেননা, দুর্ঘটনাটি যে জায়গায় ঘটেছে, সেখানে স্থানীয়দেরও চলাফেরা ছিল। কর্মকর্তাদের মতে, ফ্লাইটের তিনজন বেঁচে গেছেন। তাদের সঙ্গে আলোচনায় বিস্তারিত বেরিয়ে আসতে পারে।

পিআইএর মুখপাত্র আবদুল্লাহ হাফিজ বলেছেন, এ-৩২০ এয়ারবাস ৯১ জন যাত্রী এবং আটজন ক্রু নিয়ে লাহোর থেকে করাচিতে ‘পিকে-৮৩০৩’ ফ্লাইট পরিচালনা করছিল। কিন্তু করাচিতে অবতরণ করতে পারছিল না। তিনবার চেষ্টা করেও ফ্লাইটটি জিন্নাহর রানওয়ে ধরতে পারেনি। শেষে দুর্ভাগ্যবশত এর কাছেই একটি আবাসিক এলাকায় বিধ্বস্ত হয়।

শাকিল আহমেদ নামে এক প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে, প্লেনটি প্রথমে একটি মোবাইল টাওয়ারে ধাক্কা খায় এবং ঘরগুলো ভেঙে পড়ে। ঘটনাস্থল বিমানবন্দর থেকে মাত্র কয়েক কিলোমিটার দূরে জানিয়েছেন শাকিল আহমেদ।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৮ ঘণ্টা, মে ২২, ২০২০
টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: পাকিস্তান দুর্ঘটনা
করোনাযোদ্ধাদের আইসোলেশন সেন্টার সংকট ও করণীয়
করোনাকাল: ভোগান্তিতে নতুন মাত্রা যোগ করবে বাস ভাড়া বৃদ্ধি
অনলাইনে টিকিট কেটে ট্রেন ভ্রমণ করতে হবে: রেলমন্ত্রী
চলে গেলেন সাবেক ফুটবলার হেলাল
করোনার চেয়ে ক্যান্সারে মানুষ মরছে চার গুণ


বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবাষির্কীতে জাতিসংঘের স্মারক ডাকটিকিট
অসুস্থতার স্ট্যাটাস দিয়ে উপজেলা আ’লীগ নেতার মৃত্যু
মেসিকে হটিয়ে সবচেয়ে ধনী খেলোয়াড় ফেদেরার
চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালের জায়াগা হারাচ্ছে ইস্তানবুল
৭০০ কোটি মানুষের কাছে ভ্যাকসিন পৌঁছাতে লাগবে ৩-৪ বছর