শ্রীলঙ্কায় ফেসবুক-হোয়াটসঅ্যাপ বন্ধ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

হামলার পর দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর তৎপরতা, ছবি: সংগৃহীত

walton

ঢাকা: শ্রীলঙ্কায় প্রায় একইসঙ্গে ছয়টি এবং পরবর্তীতে আরও দু’টি ভয়াবহ বোমা হামলায় এ পর্যন্ত অন্তত ১৮৯ জন নিহত হওয়ার পর নিরাপত্তা জোরদার করেছে দেশটির সরকার। ইতোমধ্যেই জারি করা হয়েছে কারফিউ। একইসঙ্গে দেশটিতে ফেসবুকসহ কিছু যোগাযোগ এবং তথ্য দেওয়া-নেওয়ার মাধ্যম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। গতি কমানো হয়েছে ইন্টারনেট ব্যবহারেও।

php glass

শ্রীলঙ্কান সরকারি কর্মকর্তারা বলছেন, ভুল তথ্য এবং গুজব যাতে না ছড়ায়, সে চিন্তা মাথায় রেখে ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপসহ বড় বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং মেসেজিং অ্যাপস দেশের ভেতরে অস্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

এর আগে দেশটির গুরুত্বপূর্ণ স্পটে, বিশেষ করে গির্জা আর হোটেলে নিরাপত্তা জোরদার করাসহ সারাদেশে কারফিউ জারি করা হয়। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ার পর রোববার (২১ এপ্রিল) স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরদিন ভোর ৬টা পর্যন্ত ১২ ঘণ্টা পুরো দেশে কারফিউ ঘোষণা করেন শ্রীলঙ্কান জুনিয়র প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রুয়ান উইজাওয়ার্ডেন। এছাড়া গির্জা এবং হোটেল টার্গেট করে পরিকল্পিতভাবে সিরিজ বোমা হামলার তীব্র নিন্দা এবং ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন জুনিয়র এ মন্ত্রী।

রোববার স্থানীয় সময় সকাল এবং দুপুরে দেশটির রাজধানী কলম্বো ও এর আশপাশের তিন গির্জা, চার অভিজাত হোটেল এবং আরেকটি ভিন্ন জায়গায় দফায় দফায় ভয়াবহ রকমের বোমা হামলা হয়। এর মধ্যে সকাল ৮টার দিকে প্রায় একই সময়ে তিন গির্জা এবং তিন হোটেলে সিরিজ বোমা হামলা হয়। বাকি দু’টি হামলা হয় দুপুরে।

এতে এখন পর্যন্ত ১৮৯ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহত হয়েছেন পাঁচ শতাধিকেরও বেশি। আরও নিহত হতে পারেন বলে আশঙ্কা করছে কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন>> গির্জা-হোটেলে বোমায় স্তম্ভিত শ্রীলঙ্কা, নিহত বেড়ে ১৮৯

বাংলাদেশ সময়: ১৭১৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ২১, ২০১৯
টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ফেসবুক
ইফতার করা হলো না দম্পতির
না’গঞ্জে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় প্রাণ গেলো কিশোরের
সিইপিজেডে ফ্যাক্টরির আগুন নিয়ন্ত্রণে
ধারাবাহিকতা ধরে রাখাই লক্ষ্য মাশরাফির
১২ ঘণ্টা পর সচল সিলেট-তামাবিল সড়ক


গরমে আমে ফ্রুট বোরার আক্রমণ, ক্ষতি হচ্ছে ভাটার ধোঁয়াতেও
লোকসভায় তারকাদের হার-জিত
ওয়ালটনের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর মাশরাফি
শতবর্ষী বৃদ্ধা ধর্ষণ, ধর্ষক কিশোরের স্বীকারোক্তি 
থাইল্যান্ড যাচ্ছে জাতীয় ফুটবল দল