ঢাকা, রবিবার, ১২ আশ্বিন ১৪২৭, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮ সফর ১৪৪২

তথ্যপ্রযুক্তি

আয়োজিত হলো হুয়াওয়ে এশিয়া প্যাসিফিক আইসিটি ট্যালেন্ট ফোরাম-২০২০

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০৫৭ ঘণ্টা, আগস্ট ৬, ২০২০
আয়োজিত হলো হুয়াওয়ে এশিয়া প্যাসিফিক আইসিটি ট্যালেন্ট ফোরাম-২০২০ ...

ঢাকা: চীনভিত্তিক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের উদ্যোগে আয়োজিত হলো ‘হুয়াওয়ে এশিয়া প্যাসিফিক আইসিটি ট্যালেন্ট ফোরাম-২০২০’। এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) খাতে কাজের ক্ষেত্রে দক্ষতা বিষয়ক বর্তমান প্রবণতা এবং তরুণদের দক্ষতা বিকাশের কৌশল বিষয়ে এ অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়।


 
বুধবার (৫ আগস্ট) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে হুয়াওয়ে টেকনোলজিস বাংলাদেশের পক্ষ থেকে এ আয়োজন সম্পর্কে জানানো হয়। ‘কানেকশন, গ্লোরি, ফিউচার’ এই প্রতিপাদ্যে অনলাইনে আয়োজিত ফোরামে দুই হাজারের বেশি অংশগ্রহণকারী উপস্থিত ছিলেন। আগামী ৩০ নভেম্বর অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সনদপত্র বিতরণের মধ্যে দিয়ে শেষ হবে এবারের আয়োজনের আনুষ্ঠানিকতা।
 
বিভিন্ন খাতের বিশেষজ্ঞ এবং যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক অধ্যাপকেরা ফোরামে উপস্থিত হয়ে আইসিটি খাতে দক্ষ কর্মীদের ক্রমবর্ধমান চাহিদা নিয়ে আলোচনা করেন। এসময় তারা এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে দক্ষ কর্মীর স্বল্পতা বিষয়ক সমস্যা সমাধানে কার্যকরী পরিকল্পনা প্রস্তাব করেন।  

এছাড়াও অনুষ্ঠানে এ অঞ্চলে টেকসই ডিজিটাল রূপান্তরের পথ সুগম করতে সমন্বিত আইসিটি ট্যালেন্ট ইকোসিস্টেম গড়ে তুলতে হুয়াওয়ে এর সার্টিফিকেশন প্রোগ্রামের ঘোষণা দেওয়া হয়। যেসব শিক্ষার্থী ও আইসিটি প্র্যাকটিশনাররা হুয়াওয়ে এশিয়া প্যাসিফিক আইসিটি অ্যাকাডেমিতে যোগ দিয়েছেন কিংবা যোগদানের পরিকল্পনা করছেন তাদের জন্য এ প্রোগ্রাম উন্মুক্ত বলে জানিয়েছে হুয়াওয়ে। যেসব অংশগ্রহণকারী সবচেয়ে কম সময়ে উত্তীর্ণ হবেন, আগে উত্তীর্ণ হওয়ার ভিত্তিতে তাদের পুরস্কৃত করা হবে।
 
হুয়াওয়ে এশিয়া প্যাসিফিকের চিফ ডিজিটাল অফিসার ও এক্সিকিউটিভ কনসালটেন্ট মাইকেল ম্যাকডোনাল্ড বলেন, এখন ক্লাউড কম্পিউটিং, বিগ ডাটা, ইন্টারনেট অব থিংস ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নতুন আইসিটি খাতের মূলভিত্তি হিসেবে উল্লেখ্য। যেহেতু, প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের কর্ম প্রয়োজনীয়তা পুনর্বিন্যাস করছে, সেক্ষেত্রে নতুন আইসিটি ল্যান্ডস্কেপ আনুমানিক ৫০ লাখ পেশাদারদের স্বল্পতা তৈরি করবে। দক্ষ কর্মীর উচ্চ চাহিদা পূরণে আমাদের লক্ষ্য আগামী পাঁচ বছরে ২০ লাখ আইসিটি পেশাদার তৈরি করা।  এ বছর আমরা দুই শতাধিক হুয়াওয়ে অ্যাকাডেমি তৈরি করবো এবং এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে ১০ হাজার সার্টিফিকেশন পরিচালনা করবো। আইসিটি ট্যালেন্ট ইকোসিস্টেম হুয়াওয়ের দীর্ঘমেয়াদী কৌশল। শিক্ষার্থী এবং আইসিটি প্র্যাকটিশনাররা যাতে তাদের ক্যারিয়ারে প্রতিযোগিতামূলক অবস্থানে যেতে পারে, এক্ষেত্রে তাদের সহায়তায় আমরা বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও স্থানীয় পার্টনারদের সঙ্গে কাজ করবো।
 
ট্যালেন্ট সিস্টেম স্ট্যান্ডার্ড হুয়াওয়ে সার্টিফিকেশনে ২২টি কারিগরি ক্ষেত্রে এবং ১০০টি সার্টিফিকেশন পরীক্ষা রয়েছে। এ প্রোগ্রামের মাধ্যমে এখন পর্যন্ত এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের ১৯ হাজারসহ মোট দুই লাখ ৬০ হাজারের বেশি আইসিটি শিক্ষার্থী ও কর্মীদের সার্টিফায়েড করা হয়েছে। ২০১৩ সালে যাত্রা শুরু করা হুয়াওয়ে আইসিটি অ্যাকাডেমি প্রতিবছর ৪৫ হাজারের বেশি শিক্ষার্থীকে প্রশিক্ষণদানে নয় শতাধিক উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করছে। এখন পর্যন্ত এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে প্রতিষ্ঠানটি ১০৩টি আইসিটি অ্যাকাডেমি প্রতিষ্ঠা করেছে।
 
বাংলাদেশ সময়: ০০৫৫ ঘণ্টা, আগস্ট ০৬, ২০২০
এসএইচএস/আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa