php glass

ওকলা স্পিডটেস্টে দ্রুততম নেটওয়ার্কে গ্রামীণফোন

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

‘দ্রুততম মোবাইল নেটওয়ার্ক’ এর স্বীকৃতি পাওয়ায় উদযাপন

walton

ঢাকা: ইন্টারনেটের গতি পরীক্ষা ও বিশ্লেষণের প্রতিষ্ঠান ‘ওকলা’ পরিচালিত নিরীক্ষায় ২০১৯ সালের প্রথম ও দ্বিতীয় প্রান্তিকে আবারো বাংলাদেশের ‘দ্রুততম মোবাইল নেটওয়ার্ক’ এর স্বীকৃতি পেয়েছে গ্রামীণফোন।

রোববার (৮ সেপ্টেম্বর) গ্রামীণফোনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, স্পিডটেস্ট অ্যাওয়ার্ড বিজয়ী নির্বাচনের জন্য ‘স্পিড-স্কোর’ প্রক্রিয়ায় মোবাইল অপারেটরদের ডাউনলোড ও আপলোড স্পিড পরীক্ষা করার মাধ্যমে নেটওয়ার্ক স্পিড পারফরম্যান্সের ক্রম নির্ণয় করা হয়। ২০১৮ সালে ৯.২৫ স্কোর নিয়ে বিজয়ী হওয়ার পর থেকে পর্যায়ক্রমিকভাবে উন্নতকরণের মাধ্যমে ২০১৯ সালে ১০.৬০ স্কোর অর্জন করে গ্রামীণফোন। 
 
এ সম্পর্কে গ্রামীণফোনের ডেপুটি সিইও এবং সিএমও ইয়াসির আজমান বলেন, আমরা এ পুরস্কারটি আমাদের গ্রাহকদের প্রতি উৎসর্গ করছি। গ্রাহকদের সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করতে আমরা সবাই মিলে ধারাবাহিকভাবে কাজ করে যাচ্ছি এবং নিয়ন্ত্রক সংস্থার সম্প্রতি আরোপিত অন্যায্য বিধি-নিষেধ সত্ত্বেও আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।
 
ইয়াসির আজমান বলেন, টানা দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশের দ্রুততম মোবাইল নেটওয়ার্ক হিসেবে ‘ওকলা অ্যাওয়ার্ড’ প্রাপ্তি হচ্ছে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে নেটওয়ার্ক আপগ্রেড করায় আমাদের সব প্রয়াসের স্বীকৃতিস্বরূপ। তবে আমাদের কাজ এখানেই শেষ নয় বরং ভবিষ্যতে উন্নয়ন ও উদ্ভাবনের এ ধারা বজায় রাখতে  আমাদের পরিকল্পনা রয়েছে।
 
উল্লেখিত ফলাফলে পৌঁছাতে দেশের সব শীর্ষস্থানীয় অপারেটরের নেটওয়ার্ক সমর্থিত আধুনিক প্রযুক্তির ডিভাইসে ইন্সটল করা স্পিডটেস্ট অ্যাপে গ্রাহকভিত্তিক টেস্ট পরিচালনার মাধ্যমে পরীক্ষা চালায় ওকলা। নির্দিষ্ট সময়ের ব্যবধানে পরিচালিত টেস্টে উঠে আসে দ্রুতগতির মোবাইল ইন্টারনেট গ্রামীণফোনের। ওকলা স্পিডস্কোর পরীক্ষার ক্ষেত্রে দ্রুততম গতির নেটওয়ার্কে সংযোগ স্থাপনে সক্ষম আধুনিক ডিভাইস ব্যবহার করা হয়।
 
ওকলার এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট জেমি স্টিভেন বলেন, বাংলাদেশের দ্রুততম নেটওয়ার্ক হিসেবে গ্রামীনফোনকে স্বীকৃতি দিতে পেরে আমরা আনন্দিত। এবছরের প্রথম ও দ্বিতীয় প্রান্তিকে গ্রাহকদের স্বতঃস্ফূর্তভাবে গ্রহণ করা ‘স্পিডটেস্ট’ পরীক্ষার ফলাফল চুলচেরা বিশ্লেষণে অনবদ্য পারফরম্যান্স করার কারণেই এই স্বীকৃতি পেয়েছে গ্রামীণফোন।
 
গ্রামীণফোন জানিয়েছে, ২০১৯ সালের জুন মাস পর্যন্ত গ্রামীণফোনের গ্রাহক সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ কোটি ৫৩ লাখ। দ্বিতীয় প্রান্তিকে প্রতিষ্ঠানটি নেটওয়ার্ক আধুনিকায়ন ও ফোরজি সেবা সম্প্রসারণে ৩৮০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে। ১৬ হাজারের ও বেশি সাইট নিয়ে গ্রামীণফোন নেটওয়ার্ক এখন ১০০ শতাংশই মোবাইল ব্রডব্যান্ড কাভারেজ দিচ্ছে। 
 
বাংলাদেশ সময়: ১৯০৯ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০৮, ২০১৯
এমআইএইচ/এএ

ksrm
পূজা উপলক্ষে লেমিস গাইলেন ‘বল দুর্গা মাইকি জয়’
বহিষ্কৃত হলেন আইএইচটির ৬ পরীক্ষার্থী
ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরের ডিজি বাবলু কুমার
শ্রেণীকক্ষে সিলিং ফ্যানের পাখা খুলে পড়ে ২ শিক্ষার্থী আহত
ভুল শুধরে বিমানকে এগিয়ে নেওয়ার প্রত্যয় নতুন এমডির


ইউজিসিতে আইইবি প্রতিনিধি দল
পৌনে ৩ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে ডিএসই সূচক
বাংলাদেশে গান করতে আসছেন রানু মণ্ডল!
সংস্কার হবে চৈতন্যগলি কবরস্থানের জানাজা ভবন
পচা-বাসি খাবার খাওয়াচ্ছে থিম ওমর প্লাজার ৩ রেস্তোরাঁ