বিদায় এয়ারবাস ৩১০!

2069 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহর থেকে বিদায় নিচ্ছে এয়ারবাস-৩১০ উড়োজাহাজ। ২৫ বছর ধরে যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে এ-৩১০ উড়োজাহাজ দু’টি ছিল বিমানের নির্ভরতার প্রতীক।

ঢাকা: বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহর থেকে বিদায় নিচ্ছে এয়ারবাস-৩১০ উড়োজাহাজ। ২৫ বছর ধরে যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে এ-৩১০ উড়োজাহাজ দু’টি ছিল বিমানের নির্ভরতার প্রতীক।   

কিন্তু বর্তমানে এই উড়োজাহাজ দু’টি বিমানের জন্য বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। সাম্প্রতিককালে জ্বালানি ব্যয় বেড়ে যাওয়া এবং রক্ষণাবেক্ষণ ব্যয় বেশি হওয়ায় বিমান কর্তৃপক্ষ এ সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়। 

এ বিষয়ে বিমানের চেয়ারম্যান এয়ার মার্শাল (অব.) জামাল উদ্দিন আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, এয়ারবাস উড়োজাহাজের ব্যয় বেড়ে যাওয়াতেই বিমান এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগামী বছরের মধ্যে বিমানের বহর থেকে এয়ারবাস বাদ দেওয়া হবে। 

বিমান সূত্রে জানা গেছে, এয়ারবাসের উড়োজাহাজ দু’টি কেনা হয় ১৯৯০ সালে। দু’টিই ছিল ব্র্যান্ড নিউ উড়োজাহাজ। এর মধ্যে একটি দুবাইয়ে দুর্ঘটনায় পড়ে। কাছাকাছি সময়ে আরো একটি এয়ারবাস লিজ নেয় বিমান। পরে লিজে আনা এয়ারবাসটি কিনে নেওয়া হয়। সব মিলিয়ে বিমানের বহরে তিনটি উড়োজাহাজ ছিল।

বর্তমানে দু’টি উড়োজাহাজ উড্ডয়নের উপযোগী রয়েছে। 

বিমান সূত্রে জানা গেছে, প্রতি ঘণ্টায় উড্ডয়ন ব্যয় বৃদ্ধির পাশাপাশি এর রক্ষণাবেক্ষন ব্যয় অনেক বেশি। তাছাড়া বর্তমানে বিশ্বে এ ধরনের উড়োজাহাজ দিয়ে যাত্রী পরিবহন হয় না বললেই চলে। একই সঙ্গে এ দু’টি এয়ারবাসের ডি-চেক (বড় ধরনের রক্ষণাবেক্ষণ) করাতে হবে আগামী বছর। এতে কয়েক কোটি টাকা ব্যয় হবে। তাই ডি-চেকের আগেই বিমান ব্যয়বহুল এ উড়োজাহাজ দু’টিকে বিদায় করতে চায়।    

গত কয়েক বছর ধরে বিমানের ভেতর থেকে ব্যয়বহুল এসব উড়োজাহাজ বহর থেকে বাদ দেওয়ার কথা ওঠে। এরপর বিমানের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষও উড়োজাহাজগুলো বহর থেকে বাদ দেওয়ার পরিকল্পনা নেয়। এরই অংশ হিসেবে প্রথমে ডিসি-১০ বাদ দেওয়া হয়। এবার বাদ দেওয়া হচ্ছে এয়ারবাস ৩১০।
 
জ্বালানি ব্যয় ও রক্ষণাবেক্ষণ বেড়ে যাওয়ায় ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে বিমানের বহর থেকে বিদায় করা হয় সর্বশেষ দু’টি ডিসি-১০ উড়োজাহাজ। নির্ভরযোগ্যতার প্রতীক ওই দু’টি ডিসি-১০ বিমানের বহরে যুক্ত হয় ১৯৮৮ ও ১৯৮৯ সালে। 

১৯৮৩ সালে বিমানের বহরে প্রথম যুক্ত হয় ডিসি-১০। এরপর একে একে বিমানের বহরে আরো ৫টি ডিসি-১০ যুক্ত হয়।       

বহরে যুক্ত হওয়ার পর রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী এয়ারলাইন্সের বহরে এটিই হয়ে ওঠে সবচেয়ে নির্ভরশীল উড়োজাহাজ। তবে বয়স হয়ে যাওয়ায় দিনে দিনে এর জ্বালানি খরচ যেমন বাড়ছিল, তেমনি এর রক্ষণাবেক্ষণ ব্যয় বেড়ে যাচ্ছিল বহুগুণে। 

বাংলাদেশ সময়: ১০৩০ ঘণ্টা, মার্চ ০২, ২০১৫ 

Nagad
বেগমগঞ্জে ৩০ মেট্রিক টন গম জব্দ
করোনা উপসর্গ নিয়ে বিসিএসআইআর কর্মকর্তার মৃত্যু
সভাপতি পদে রাহুলকে চান কংগ্রেসের সাংসদরা
নালিতাবাড়ী-ঝিনাইগাতীতে ২৫ গ্রাম প্লাবিত
বিপিও উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগের আহ্বান পলকের


বিনিয়োগ আকর্ষণে নীতিমালা সংস্কারের পরামর্শ
ভুয়া চিকিৎসকসহ ৩ জনকে কারাদণ্ড, হাসপাতাল সিলগালা
পশ্চিমবঙ্গে একদিনে করোনা আক্রান্ত ১,৫৬০ জন
নভোএয়ারে ভ্রমণ করলে ফ্রি কাপল টিকিট
‘টাউট’ শহীদুলের আইন পেশা, আছে মানবাধিকার সংগঠন!