দুনিয়াখ্যাত ৩০ পরিব্রাজক : পর্ব ১

1001 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
ভ্রমণ আমাদের সবার প্রিয়। আমরা সবাই কমবেশি ঘোরাঘুরি করতে ভালোবাসি। ভ্রমণের অদম্য স্বাদ নিতে অনেকে চষে বেড়ান বিশ্বের এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত। এরই মাঝে অনেকেই করে ফেলেছেন বিশ্বজয়! আবার অনেক পর্যটক আছেন, যারা বিশ্ব ভ্রমণ করতে গিয়ে আবিষ্কার করে ফেলেছেন কোনো...

ভ্রমণ আমাদের সবার প্রিয়। আমরা সবাই কমবেশি ঘোরাঘুরি করতে ভালোবাসি। ভ্রমণের অদম্য স্বাদ নিতে অনেকে চষে বেড়ান বিশ্বের এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত। এরই মাঝে অনেকেই করে ফেলেছেন বিশ্বজয়! আবার অনেক পর্যটক আছেন, যারা বিশ্ব ভ্রমণ করতে গিয়ে আবিষ্কার করে ফেলেছেন কোনো মহাদেশ, সমুদ্রেরে কোনো চ্যানেল-প্রণালী অথবা পৃথিবীর কোনো বিশেষ ভৌগলিক অঞ্চল। তাই শুধু বিশ্ব ভ্রমণ করেই ইতিহাসের পাতায় অমর হয়ে গেছেন কোনো কোনো পর‌্যটক। চলুন পরিচিত হয়ে নেয়া যাক বিশ্ববিখ্যাত এমনি ত্রিশজন পর্যটকের সঙ্গে।

ক্রিস্টোফার কলম্বাস
ক্রিস্টোফার কলম্বাসের নাম আমাদের সবারই জানা। তিনি ছিলেন ইতালিয়ান নাবিক। এশিয়ার খোঁজে তিনিই সর্বপ্রথম আটলান্টিক মহাসাগর পাড়ি দেন। একইসঙ্গে তিনি আমেরিকার সঙ্গে ইউরোপের জলযোগ স্থাপন করেন।

রেইড স্টো
সমুদ্রজয়ে মানব ইতিহাসে রেইড স্টো নামটি দুঃসাহসিকতার পরিচয় বহন করে। তিনি তার ছোট জাহাজ নিয়ে এক হাজার ১৫২ দিন সমুদ্রে অবস্থান করেন, যা ১৮৯০ সালের নরওয়েজিয়ান শিপ রেকর্ড ভাঙে। নরওয়েজিয়ান শিপটি এক হাজার ৬৭ দিন সমুদ্রে বহাল ছিল। দীর্ঘ তিন বছর সমুদ্রের জল, মাছ ও খোলা আকাশের নিচে একা বসবাস করা শুধুমাত্র দুঃসাহসিকতাই নয় রোমান্টিকতা ও স্বপ্নবিলাসিতারও পরিচয় বটে।

সেই স্বপ্নীল দিনগুলো নিয়ে স্টো’র একটি বিখ্যাত মন্তব্য এমন, ‘গোটা শূন্য জাহাজে আমি মোটেও একা ছিলাম না। দুর্দান্ত সুন্দর প্রকৃতির মাঝে একা থাকার অভিজ্ঞতা অত্যন্ত চমৎকার।’

কিরা সালাক
মাদাগাস্কার, বর্নিও, রুয়ান্ডা,  ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব কঙ্গোসহ প্রায় সব মহাদেশেই তিনি এককভাবে ভ্রমণ করেন। উদিয়মান পর্যটক হিসেবে ২০০৫ সালে তিনি খ্যাতি অর্জন করেন। ইংরেজিতে পিএইচডি করা এই গবেষক সর্বপ্রথম পশ্চিম আফ্রিকার নিগার নদীর ৬০০ কিলোমিটার নিম্নভূমিতে প্রবেশ করেন। তিনিই পাপুয়া নিউগিনিতে প্রথম নারী পর্যটক হিসেবে পা রাখেন। 

সিলভিয়া আর্লে
সিলভিয়া আর্লে শুধু প্রথমশ্রেণির সমুদ্র বিশারদই নন, দীর্ঘ ছয় হাজার ঘণ্টা সমুদ্রের নিচে অবস্থান করে রেকর্ড গড়েছেন তিনি। নাম সিলভিয়া আর্লে। সমুদ্রের ৩৮০ মিটার গভীরে থেকে নিমিষেই আমেরিকার দৈনিক পত্রিকায় জায়গা করে নেন এই দুঃসাহসিক সমুদ্র অভিযাত্রী। ৭৬ বছর বয়সী আর্লে বর্তমানে সমুদ্র সংরক্ষণ অধিদপ্তরের স্টুয়ার্ড হিসেবে বহাল আছেন। এছাড়াও তিনি সমুদ্র গবেষণায় ব্যবহৃত সাবমেরিন তৈরি ও ডিজাইন কোম্পানির মালিক।

ওয়াল্ডো
ভাবুনতো একটা সমুদ্রসৈকত। তাতে ভোজন-ভ্রমণ, যাদুঘর, সার্কাস, মুদি দোকান সবই আছে। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস থেকে শুরু করে জীবনের কোনো উপাদানই অনুপস্থিত নেই সেখানে। তার নামই ওয়াল্ডো। ভ্রমণের সময় পুরো জায়গাটাই যেন হয়ে যায় আপন। সঙ্গে সেখানকার মানুষজনও। যেখানো অনেক ভীড়ের মাঝেও নিজেকে সবার সঙ্গে মানিয়ে নেয়া যায়। 

ডুইট কোলিনস
আপনাকে যদি ৪০ দিন ৮৫০ পাউন্ড ও ২৪৭ ফুট টিউবের মতো একটি নৌকায় হিমশীতল আটলান্টিক মহাসাগরে অবস্থান করতে বলা হয়। তাহলে ভেবে দেখুন তো কি উত্তর দেবেন? বলছি ডুইট কোলিনসের কথা। এমন একটি নৌকায় তিনি দিনে সাড়ে উনিশ ঘণ্টা প্যাডেল করে পাড়ি দেন আটলান্টিক। ভ্রমণ শেষে ইংল্যান্ডের প্লিমাউথে পৌঁছে তিনি শ্যাম্পেইন বোতলের ভেতর একটি ছোট উক্তি লিখে সমুদ্রে ফেলেন। উক্তিটি ছিল, ‘এই বোতলটি যে খুঁজে পাবে সে যেন তার আকাঙ্ক্ষিত বস্তুটি অর্জন করার সাহস পায়।’

বাংলাদেশ সময়: ১১৫৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০১, ২০১৫

Nagad
ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহর জন্ম
এন্টিবডি কিট থেকে পাটকল ll মুহম্মদ জাফর ইকবাল
যাত্রাবাড়ীতে ১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক
ব্রহ্মপুত্র-যমুনা-সুরমা-কুশিয়ারার পানি দ্রুত বাড়ার শঙ্কা
ফেসবুকে বন্ধুত্বে প্রতারণা: ১৬ নাইজেরিয়ান কারাগারে


সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে আমির হোসেন আমুর শোক
সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে তাপস-আতিকের শোক
সাহারার মৃত্যুতে বিরোধীদলীয় নেতা-জাপা চেয়ারম্যানের শোক
করোনায় রিজেন্ট হাসপাতাল মালিকের বাবার মৃত্যু
সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে ওবায়দুল কাদেরের শোক