php glass

সান্ডারল্যান্ডে কোকেন ব্যবসায়ী পুলিশ ডিটেক্টিভ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

একজন সিনিয়র সান্ডারল্যান্ড পুলিশ ডিটেক্টিভ ক্লাস ওয়ান ড্রাগস কেনা-বেচার সঙ্গে জড়িত-কোর্ট সূত্রের এই সংবাদ এখন নর্থইস্টের সবকটা সংবাদ ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার গরম খবরে পরিণত হয়েছে।

একজন সিনিয়র সান্ডারল্যান্ড পুলিশ ডিটেক্টিভ ক্লাস ওয়ান ড্রাগস কেনা-বেচার সঙ্গে জড়িত-কোর্ট সূত্রের এই সংবাদ এখন নর্থইস্টের সবকটা সংবাদ ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার গরম খবরে পরিণত হয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, এই পুলিশ ডিটেক্টিভ তার সহযোগী এবং সহধর্মীনিকে পুলিশি সন্দেহের বাইরে রাখার জন্য পুলিশের রেকর্ড কম্পিউটার সিস্টেমে কারিগরি ফলানোর চেষ্টা করেছেন।

ডিটেক্টিভ সার্জেন্ট পল থম্পসন কোকেন ক্রয়ে নিজের চেইন বা চ্যানেলকে ব্যাবহার করে তার হাফ-ব্রাদার এর কাছ থেকে ড্রাগস ক্রয় করে, নিজে এবং স্ত্রীর দ্বারা বিক্রয় করতেন। আইনশৃংখলা বাহিনীর একজন সদস্য হয়েও এই অবৈধ আয়ে তিনি হাই-ফাই জীবন যাপন করছিলেন।

নিউক্যাসল ক্রাউন কোর্ট অভিযোগ আমলে নিয়ে হিয়ারিং শুনেছেন ৪৩ বছর বয়স্ক এই অফিসার, তার ভাই ৫১ বছর বয়স্ক ব্রায়ান থম্পসন এবং তাদের ড্রাগ-ডিলিংস এজেন্ট অ্যাসোসিয়েটস স্টিফেন উডস (৪৮) এবং ডেভিড উড(৫২)। শেষোক্ত দু’জর পলের জ্ঞাতী ভাই বলে জানা গেছে।

প্রসিকিউটর টবি হেডোয়ার্থ কিউসি কোর্টে বলেছেন, ‘এই কেইসে আমরা অসাধারন এক পরিস্থিতির মুখোমুখী হয়েছি, যেখানে দেখতে পাচ্ছি একজন সাকসেস্ফুল বিজনেস এক্সিকিউটিভ ক্লাস ওয়ান এ ড্রাগস এর সরবরাহকারী এবং যোগানদাতা তারই একজন নামকরা একজন দক্ষ ডিটেক্টিভ পুলিশ অফিসারের মাধ্যমে এবং বিক্রয়ের ব্যাবস্থা করেতেছেন ভাই এবং বিজনেস অ্যাসোসিয়েটস এর কাছে, যা আবার অভিযুক্ত পুলিশ অফিসারের নিরাপত্ত্বাবলয়ে এবং তা ঢেকে রাখতে বা সন্দেহমুক্ত রাখার জন্য পুলিশ কম্পিউটারের নেটওয়ার্ক সিস্টেমকে ব্যাবহার করে রেকর্ড চেকের আওতামুক্ত রাখতে অপব্যাবহার করেছেন।’

প্রসিকিউটর কোর্টকে আরো জানান যে, উড ভ্রার্তৃদ্বয় ডিটেক্টিভের কাছে ড্রাগস সাপ্লাই করেন তার স্ত্রীর মাধ্যমে, তিনি আবার তা বিক্রীর জন্য তার ভাইয়ের কাছে দিতেন।

পুলিশের আন্ডার কভার টিম গোপণে ডিটেক্টিভ পুলিশসহ চার অভিযুক্তের বিরুদ্দ্বে সব তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ করে সান্ডারল্যান্ড গ্রিলব্রিজ অফিসে অফিস করাকালীন সময়ে পলকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

ডিটেক্টিভ থম্পসন পুলিশ কম্পিউটার এমনভাবে চেক করতেন যাতে দেখাতেন তার ভাই এবং স্ত্রী ও তার বিজনেস অ্যাসোসিয়েটসদের রেকর্ড তিনি ডাবল করে চেক করেছেন, যার ফলে বারবার পুলিশ চেকের বাইরে এই চার ড্রাগস কারবারী রয়ে যায়- পরবর্তীতে এই ঘটনা পুলিশ ইনভেস্টিগেশনে বেরিয়ে আসে।

জুরি আরো অবগত হন যে, ডিটেক্টিভ পল ড্রাগস ব্যাবসার কারণেই প্রতি সপ্তাহে সান্ডারল্যান্ড থেকে পুলিশ সদর দপ্তর পন্টিল্যান্ডে যাতায়াত করতেন, তিনি ডিউটির আড়ালে মূলত ড্রাগস কেনার জন্য যেতেন।

প্রসিকিউটর কোর্টকে অবগত করেন যে, এটা একটা প্রসিকিউসন কেইস, যা কেবলমাত্র তার (ডিটেক্টিভ সার্জেন্ট পল)নিজের উদ্যোগে ড্রাগস কেনা-বেচাই শুধু নয়, এতে তার স্ত্রীও এই অবৈধ ব্যবসায় জড়িত, সহযোগী এবং ব্যবসায়িক বেনিফিসিয়ারি হিসেবে।

প্রসিকিউটররা জুরিদেরকে আরও জানান, কিভাবে মিসেস থম্পসন এর ফোনকল আবিষ্কারের ফলেই জানতে পারেন ওই দম্পতি তাদের বন্ধুদের মাধ্যমে এই কাজ করে আসছেন। কোর্ট আরো অবগত হন, থম্পসন তার মোবাইল ফোন থেকে একটি টেকস্ট ম্যাসেজ পাঠান তার ওয়াইফ মিসেস থম্পসনকে এই বলে যে, তুমি কি এখনো বি এর সঙ্গে উইকএন্ডে গার্লস এর জন্য আমার কথা বলা প্রয়োজন মনে করো?

প্রসিকিউসন বলেন, এই বি হলো তার ড্রাগ-ডিলিং ভাই ব্রায়ান।

ব্রায়ান থম্পসন (থর্নিফোর্ড প্লেইস পন্টিল্যান্ড), স্টিফেন উড (থর্নহীল রোড, পন্টিল্যান্ড), ডেভিড উড(সিল্ভার লনেন, ফেনহাম) সহ সকলেই চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ক্লাস ওয়ান এ ড্রাগস সরবরাহ ও বিক্রয় করার অভিযোগে অভিযুক্ত। তবে তাদের সবাই অভিযোগ অস্বীকার করেন।

জুরিরা আরেকটি সেপারেট ট্রায়ালের মাধ্যমে ডিটেক্টিভ সার্জেন্ট পুলিশ পল থম্পসনের বিরুদ্দ্বে ২০০৬ সালে পুলিশ ইন্টারনাল মিসকন্ডাক্ট এলিগেশন শুনেন, যেখানে ডিটেক্টিভের শ্বশুর মোটরকার অ্যাক্সিডেন্টের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। যদিও তখনকার লাইন ম্যনেজারের কাছ থেকে ডিটেক্টিভ পুলিশ কম্পিউটার চেকের পারমিশন নিয়েছিলেন বলে অভি্যোগ থেকে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছিলো।

ওই সময় তিনি পুলিশ কম্পিউটারের অ্যাক্সেস নেটওয়ার্ক এ ঢুকে তার শ্বশুরের সঙ্গে মোটরকার অ্যাক্সিডেন্ট এ অপর ড্রাইভার সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়েছিলেন, যা তিনি ওই তথ্য প্রিন্ট করে ডারহাম পুলিশকে সরবরাহ করেছিলেন ইনভেস্টিগেশনের জন্য, যদিও ওই সময় তিনি একজন পিসি হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

তার ৭০ বছর বয়স্ক শ্বশুরের সঙ্গে এক্সিডেন্ট এর ব্যাপারে অপর পক্ষের ব্যাপারে তিনি কেবল তথ্য নিয়েছিলেন, যে এক্সিডেন্টে তার শ্বশুর একজন শিশুসহ আটকা পড়েছিলেন অপরদিক থেকে আসা আরেকজন মোটরারোহী দ্বারা। ঘটনার যখন রিপোর্ট করা হয় তখন থম্পসন ডিউটিতে ছিলেন না।

উল্লেখ্য পুলিশ যখন ডিটেক্টিভ পল থম্পসন এর বাড়ি তল্লাশি করে তখন তাদের বেডসাইড কেবিনেটের মধ্যে কোকেইন, ওয়ারড্রোবে এবং রিসিলেবল পলিথিন ব্যাগের ভেতর কোকেইন উদ্ধার করে, জব্দকৃত মালামালের সঙ্গে তাদের ওয়ালেট এবং ক্রেডিট কার্ডসহ দুই সেট ডিজিটাল স্কেল (নিক্তি) রয়েছে। পুলিশ এরই পরিপ্রেক্ষিতে ডিটেক্টিভ পুলিশ সার্জেন্ট পল থম্পসন, মিসেস সুসান থম্পসনসহ চক্রটির বিরুদ্ধে ছয়শত হাজার পাউন্ডের অধিক কোকেইন প্লটের এলিগেশন ইনভেস্টিগেশন করে অভিযোগ দায়ের করেন।
এই ট্রায়াল নিউক্যাসল ক্রাউন কোর্টে চলমান রয়েছে।

তথ্য সূত্রঃ নিউক্যাসল ক্রাউন কোর্ট রেজিস্ট্রার,
       ইভিনিং ক্রনিকল,নিউক্যাসল-১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১২
       সান্ডারল্যান্ড একো-১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১২

[email protected]


বাংলাদেশ সময়: ১৪১৬ ঘণ্টা, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১২

কাউখালীতে মানহানি মামলায় ৪ শিক্ষকের কারাদণ্ড
শুক্রবার ১৫ প্রেক্ষাগৃহে আসছে ‘ইতি, তোমারই ঢাকা’
যমুনার পানিপ্রবাহ উপহার দেবে দূষণমুক্ত বুড়িগঙ্গা
ধানক্ষেতে পোকার আক্রমণ, কৃষকের মাথায় হাত
ব্যাটিংয়ে নেমেছে বাংলাদেশ


বাড়ি বাড়ি বই পৌঁছে দেওয়া সুনীল গাঙ্গুলীর গল্প
রোহিঙ্গা নিপীড়নে এবার সু কি’র বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনায় মামলা
ভারতের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাটিং নিল বাংলাদেশ
টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নিহত
আসছে শীত, বাড়ছে খেজুরগাছের পরিচর্যা