সাগর-রুনির খুনিদের গ্রেফতারের দাবিতে নিউইয়র্কে বিক্ষোভ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনির হত্যাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবিতে মঙ্গলবার নিউইয়র্ক প্রবাসী সাংবাদিকরা বাংলাদেশ কনস্যুলেটের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ এবং বিশেষ বিচার বিভাগীয় কমিশন গঠনের দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন। কনসাল জেনারেল সাব্বির আহমেদ চৌধুরী স্মারকলিপিটি গ্রহণ করেন।

সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনির হত্যাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবিতে মঙ্গলবার নিউইয়র্ক প্রবাসী সাংবাদিকরা বাংলাদেশ কনস্যুলেটের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ এবং বিশেষ বিচার বিভাগীয় কমিশন গঠনের দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন। কনসাল জেনারেল সাব্বির আহমেদ চৌধুরী স্মারকলিপিটি গ্রহণ করেন।

ঢাকার সাংবাদিকদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে নিউইয়র্ক-বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব এ সমাবেশের আয়োজন করে।

প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাহাফুজুর রহমানের সভাপতিত্বে¡ সভা পরিচালনা করে সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও বিএফইউজে’র মহাসচিব শওকত মাহমুদ, নিইউয়র্ক-বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি মাহমুদ খান টাসের, ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক শিহাব উদ্দিন কিসলু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীবন কুমার, নির্বাহী পরিষদ সদস্য সালাউদ্দিন আহমেদ, মমিন মজুমদার, আলমগীর সরকার, শেখ সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।

সমাবেশে সংহতি জানিয়ে কমিউনিটির পক্ষে বক্তৃতা করেন জাকির চৌধুরী, ফকরুল ইসলাম দেলোয়ার, মো. খসরুজ জামান ও কানেকটিকাট রাজ্যের বাংলাদেশি সোসাইটির প্রতিনিধি নূরুল আলম প্রমুখ।

সমাবেশে টেলিফোনে একাত্মতা প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ফজলে রশিদ ও বিএফইউজে’র সাবেক সহ-সভাপতি মনজুর আহমেদ।

নিউইয়র্ক-বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া স্মারকলিপিতে সাংবাদিক নিরাপত্তা আইন প্রণয়নের দাবি জানিয়ে বলা হয়, ‘সাগর-রুনির হত্যাকাণ্ডের তদন্তে রহস্যজনক স্থবিরতা আমাদের বিস্মিত করেছে। বর্বরোচিত এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে  গ্রেফতার না করায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও বিচার বিভাগের প্রতি বাংলাদেশের জনগণের সঙ্গে সাংবাদিকরাও আস্থা রাখতে পারছেন না।’

দেশে সাংবাদিকরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় পেশাগত দায়িত্ব পালন করছেন উল্লেখ করে স্মারকলিপিতে আরো বলা হয়, নিউইয়র্কের সাংবাদিকরাও দেশের সাংবাদিকদের নিরাপত্তা নিয়ে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন এবং উৎকন্ঠিত।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শওকত মাহমুদ সাগর-রুনির হত্যাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে বলেন, অন্যথায় অভিযোগের অঙ্গুলি নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর দিকেই যাবে।

তিনি বলেন, সরকার এর বিচার না করলে একদিন দেশের মানুষ  কেবল সাগর-রুনি হত্যাকারীদের নয়, যারা এ বিচার করছে না এবং হত্যাকারীদের প্রশ্রয় দিচ্ছে তাদেরও বিচার করবে।

শিহাব উদ্দিন কিসলু সাংবাদিকদের পেশাগত দায়িত্ব পালনে নিরাপত্তায় সংসদে আইন প্রণয়নের দাবি জানিয়ে বলেন, সাংবাদিকদের ওপর হামলা গণতন্ত্রের ওপরই হামলা। কারণ, রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ সংবাদমাধ্যম গণতন্ত্রেরই অন্যতম ভিত্তি। তাই সাংবাদিক খুনের ঘটনা গণতন্ত্রকে খুন করার শামিল।

তিনি বলেন, ছাত্রজীবন থেকে রাজনীতি করে প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন শেখ হাসিনা। সাংবাদিকরা কেন রাজপথে নামেন, সেটা প্রধানমন্ত্রী বুঝবেন এবং সাংবাদিকদের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন, এটাই সকলের কাম্য।

মাহামুদ খান টাসের সাগর-রুনি হত্যাকারীদের সঙ্গে সরকারের সম্পৃক্ততার অভিযোগ এনে বলেন, সে কারণেই সরকার খুনিদের গ্রেফতার করছেন না।

বাংলাদেশ সময় : ১৭৪৫ ঘন্টা, মে ১৬, ২০১২
শিহাব উদ্দিন কিসলু/এইচএমএম
সম্পাদনা : অশোকেশ রায়, অ্যাসিসট্যান্ট আউটপুট এডিটর

Nagad
আরিচা পয়েন্টে যমুনার পানি বিপৎসীমার ৫৭ সে.মি. উপরে
লোহাগাড়ায় মাইক্রোবাসের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
এসোসিয়েটেড অক্সিজেনের আইপিওর অনুমোদন
ওজনে কারচুপি করে ম্যাজিস্ট্রেটের হাতে ধরা
করোনায় সিলেটে মৃত্যু বেড়ে ১১০


সিলেটে ফ্লাইট বাড়ালো ইউএস-বাংলা
১৬ জুলাই গণতন্ত্র অবরুদ্ধ দিবস: পরিবহন শ্রমিক লীগ
দেশের মুদ্রণ ও প্রকাশনা শিল্পে ক্ষতি ৪ হাজার কোটি টাকা
শেয়ারে কারসাজি: তিন প্রতিষ্ঠান ও দুই ব্যক্তিকে জরিমানা
রাজশাহীতে চোখ রাঙাচ্ছে কীর্তিনাশা পদ্মা