ঢাকা, রবিবার, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৯ আগস্ট ২০২০, ১৮ জিলহজ ১৪৪১

প্রবাসে বাংলাদেশ

ওল্ডহ্যামে স্পাইস সিটির বিজনেস নেটওয়ার্কিং ইভেন্ট

গাজী মহিবুর রহমান, ম্যানচেস্টার থেকে | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৫১ ঘণ্টা, মে ১২, ২০১২
ওল্ডহ্যামে স্পাইস সিটির বিজনেস নেটওয়ার্কিং ইভেন্ট

বিলেতে বাঙ্গালি, পাকিস্তানি ও ভারতীয়দের পরিচালিত কারিশিল্প এতোদিন শুধু রেস্তোরাঁর চার দেয়ালেই সীমাবদ্ধ ছিল। এই শিল্প নিয়ে কোনো প্রচার প্রচারণা কিংবা নিজেদের মধ্যে ব্যবসায়িক চিন্তাভাবনা আদান-প্রদানের তেমন কোনো প্লাটফর্ম ছিল না।



সময়ের দাবিকে বাস্তবে রূপ দিতেই তিন বছর আগে ব্রিটেনের নর্থ-ওয়েস্টের একদল তরুণের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এই শিল্পের ওপর কারি জার্নাল ‘স্পাইস সিটি’ প্রকাশের সাহসী উদ্যোগ নেওয়া হয়। যা নর্থ-ওয়েস্ট তথা পুরো ব্রিটেনের ব্যবসায়ীদের মধ্যে একটি আন্তযোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে পরিচিতি লাভ করে। স্পাইস সিটির জন্য বিশেষ উদ্যোগ নেন এম আহমেদ জুনায়েদ।

শুরু থেকেই এই উদ্যোগ বিভিন্ন মহলে প্রশংসিত হতে থাকে। শুধু জার্নাল প্রকাশের মধ্যে নিজেদের সীমাবদ্ধ না রেখে বিভিন্ন সময় ব্যবসায়ীদের মধ্যে নেটওয়ার্কিং ইভেন্ট আয়োজন, প্রদর্শনীর মতো বড় উদ্যোগও ইতিমধ্যে তারা করেছেন।  

এরই ধারাবাহিকতায় গত ১ মে ওল্ডহ্যামের গ্রান্ড ভেন্যুতে হয়ে গেল দ্বিতীয় বিজনেস নেটওর্য়াকিং ইভেন্ট। রেস্তোরাঁ ও কারি ব্যবসার সঙ্গে প্রত্যক্ষ কিংবা পরোক্ষভাবে জড়িত বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান যেমন ক্যাশ অ্যান্ড কারি, লন্ড্রি, বিয়ার কোম্পানি, বিভিন্ন ধরনের ডিংকস ব্যবসায়ী, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠানের কর্ণধাররা নিজ নিজ স্টলসহ এতে অংশ নেন।

নর্থওয়েস্ট ছাড়াও পাশের শহরগুলির ব্যবসায়ীদের আগ্রহের প্রেক্ষিতে বার্মিংহাম এবং ব্র্যাডফোর্ডেও এরকম নেটওয়ার্কিং ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

স্পাইস কারি শুধু বাঙালিই নয়, এশিয়ান কমিউনিটি থেকে প্রকাশিত এটাই কোনো মাসিক নিয়মিত জার্নাল। যা কারি কিংবা স্পাইসকে জনপ্রিয় করে তুলতে ভিনদেশি মানুষের কাছে বার্তা পৌঁছাতে চেষ্টা চালাচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট প্রায় পাঁচ শতাধিক মানুষের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত এই নেটওয়ার্কিং ইভেন্টটির লক্ষ্য নিজেদের পণ্যের পরিচিতি, প্রসার ও প্রচার, ব্যবসায়ীদের মাঝে বা বন্ধন তৈরি করা।

স্পাইস সিটি জার্নালের প্রকাশক এম আহমেদ জুনায়েদ এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘ব্যবসায়ী ও কমিউনিটির সবার সহযোগিতা পেলে এই আয়োজন আমরা আরও বড় পরিসরে ও মূলধারার প্লাটফরম হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারবো। ’

উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত এই আয়োজনের পুরোটা জুড়েই ছিল বক্তৃতা, বিভিন্ন ডকুমেন্টারি প্রদর্শন ও তরুণীদের মনোমুগ্ধকর নৃত্য। ছিল খাবারের ব্যাবস্থা।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৬ ঘণ্টা, মে ১২, ২০১২
সম্পাদনা: রানা রায়হান, অ্যাসিসট্যান্ট আউটপুট এডিটর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa