মালদ্বীপে বাংলা নববর্ষ উদযাপন

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

প্রতিবছরের মতো এবারও মালদ্বীপের রাজধানী মালে বাংলাদেশ হাইকমিশন আয়োজিত আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনায় উদযাপিত হয়েছে বাংলা নববর্ষ ১৪১৯।

মালদ্বীপ: প্রতিবছরের মতো এবারও মালদ্বীপের রাজধানী মালে বাংলাদেশ হাইকমিশন আয়োজিত আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনায় উদযাপিত হয়েছে বাংলা নববর্ষ ১৪১৯।

নতুন বছরকে বরণ করে নিতে দেশটির রাজধানী এবং শহরের বাহিরে থাকা প্রবাসী বাংলাদেশিরা কর্মবিরতীপর সন্ধ্যা থেকেই অনুষ্ঠানে আসেন।

মো. মাসুম সিরাজ এবং নারগিস লিটনের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মালদ্বীপে অবস্থিত বাংলাদেশি হাইকমিশনার রিয়ার অ্যাডমিরাল এ এস এম এ আওয়াল।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হাইকমিশনারের প্রধান চ্যান্সারি অহিদজ্জামান লিটন, শিক্ষাবিদ আহম্মদ মোত্তাকী, মেডাম কেয়া আওয়াল, ডা. আজিজ, মাস্টার মো. সফিকুর রহমান।

প্রধান অতিথি প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রবাসে দলমত নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নে নিজেদেরকে নিবেদিত করার আহ্বান জানান।

সারাদিন কঠিন পরিশ্রম করে পয়েলা বৈশাখের এ অনুষ্ঠানে আসার জন্য প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে সবাইকে তিনি নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান।

তিনি প্রবাসীদেরকে দেশের ভাবমূর্তি সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করারও আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন জহিরুল ইসলাম, কাউছার আহম্মদ, শরিফ, আলিম দূরানী, মোহাম্মদ হোসাইন, মো. পাবেল, মো. রবিউল আলাম, মো. কামরুজাম্মান, মো. ইয়াহিয়া প্রমুখ।

আলোচনা শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৫২১ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৫, ২০১২

সম্পাদনা: ওবায়দুলো্রাহ সনি, নিউজরুম এডিটর

Nagad
রাজশাহীতে চোখ রাঙাচ্ছে কীর্তিনাশা পদ্মা
রাজধানীতে এক কিশোরের আত্মহত্যা
চলনবিলের যেকোনো দুর্যোগে জনগণের পাশে আছে সরকার: পলক
রডের পরিবর্তে বাঁশ: নারী ইউপি সদস্য বরখাস্ত
কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কাছে সিবিআই তদন্তের দাবি রিয়ার


‘সবার জন্য অনার্স-মাস্টার্স আর পিএইচডি ডিগ্রির প্রয়োজন নেই’
পাবনায় সওজের জায়গা দখল করে বহুতল ভবন-মার্কেট নির্মাণ
স্টার গ্রাহকদের স্বাস্থ্যসেবার পরিধি বাড়ালো গ্রামীণফোন
ইংল্যান্ডে করোনামুক্ত পাকিস্তানি স্পিনার, ফিরছেন স্কোয়াডে
লঞ্চ দুর্ঘটনা: তদন্ত কমিটির রিপোর্টের ভিত্তিতে পদক্ষেপ