বুধবার থেকে বাড়তি দামে বিদ্যুৎ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী বুধবার থেকে বাড়তি দামে বিদ্যুৎ বিক্রি হচ্ছে। বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) চেয়ারম্যান সৈয়দ ইউসুফ হোসেন আগেই এ ঘোষণা দিয়ে ছিলেন।

ঢাকা: পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী বুধবার থেকে বাড়তি দামে বিদ্যুৎ বিক্রি হচ্ছে। বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) চেয়ারম্যান সৈয়দ ইউসুফ হোসেন আগেই এ ঘোষণা দিয়ে ছিলেন।

বুধবার থেকে পাইকারিতে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম হচ্ছে ৩ টাকা ৭৪ পয়সা। আগে এর দাম ছিল ৩ টাকা ২৭ পয়সা।

অন্যদিকে খুচরা পর্যায়ে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম ৭ দশমিক ০৯ শতাংশ বেড়ে তা ৫ টাকা ০২ পয়সা হচ্ছে। যা আগে ছিল ৪ টাকা ৭১ পয়সা।

গত বছরের ১ নভেম্বর পিডিবি বিদ্যুতের দাম বাড়ার এ প্রস্তাবনা বিইআরসিতে পাঠায়। ওই প্রস্তাবনায় পিডিবি জানায়, গ্যাসের অপ্রতুল সরবরাহের কারণে ব্যয়বহুল জ্বালানি দ্বারা বিদ্যুৎ উৎপাদনের হার বাড়ছে। তাই বিদ্যুতের গড় উৎপাদন ব্যয় বাড়ায় আগামী ৫ বছরে সরকারকে ২০ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে হবে।

বিদ্যুতের দাম বাড়ানো না হলে এ বিশাল ভর্তুকি সরকারের একার পে দেওয়া সম্ভব নয়। এ জন্য পিপিবি ৬ মাস পর পর ১২ শতাংশ হারে দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করে। এ হিসেবে প্রতি বছর পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির হার দাঁড়াবে ২৫ দশমিক ৩০ শতাংশ।

এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৪ নভেম্বর বিদ্যুতের পাইকারি দাম এবং ২২ ডিসেম্বর গ্রাহক পর্যায়ে পৃথকভাবে দুই দফায় বাড়ানোর ঘোষণা দেয় জ্বালানি খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিইআরসি। প্রথম দফায় যা ১ ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হয়। দ্বিতীয় দফায় এ দাম বুধবার থেকে কার্যকর হচ্ছে।

এর ফলে পাইকারি গ্রাহকদের (ডিপিডিসি, ডেস্কো, আরইবি, ওজোপাডিকো) বেশি দামে বিদ্যুৎ কিনতে হবে। সেই সঙ্গে খুচরা পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছে।

গত ১ ডিসেম্বর থেকে প্রথম দফায় বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয় ১৬ দশমিক ৭৯ ভাগ। ১ ফেব্রুয়ারি থেকে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছে ১৪ দশমিক ৩৭ ভাগ।  

প্রথম দফায় প্রতি ইউনিট বিদ্যতের দাম ২ টাকা ৮০ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৩ টাকা ২৭ পয়সা করা হয়।

অন্যদিকে দ্বিতীয় দফায় প্রতি ইউনিট বিদ্যতের দাম ৩ টাকা ২৭ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৩ টাকা ৭৪ পয়সা করা হয়।

বিইআরসির সদস্য সেলিম মাহমুদ বাংলানিউজকে বলেন, প্রথম দফায় দাম গড়ে ১৬.৭৯ এবং দ্বিতীয় দফায় ১৪.৩৭ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। তবে গড় মূল্য বৃদ্ধি ৩৩.৫৭ শতাংশ। কারণ প্রথম দফা ১৬.৭৯ করার পরে দ্বিতীয় দফায় বর্ধিত দামের উপর ১৪.৩৭ শতাংশ ধরে মোট ৩৩.৫৭ শতাংশ বাড়বে।

১ ডিসেম্বর থেকে ডিপিডিসি ১৩২ কেভির জন্য প্রতি কিলোওয়াট ঘণ্টা বিদ্যুৎ ৩.৫৬৫০ এবং ৩৩ কেভির জন্য ৩.৬০৫০ টাকা হারে বিদ্যুৎ ক্রয় করে। ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ৪.২০৫০ এবং ৪.২৪৫০ টাকা হারে পিডিবির কাছে বিদ্যুৎ কিনবে।

আরইবি ১ ডিসেম্বর থেকে ১৩২ কেভির জন্য প্রতি কিলোওয়াট ঘণ্টা বিদ্যুৎ ৩.৫৬৫০ এবং ৩৩ কেভির জন্য ২.৯১৫০ টাকা করে কিনে। ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ৪.২০৫০ এবং ৩.১৭৫০ টাকা হারে বিদ্যুৎ কিনবে।

ডেসকো ১ ডিসেম্বর থেকে ১৩২ কেভির জন্য প্রতি কিলোওয়াট ঘণ্টা বিদ্যুৎ ৩.৫৬৫০ এবং ৩৩ কেভির জন্য ৩.৬০৫০ টাকা হারে কিনে। এবং ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ৪.২০৫০ এবং ৪.২৪৫০ টাকা হারে বিদ্যুৎ কিনবে।

ওজোপাডিকো ১ ডিসেম্বর থেকে ১৩২ কেভির জন্য প্রতি কিলোওয়াট ঘণ্টা বিদ্যুৎ ৩.৫৬৫০ এবং ৩৩ কেভির জন্য ৩.১৫৫০ টাকায় ক্রয় করে। ১ ফেব্রুয়ারি  থেকে ৪.২০৫০ এবং ৩.৪৭৫০ টাকা হারে বিদ্যুৎ কিনবে।

এটি চলতি বছরের প্রথম দফায় বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি।

বাংলাদেশ সময় : ১০৫৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০২, ২০১২

করোনা: বেলারুশ প্রিমিয়ার লিগ বন্ধ করবে না কর্তৃপক্ষ
সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় সৈয়দপুরে ২ নৈশকোচ জব্দ 
শেবাচিমে করোনা সন্দেহে ২৪ ঘণ্টায় ৮ রোগী ভর্তি
কমলনগরে ৬ জেলের জরিমানা
যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্যে রেকর্ড মৃত্যু, কমেছে স্পেনে


নোয়াখালীতে সন্ত্রাসী হামলায় একই পরিবারের ৪জন গুলিবিদ্ধ
করোনায় গুজব: ২০ দিনে র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার ৭
করোনা মানুষের সঙ্গে চলে: ডা. মুজিবুর রহমান
হিজড়া সম্প্রদায়কে অর্থ সহায়তা দিল গণসংহতি আন্দোলন
নাটোরে সেনাবাহিনীর চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম