ঢাকা, রবিবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৬ রজব ১৪৪২

জাতীয়

ইন্দুরকানীতে চলাচলের রাস্তা কেটে ফেলায় তিন পরিবার অবরুদ্ধ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮১৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২১
ইন্দুরকানীতে চলাচলের রাস্তা কেটে ফেলায় তিন পরিবার অবরুদ্ধ কেটে ফেলা রাস্তা। ছবি: বাংলানিউজ

পিরোজপুর: ইন্দুরকানীতে চলাচলের রাস্তা কেটে ফেলায় তিন পরিবার অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।  

উপজেলার দক্ষিণ ভবানীপুর গ্রামের ইউসুফ আলী শেখ, সাইফুল ইসলাম ও নুরুল ইসলামের পরিবারের চলাচলের একমাত্র রাস্তাটি কেটে ফেলেছে স্থানীয় আনসার সদস্য নুরুজ্জামান শেখের পরিবার।

জানা গেছে, এক বছরের বেশি সময় ধরে এ রাস্তাটি সবাই ব্যবহার করে আসছে। ফরাজী বাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন রাস্তাটি ২০১৩ সালে এডিবি কর্তৃক এক লাখ টাকা বরাদ্দের মাধ্যমে ইট সলিং করা হয়। সম্প্রতি আরো ৪০ হাজার টাকার বরাদ্দ দেওয়া হয় রাস্তাটি সংস্কার করার জন্য।  

এদিকে ওই জমি নিজেদের দাবি করে রাস্তার অধিকাংশ ইট তুলে ফেলেছেন আনসার সদস্য নুরুজ্জামান শেখ ও তার স্ত্রী খাদিজা বেগম। এমনকি রাস্তাটির মাটি খুঁড়ে চলাচলের অনুপযোগী করে ফেলেছেন তারা।

ভুক্তভোগী পরিবারটি জানান, এ রাস্তাটি দিয়ে পার্শ্ববর্তী মোড়েলগঞ্জ
উপজেলার হোগলাবুনিয়া গ্রামের শিক্ষার্থীসহ কয়েক শতাধিক লোক ইন্দুরকানী উপজেলায় যাতায়াত করেন। রাস্তাটি কেটে ইট তুলে ফেলায় নিয়মিত যাতায়াতকারীরা পড়েছেন বিপাকে।  

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী ইউসুফ আলী শেখ বলেন, আমাদের চলাচলের রাস্তার সরকারি ইট তুলে রাস্তাটি কেটে ফেলেছে নুরুজ্জামান ও তার স্ত্রী খাদিজা। ফলে আমরা তিনটি পরিবার অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছি। আমাদের চলাচলের বিকল্প কোনো পথ নেই।  

অভিযুক্ত নুরুজ্জামানের স্ত্রী খাদিজা বেগম জানান, আমাদের জায়গা থেকে কারো চলাচলের পথ দেওয়া হবে না। আমরা আমাদের সুবিধামত স্থান থেকে চলাচলের রাস্তা করে দিতে চাই। কিন্তু অভিযোগকারীরা সেটা মানতে চায় না। তাই ইট তুলে রাস্তা কেটে ফেলেছি।

এ বিষয় ভুক্তোভোগীরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে ইউএনও ওই রাস্তায় উপস্থিত হয়ে ফেলে দেওয়া ইট তুলে পুনঃস্থাপন করেন। পরবর্তীতে চলাচলের পথ অবরুদ্ধ না করা হয় সেজন্য নির্দেশ দেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হোসাইন মুহাম্মাদ আল মুজাহিদ বলেন, গত ১৫/২০ দিন আগে এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছিলাম। ঘটনাস্থলে গিয়ে রাস্তার ফেলে দেওয়া ইট তুলে এনে পুনঃস্থাপনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।    

এছাড়া ব্যাপারটি সমাধানের জন্য স্থানীয় ইউপি সদস্যকে (নারী) বলা হয়েছে। আর ওই রাস্তার জায়গাটি কোনো সরকারি জায়গা না। রাস্তাটি ব্যক্তি মালিকাধীন জায়গায় বলে শুনেছি।

এরপরেও ইউএনওর নির্দেশ অমান্য করে রোববার (২৪ জানুয়ারি) রাস্তার ইট তুলে চলাচলের পথ অবরুদ্ধ করে আনসার সদস্য নুরুজ্জামান শেখ ও তার স্ত্রী খাদিজা বেগম। উপজেলার দক্ষিণ ভবানীপুর গ্রামের মো. হোসেন আলী শেখের ছেলে আনসার সদস্য নুরুজ্জামান বর্তমানে মাদারীপুর ২০ ব্যটালিয়ানে কর্মরত আছেন।

এ ব্যাপারে জানতে ওই আনসার সদস্যকে ফোন দিলে তিনি রাস্তা কাটার অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, আমাদের নিজস্ব ভাই-ব্রাদারের মধ্যে একটু সমস্যা ছিলো। তা মিটমাট হয়ে গেছে। আর ওই রাস্তাটি আমাদের পারিবারিক জায়গার মধ্যে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮১০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২১
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa