php glass

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের জন্য ঢাকা সাজাচ্ছে ডিসিসি

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

আসন্ন বিশ্বকাপ ক্রিকেট উপলক্ষ্যে ঢাকা মহানগরীকে পরিচ্ছন্ন রাখার উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা সিটি কর্পোরেশন (ডিসিসি)। এরই অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার রাতে শাহবাগ ও কলাবাগানে অবৈধ পুলিশ বক্স ও বিভিন্ন স্থাপনা উচ্ছেদে অভিযান চালানো হয়েছে।

ঢাকা: আসন্ন বিশ্বকাপ ক্রিকেট উপলক্ষ্যে ঢাকা মহানগরীকে পরিচ্ছন্ন রাখার উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা সিটি কর্পোরেশন (ডিসিসি)। এরই অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার রাতে শাহবাগ ও কলাবাগানে অবৈধ পুলিশ বক্স ও বিভিন্ন স্থাপনা উচ্ছেদে অভিযান চালানো হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, বিশ্বকাপকে সামনে রেখে ঢাকার সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের টার্গেট নিয়েছে ডিসিসি। এতে সরকারের কোনো অবৈধ স্থাপনাও বাদ যাবে না।

এ প্রসঙ্গে ডিসিসির এক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বাংলানিউজকে জানান, বিশ্বকাপ ক্রিকেট উপলক্ষে ডিসিসি বর্তমানে মিরপুর এলাকায় উচ্ছেদ চালালেও শীত একটু কমলে সমগ্র ঢাকাতেই অভিযান চলবে।

এর কারণ হিসেবে তিনি ফুটপাতের শীতবস্ত্র ব্যবসায়ীদের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘এদের এখন উচ্ছেদ করা হলে তা জনসাধারণের ভোগান্তির কারণ হতে পারে।’

সিটি কর্পোরেশনের অপর এক সূত্র জানায়, উচ্ছেদের তালিকায় পুলিশ বক্স, বিলবোর্ড, সাইনবোর্ড, অবৈধভাবে ফুটপাত দখলকারী স্থাপনাসহ নানা অবৈধ স্থাপনা রয়েছে।

এছাড়া ঢাকা নগরীর শোভা বাড়ানোর জন্য সড়ক দ্বীপ সাজানো, ডিভাইডারে গাছ লাগানো, নষ্ট সড়ক বাতিগুলো পাল্টানে সহ নান পদক্ষেপ গ্রহন করছে ডিসিসি। এ উপলক্ষে ঢাকার রস্তাকে সম্পূর্ণ ভিখারী ও হকারমুক্ত করা হবে বলেও জানা গেছে।

এছাড়া বিদ্যুৎ পোলে ঝোলানো হবে ফুলের টব ও কৃত্রিম লতাগুল্ম। লগানো হবে দেশের উল্লেখযোগ্য স্থানের ছবি ও ফেস্টুন।

এদিকে উচ্ছেদ অভিযান সম্পর্কে ডিসিসির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খলিল আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, ‘বিশ্বকাপ ক্রিকেট উপলক্ষ্যে ঢাকা শহরকে সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন নগরী হিসেবে বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরতে চায় ডিসিসি।’

তিনি বলেন, ‘এরই ধারাবাহিকতায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু করা হয়েছে।’

পুলিশ বক্স উচ্ছেদ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘ঢাকা নগরীতে রাস্তার মোড়ে মোড়ে স্থাপিত পুলিশ বক্সগুলো সম্পূর্ণ অবৈধ। এ সকল বক্স ও স্থাপনা তৈরিতে ডিসিসির কোনো অনুমোদন নেওয়া হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘যান চালনায় প্রতিবন্ধকতা তৈরি করায় বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি অনেক আগেই ডিসিসিকে এ সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের জন্য ডিসিসিকে অনুরোধ করেছে। কিন্তু পুলিশ এ বিষয়ে কখনোই সহায়তা করে না।’

খলিল আহমেদ বলেন, ‘কয়েকবার সমন্বয় বৈঠক ও আন্ত:মন্ত্রণালয় বৈঠকে এ সব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত হলেও পুলিশ তা কানে নেয়নি। অবশেষে পুলিশ মাত্র নয়টি বক্সকে অবৈধ ঘোষণা করে ডিসিসিকে উচ্ছেদের জন্য তালিকা দিয়েছে। এখন সেগুলোই উচ্ছেদ করা হচ্ছে।’

স্থানীয় সময়: ১৬৩০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২০১০

আবারো হবিগঞ্জ আ'লীগে সভাপতি জাহির, সম্পাদক আলমগীর
রাজশাহীতে বৃত্তি পেলো ২৩১ শিক্ষার্থী
চীনা নাগরিকের মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় তিন নিরাপত্তাকর্মী আটক
ধাওয়ান আউট, আগারওয়াল ইন
রোহিঙ্গা নির্যাতন: মিয়ানমার সেনাদের জবাবদিহি করতে হবে


গণহত্যার স্বীকৃতি নিতে সু চির প্রতি আহ্বান ইউনূসের
আখাউড়া থেকে ৯  রোহিঙ্গা  আটক
‘নাগরিকত্ব বিল জাতিগত নিধনের অপচেষ্টা, সংবিধানবিরোধী’
শেখ হাসিনার উন্নয়নে মঙ্গা শব্দটি দেশ থেকে বিদায় নিয়েছে
১০ দফা দাবিতে অটোরিকশাচালকদের মানববন্ধন-স্মারকলিপি