php glass

কলকাতায় জমে উঠেছে ঈদের বাজার

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

কলকাতার ঈদ বাজার, ছবি: বাংলানিউজ

walton

কলকাতা: সদ্য শেষ হয়েছে ভারতের লোকসভা নির্বাচন। ফের দ্বিতীয়বারের জন্য দিল্লির মদনদে বসলেন নরেন্দ্র মোদি। ফলে পশ্চিমবাংলার মানুষের মধ্যে বর্তমানে আলোচনার অন্যতম বিষয় মোদি ও তার কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভা।

তবে এত কিছুর মধ্যেও বিন্দুমাত্র ভাটা পড়েনি কলকাতার ঈদের কেনাকাটায়। পাশাপাশি এবছরও ভাটা পড়েনি বাংলাদেশিদের কেনাকাটায়। নেতারা যাবে আসবেন। তাদের রাজনৈতিক মেঘে কি চাপা পড়তে পারে খুশির ঈদ! মোটেও না। তাই শেষের দিনগুলোয় জমে উঠেছে কলকাতার নিউমার্কেটে ঈদের বাজার।

ঈদ সময় যতো ঘনিয়ে আসছে বাংলাদেশি ও স্থানীয়দের ভিড় বাড়ছে কলকাতার নিউমার্কেটে। হাতে বাড়তি অর্থ বলতে বোনাস। তাও এসে গেছে। তাই জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা। তবে এবারে রাজনৈতিক টানাপোড়নে প্রথম থেকেই ঈদের ফ্যাশন খুব একটা নজর কাড়েনি।

তবে জরি বা সুতোর কাজের সঙ্গে পুঁতি বা পাথর বসানো নকশী কাটা গর্জাস থ্রি পিস, শিফন ও জর্জেট শাড়ি আর প্রসাধণীতেই মজেছেন নারী আর পুরুষরা মজেছেন ব্রান্ডের পাঞ্জাবিতে। পাশাপাশি জিনস এবং ব্রান্ডের টি-শার্টেরও চাহিদাও আছে। এছাড়া দম্পতিরা মেতেছেন ঘর সাজানোর কেনাকাটায়। 

এতো কিছুর মধ্যে একমাত্র জুতায় কিছু ফ্যাশন দেখা গেলো। ঈদ উপলক্ষে নানা জুতার সম্ভার এনেছে কলকাতার নামি জুতার দোকান। এছাড়া নাখোদা মসজিদের সামনে নামাজি টুপি, লুঙ্গি ও আঁতর কেনার ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

দিনটি ঈদের আগের শেষ শুক্রবার (৩১ মে) গভীর রাত পর্যন্ত খোলা রয়েছে নিউমার্কেট চত্বর। প্রতিটি দোকানে ক্রেতার ভিড়। রকমারি পোশাক, ঘর সাজানোর জিনিস, ব্রান্ডের কসমেটিকস থেকে শুরু করে ফল, রান্নার সামগ্রী, সব দোকানেই ক্রেতাদের ভিড়। বেশির ভাগ দোকানেই চলছে ঈদের সেল ডিসকাউন্ট। কেনার ফাঁকে ফাঁকে মসজিদে নামাজ আদায় ও ইফতার সেরে নিলেন রোজাদাররা।

আবহাওয়াবিদদের মতে কলকাতায় বৃষ্টি হানা দিতে পারে জুনের মাঝামাঝি। ফলে ভ্যাপসা গরম উপেক্ষা করছে ক্রেতাদের জন্য। বর্তমান ক্রেতাদের মধ্যে বেশি রয়েছে কলকাতাবাসী ও আশপাশ অঞ্চলের মানুষ। ধীরে ধীরে ভিড় কমছে বাংলাদেশিদের। প্রতিবারের মতো এবারও মাঝের দিনগুলোতে বাজার দখলে ছিলো বাংলাদেশীদের।

ওই এলাকার বিখ্যাত থ্রি পিসের দোকান। যেখানে কলকাতার থেকে বাংলাদেশিদের ভিড় থাকে সারা বছর। ভোটের বাজারে কেনা-বেচা কেমন এমন প্রশ্নের উত্তরে মালিক শ্রেণি বলেন, খুবই ভালো। ঈদের কেনাকাটার সঙ্গে রাজনীতির কোনো মিল নেই। গোটা মার্কেটের ভিড় দেখে আপনারা কি বুঝছেন! 

বেচা-কেনার মধ্যে কিছু অকুতো ভয় মনে হল কাজ করছে বিক্রেতাদের মধ্যে। সে যাই হোক নেতৃস্থানীয়রা ঠিক করবে ভবিষ্যৎ কি হবে। তবে এটা বাস্তব রমজানের শুরু থেকেই বাংলাদেশিরা প্রতি বছর শপিং করতে আসেন এখানে। এছাড়া সারা বছরই কলকাতার মারকুইস স্ট্রিট থেকে নিউমার্কেট জমিয়ে রাখেন বাংলাদেশিরা। এ বছরও রমজান মাসের শুরু থেকেই তার ব্যতিক্রম ঘটেনি।

বাংলাদেশ সময়: ০৩০৩ ঘণ্টা, জুন ১, ২০১৯
ওএইচ

ছাদ বাগান করে সামাজিক বনায়ন গড়ে তুলতে হবে
বর্ষা ফুলের কাব্য | সাদাত সবুজ
মাগুরায় গড়াই নদী থেকে যুবকের গলিত মরদেহ উদ্ধার
রোহিঙ্গাদের দুর্দশা দেখতে কক্সবাজারে আইসিসি প্রতিনিধিরা
বগুড়ায় ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেফতার


ঠাকুরগাঁওয়ে নছিমনচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
সহায়তা পেলেন সন্তান ফেলে যাওয়া মা
নারীদের ইহরামের নিয়ম-বিধান
মুমিনুল-শান্ত’র ব্যাটে ড্র করলো বিসিবি একাদশ
ময়মনসিংহে দুই উপজেলায় পুনাকের ত্রাণ বিতরণ