php glass

পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা ভোটেও ঝাঁপিয়ে পড়বেন মোদী-অমিত

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ

walton

কলকাতা: দলের কারণে পরপর তিনবার বিজেপির সভাপতির পদ সামলেছেন অমিত শাহ। আবার সর্বোচ্চ তিনবাবের বেশি কেউ এ পদে থাকতে পারে না। অপরদিকে, গুজরাটের গাধীনগর থেকে বিপুল ভোটে জয়ী তিনি। সব মিলে মন্ত্রিসভায় বড়সড় পদ পেতে চলেছেন তিনি। এর আগে ২০২১ সালে পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা ভোট উপলক্ষে আবার একটি আসন সংখ্যার টার্গেট ঘোষণা করলেন অমিত শাহ।

লোকসভা ভোটের বেশ কয়েক মাস আগে থেকেই আমিত শাহ বলে আসছিলেন, পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি ২৩টি আসন পাবে। অবশ্য ফল ঘোষণার পর দেখা গেছে, ৪২টি আসনের মধ্যে বিজেপি পেয়েছে ১৮টি আসন। তাই এবার ফের তিনি পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি নেতাদের টার্গেট দিলেন, আগামী বিধানসভা নির্বাচনে ১৮০ আসন পেতে হবে এ রাজ্যে। একইসঙ্গে তিনি বঙ্গ নেতাদের স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, এটা সম্ভব।

রাজ্যের ২৯৪টি বিধানসভা আসনের মধ্যে এই ১৮০ আসনের টার্গেট কীভাবে পূরণ হবে, সে জন্য দলের রণকৌশলের প্রাথমিক রূপরেখা তৈরি করতে ৩০ মে মন্ত্রিসভার শপথগ্রহণের পরেই পশ্চিমবঙ্গে যাবেন অমিত শাহ। মঙ্গলবার (২৮ মে) এমনটাই জানা গেছে রাজ্য বিজেপির শীর্ষ সূত্রে।

পশ্চিমবঙ্গের প্রতি লোকসভা আসন নির্ধারিত হয় সাতটি বিধানসভাকে নিয়ে। অর্থাৎ ৪২টি লোকসভা মানে ২৯৪টি বিধানসভা। যার মধ্যে ১৪৮টি আসন পেলেই রাজ্যে সরকার গঠন করা সম্ভব। সেখানে অমিত শাহর কথায় ১৮০টি আসন রাজ্য থেকে দখল করতে পারলে বিজেপিই রাজ্য সরকার গঠন করবে! এর আগে এবারের লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে ৪২টি আসনের মধ্যে ন্যূনতম ২৩টি কেন্দ্রে জয়লাভের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে দিয়েছিলেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ।

ফল বলছে, লক্ষ্যমাত্রার থেকে মাত্র পাঁচটি আসন কম রয়েছে বিজেপির ঝুলিতে। তবে এই পাঁচটি আসনে প্রাপ্ত ভোটের সংখ্যা মোটেও কম নয় তাদের। অর্থাৎ লোকসভা নির্বাচনের নিরিখে এই প্রাপ্ত আসন ও ভোট সংখ্যা যথেষ্ট আশাব্যঞ্জক মোদী-অমিত শাহের কাছে। তাই পশ্চিমবঙ্গের আগামী বিধানসভা নির্বাচনে অমিত শাহের বেঁধে দেওয়া লক্ষ্যমাত্রা পূরণে ঝাঁপিয়ে পড়তে চাইছে রাজ্য বিজেপি।
 
এ ব্যাপারে বিজেপির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক তথা পশ্চিমবঙ্গের অবজারভার কৈলাস বিজয়বর্গীয় স্পষ্টই বাংলানিউজকে বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা ভোটে ১৮০টি আসন জয়ের লক্ষ্যে আমাদের আলোচনা শুরু হয়েছে।

পাশাপাশি বিজেপির অন্যতম কেন্দ্রীয় সম্পাদক তথা পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত দলের সহনেতা সুরেশ পূজারি বাংলানিউজকে বলেন, লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় বিজেপি যে ফল পেয়েছে, তাতে স্পষ্ট বিধানসভা ভোটে আরও ভালো ফল করবে দল। এক্ষেত্রে ১৫০ প্লাস টার্গেটে পৌঁছতে বিজেপির কোনও অসুবিধা হবে না। তবে এর যাবতীয় প্রক্রিয়া শুরু হবে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নরেন্দ্র মোদীর দ্বিতীয়বার শপথগ্রহণের পর। তারপরেই নির্দিষ্ট করে বাংলা নিয়ে আলোচনায় বসবে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব।

১৯৫১ সালে বাংলায় বসেই শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী গঠন করেছিলেন ‘ভারতীয় জনসংঘ’, পরে ১৯৮০ সালে নাম পরিবর্তন হয়। সংগঠনের নাম হয় ‘ভারতীয় জনতা পার্টি’-বিজেপি। সেই বঙ্গে বিজেপিকে ক্ষমতায় এনে সম্মান জানাবেন অমিত শাহ ও নরেন্দ্র মোদী। নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর একই কথা বলে আসছেন দুই নেতা।

অবশ্য এমনিতেই লোকসভা ভোটের ফল প্রকাশের পর দেখা যাচ্ছে, পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভার নিরিখে ১২৬টি আসন লাভ করেছে বিজেপি। মূলত এ মুহূর্তে রাজ্যে বিজেপি হাওয়া বইছে, তাতে এই সংখ্যাটিকে ১৫০ এ নিয়ে যাওয়া অসম্ভব নয়। কিন্তু এর জন্য সংগঠনে জোর দিতে হবে বিজেপিকে। সেটাই এখন লক্ষ্য মোদী- অমিত শাহের।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪২ ঘণ্টা, মে ২৮, ২০১৯
ভিএস/টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: কলকাতা ভারত
পাটুরিয়ায় অতিরিক্ত টাকা আদায়ের অভিযোগ ট্রাক চালকদের
কেন্দুয়ায় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু
কাভার্ডভ্যান চাপায় নিহত সার্জেন্ট কিবরিয়ার বাসায় চুরি
কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটে বিস্ফোরণে নিহত ৬
শিশু সায়মার ধর্ষক-হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন


ভূঞাপুর-তারাকান্দি বাঁধ মেরামতে সেনাবাহিনী
গোবিন্দগঞ্জে বন্যার পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু
আসছে টম ক্রুজের ‘টপ গান: মেভরিক’ 
স্পেস ইনোভেশন সামিট-২০১৯ শুরু
৩০০ জনকে বাঁচিয়ে মার্কিন পুরস্কার পেলেন নাইজেরীয় ইমাম