ভারত সবসময়ই বাংলাদেশের পাশে থাকবে

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়

walton

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, পশ্চিমবাংলা তথা ভারত সবসময়ই বাংলাদেশের পাশে থাকবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সোনার বাঙলা এগিয়ে যাচ্ছে। 

php glass

কলকাতা: পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, পশ্চিমবাংলা তথা ভারত সবসময়ই বাংলাদেশের পাশে থাকবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সোনার বাঙলা এগিয়ে যাচ্ছে। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন তিনি বলেন, ভৌগলিকভাবে আলাদা হলেও দুই বাঙলার সংস্কৃতি এক এবং অভিন্ন। 

বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় কলকাতার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের বিজয় উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় বাংলাদেশের শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ও উপ হাই কমিশনার জকি আহাদসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

ভারতীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হয়। নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামের কনফারেন্স রুমে ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর  বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধনী বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেন, মুক্তিযুদ্ধে ভারতের অবদান ভোলার নয়। 

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছেন। 

তিনি এসময় ডিজিটাল বাংলাদেশের গড়ার ব্যাপারে বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন। 

বিজয় উৎসবের মঞ্চ থেকেই তিনি ভারতীয় শিল্পপতিদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান জানান।

আমির হোসেন আমু বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় যেমন ভারত বাংলাদেশের মিত্র ছিল, আজও তেমনই আছে। পাকিস্তান বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ভারত এবং বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ভুল বার্তা রটাচ্ছে, যা কোনো দিন সফল হবে না। 

তিনি আরো বলেন, ভারতের সঙ্গে ‘ল্যান্ড বাউন্ডারি এগ্রিমেন্ট’ সফলভাবে হয়েছে। আগামী দিনেও এই সুসম্পর্কের ধারা বজায় থাকবে। 

এজন্য তিনি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।


উপ হাই কমিশনার জকি আহাদ পশ্চিমবঙ্গ সরকার এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, আমারা সবাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিনিধি এবং তার দেখানো পথেই বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি।

প্রথম দিনেই নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে জনসমাগম হয়। উদ্বোধনের পরে শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এছাড়া ছিল বাংলাদেশি শাড়ির পসরা ও বংলাদেশি রান্না। ১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন বেলা ১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এই বিজয় উৎসব চলবে।

বাংলাদেশ সময়: ০১০৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৬
ভিএস/এসআই

পোশাকশিল্প এলাকায় ১ ও ২ জুন ব্যাংক খোলা
মাদ্রাসাছাত্র হত্যা মামলায় ১০ আসামিই খালাস
রাজশাহীর ৭ প্রতিষ্ঠানকে ৫৮ হাজার টাকা জরিমানা
টার্মিনালেই বাস-চালকের কাগজপত্র দেখার নির্দেশ
পাস করেও কলেজে আবেদনের সুযোগ পাচ্ছে না ৫৯ শিক্ষার্থী


গাইবান্ধায় ধানের বস্তা মাথায় নিয়ে বিক্ষোভ
মেহেরপুর সীমান্ত থেকে আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার
শেষ হলো চট্টগ্রামের প্রথম উন্মুক্ত বিতর্ক প্রতিযোগিতা
না’গঞ্জে বুড়িগঙ্গা তীরে অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
মোদীর শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন মোজাম্মেল হক