ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৪ আগস্ট ২০২০, ১৩ জিলহজ ১৪৪১

ইসলাম

তুরাগ তীরে লাখো মুসল্লির মিলনমেলা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০২-১৪ ০৫:৩৪:০১ পিএম
তুরাগ তীরে লাখো মুসল্লির মিলনমেলা তুরাগ তীরে লাখো মুসল্লির মিলনমেলা। ছবি : বাংলানিউজ

গাজীপুর: দেশ-বিদেশের ধর্মপ্রাণ লাখো মুসল্লির উপস্থিতিতে গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ তীরে বসছে মিলনমেলা। এবারের বিশ্ব ইজতেমায় ৫৪তম। এ উপলক্ষে ময়দানে তাবুর নিচে জড়ো হয়েছে লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লি। ফলে ইজতেমা ময়দান পরিণত হয়েছে বিশ্ব মুসলিমদের মিলনমেলায়। এতে চলছে ইসলামের জ্ঞান-গরিমা, দাওয়াত-তাবলিগ, ভালোবাসা ও প্রীতির আদান-প্রদান।

আয়োজকদের সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার শুরু হবে তাবলিগ জামাত আয়োজিত মুসলিম উম্মাহর দ্বিতীয় বৃহত্তম সমাবেশ বিশ্ব ইজতেমা। এবারের বিশ্ব ইজতেমায় যোগ দিতে দেশ-বিদেশের লাখ লাখ মুসল্লি ইতোমধ্যে ময়দানে অবস্থান নিয়েছেন।

এছাড়াও মুসল্লিদের আগমন অব্যহত রয়েছে। এবারের বিশ্ব ইজতেমায় এক সঙ্গে অংশ নিচ্ছেন দেশের ৬৪ জেলার মুসল্লি। শনিবার আখেরি মোনাজাতে অংশ নেবেন তারা।

দুই গ্রুপের আলাদা আয়োজনে শুক্রবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) শুরু হয়ে ১৮ ফেব্রেুয়ারি শেষ হবে এবারের বিশ্ব ইজতেমা। মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে শনিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) ও সোমবার (১৮ ফেব্রুয়ারি)। বিবাদ থাকলেও তাবলিগ অনুসারী, এলাকাবাসী ও প্রশাসনসহ সর্বস্তরের মানুষের দাবি এবারের বিশ্ব ইজতেমা যেন শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়।

ইজতেমার ময়দানে মুসল্লিদের ঢল।  ছবি : বাংলানিউজ

বিশ্ব ইজতেমা ময়দান ঘুরে দেখা গেছে, টঙ্গীর তুরাগ তীরে ১৬০ একর বিস্তৃত বিশ্ব ইজতেমা ময়দান প্রায় কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে গেছে। দেশী-বিদেশী মুসল্লিরা অবস্থান নিয়েছেন তাবুর নিচে। বয়ান শুনছেন, আল্লাহর ইবাদত-বন্দেগি করছেন। অন্যদিকে কেউ কেউ রান্নাবান্না, কাপড়-কাচা ও গোসলকরাসহ দৈনন্দিন কাজও সেরে নিচ্ছেন।

ময়দানে আশপাশে বসেছে হরেক রকমের দোকান। এর মধ্যে অনেকেই সেরে নিচ্ছে প্রয়োজনীয় কেনা-কাটা। এসব মিলিয়েই টঙ্গীর তুরাগ তীরে যেন মুসল্লিদের মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে। বৃদ্ধ, যুবক, কিশোর ও তরুণসহ সকল বয়সের মুসল্লিরা পায়জামা-পাঞ্জাবী পড়ে ও টুপি মাথায় ইসলামের এ মেলায় শরিক হয়েছেন। ইজতেমায় ময়দানে যতটুকু চোঁখ যায় শুধু মুসল্লি আর মুসল্লি। মাথার উপর চটের তাবু নিচে সবুজ ঘাস। এর মধ্যে বিছানাপত্র বিছিয়ে রাত্রীযাপনসহ ইবাদত-বন্দেগিতে মশগুল হয়ে পড়েছেন ধর্মপ্রাণ লাখ লাখ মুসল্লি।

ঢাকা মিরপুর থেকে ইজতেমায় আসা মুসল্লি মোহাম্মদ ইব্রাহিম বলেন, এবার বিশ্ব ইজতেমা বিবাদমান হওয়ায় সকলের মধ্যে সংশয় ছিল এবার ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে কি না? তবে শেষ পর্যন্ত ইজতেমা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রতি বছর ইজতেমায় অংশ নিয়ে থাকি। এবারও সে লক্ষ্যে এসেছি। মুসল্লিদের উপস্থিতি এবার অনেক বেশী।

ইজতেমার ময়দানে মুসল্লিরা।  ছবি : বাংলানিউজ

সিরাজগঞ্জ থেকে আসা মো. আবু হানিফ জানান, আমলের জন্য বিশ্ব ইজতেমায় এসেছি। এখানে বিশ্ব মুরুব্বিদের কাছ থেকে আখেরাতের ও ধর্মীয় কথাবার্তা শুনবো। যেন সঠিকভাবে আল্লাহ পথে চলতে পারি, সেই দিক নির্দেশনা এখানে পাবো। ইজতেমায় ইসলামের জ্ঞান অর্জন করা যায়। পরিবার-পরিজন রেখে কয়েক দিনের জন্য এখানে এসেছি। দেশ-বিদেশের সব মুসলিম ঐক্যবন্ধ হয়ে থাকুক এবং শান্তিপূর্ণভাবে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হোক- এটাই কামনা করছি।  

ইজতেমা আয়োজক কমিটির সদস্য মো. ইলিয়াস জানান, গত বছর ইজতেমা শুরু হওয়ার আগে এতো মুসল্লি হয়নি। এবার মুসল্লিদের সংখ্যা অনেক বেশী। আশা করছি মুসল্লিদের আগমনে ময়দান কানা কানায় পূর্ণ হয়ে গেছে।  

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হূমায়ূন কবীর বাংলানিউজকে জানান, বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরের মধ্যে কয়েক লাখ মুসল্লি ইজতেমা ময়দানে এসে পৌঁছেছেন। এছাড়াও মুসল্লিদের আগমন অব্যাহত রয়েছে। এখানে বিভিন্ন দেশের মুসল্লিরাও রয়েছে। মুসল্লিদের সুবিধার্থে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠুভাবে এবারের ইজতেমা অনুষ্ঠিত হোক এটাই সকালের প্রত্যাশা।

ইসলাম বিভাগে লেখা পাঠাতে মেইল করুন: [email protected]
বাংলাদেশ সময়: ১২৩০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৯
আরএস/এমএমইউ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa