ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১২ সফর ১৪৪২

আন্তর্জাতিক

সিন্ধু-বেলুচিস্তানের জনতা পাকিস্তানের বিপক্ষে: এমকিউএম প্রতিষ্ঠাতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৪৮ ঘণ্টা, জুলাই ২৯, ২০২০
সিন্ধু-বেলুচিস্তানের জনতা পাকিস্তানের বিপক্ষে: এমকিউএম প্রতিষ্ঠাতা আলতাফ হুসেন

সিন্ধু ও বেলুচিস্তানের জনগণ পাকিস্তান রাষ্ট্রের বিরোধী। এই প্রদেশগুলোকে পাকিস্তান উপনিবেশে পরিণত করেছে।

পাকিস্তানের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্টের (এমকিউএম) প্রতিষ্ঠাতা আলতাফ হুসেনের মতে সিন্ধু, বেলুচিস্তান ও  পাখতুন প্রদেশের সমস্ত সম্পদ পাকিস্তান দখল করেছে।

এমকিউএম প্রতিষ্ঠাতা আরও বলেন, সিন্ধু ও বেলুচিস্তানের প্রকৃত সন্তানরা ফেডারেশন অব পাকিস্তানের বিপক্ষে। কারণ, পাকিস্তান ফেডারেশন সিন্ধু, বেলুচিস্তান ও পাখতুনকে উপনিবেশে পরিণত করেছে। তারা ছোট প্রদেশগুলোর সমস্ত সম্পদ দখল করেছে।

পাকিস্তান ফেডারেশন পাঞ্জাবের স্বার্থ রক্ষাকারী ব্যবস্থা বলে মন্তব্য করে সিন্ধু, বেলুচিস্তান, পাখতুন ও গিলগিত-বালতিস্তানের জনগণকে পাঞ্জাবের খপ্পর থেকে মুক্ত হতে আহ্বান জানান আলতাফ হুসেন।

তিনি বলেন, এমন একদিন আসবে যখন সিন্ধু ও বেলুচিস্তান পাঞ্জাবের কাছ থেকে মুক্তি পাবে। সিন্ধু রাষ্ট্রে সব নাগরিক সমান মর্যাদা পাবে এবং জাতি, বর্ণ, বর্ণ বা ধর্মের নামে কেউ বঞ্চিত হবে না।

আলতাফ হুসেন বলেন, ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের ষড়যন্ত্রের মাধ্যমেই পাকিস্তান সৃষ্টি হয়েছিল এবং সেই উদ্দেশ্যে ধর্মকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছিল।

উপমহাদেশের ইতিহাস নিয়ে এক বক্তৃতায় এসব কথা বলছিলেন এমকিউএম-এর প্রতিষ্ঠাতা আলতাফ হুসেন। মুঘল সাম্রাজ্যের ইতিহাস, পলাশির যুদ্ধ (১৭৫৭), মহীশুরের যুদ্ধ (১৭৬৭), সিপাহী বিদ্রোহ (১৮৫৭) ও ভারতে ব্রিটিশ উপনিবেশ স্থাপনের ইতিহাস প্রসঙ্গে দেওয়া আলতাফ হুসেনের ওই বক্তৃতা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত হয়।

রাজনীতিক আলতাফ হুসেন বলেন, ভারতীয় ইতিহাস ও সভ্যতা হাজার হাজার বছরের পুরনো। এখানে নানা ধর্ম, সংস্কৃতি ও রীতিনীতি রয়েছে। ব্রিটিশ সাম্রাজ্য ভারত দখল করলে হিন্দু ও মুসলমানরা ঔপনিবেশিক শক্তির বিরুদ্ধে বিদ্রোহ শুরু করে। বিদ্রোহ দমন ও উপনিবেশকে শক্তিশালী করতে ব্রিটিশ সাম্রাজ্য ‘বিভাজন ও শাসন’ নীতির মাধ্যমে হিন্দু ও মুসলমানদের বিভক্ত করেছিল। ভারতকে বিভক্ত করতে ব্রিটিশ সাম্রাজ্য দ্বিজাতি তত্ত্বের বীজ বপন করেছিল এবং মুসলমানদের ইসলামের নামে ব্যবহার করেছিল।

অন্যদিকে পশ্চিম পাঞ্জাবের জনগণ ভারতের উপনিবেশিকরণে ব্রিটিশদের সাহায্য করেছিল। তারা স্বাধীনতাকামীদের দমনেও ব্রিটিশদের সহায়তা করেছিল বলে জানান আলতাফ হুসেন।

এমকিউএম-এর প্রতিষ্ঠাতা আরও বলেন, ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর বেশিরভাগ সদস্য ছিল পশ্চিম পাঞ্জাবের—ব্রিটিশ সেনাবাহিনী তাদের প্রশিক্ষণ দিয়েছিল এবং তারা মুসলমানদের বিরুদ্ধে ব্রিটিশদের সেবা করতে প্রস্তুত ছিল।

আলতাফ হুসেন আরও বলেন, পাকিস্তান সেনাবাহিনীর জেনারেল ও অফিসাররা এত নিষ্ঠুর কারণ তাদের পূর্বসূরিদের ব্রিটিশরা প্রশিক্ষণ দিয়েছে। তারা ভারত, সৌদি আরব, জর্ডান ও ইয়েমেনে নিরীহ মুসলমানদের হত্যা করেছে।

সূত্র: এএনআই

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৩ ঘণ্টা, জুলাই ২৯, ২০২০
এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa