ভোলায় কোয়ারেন্টিনে নতুন ১১ জন, ছাড়পত্র ১৮৭ জনকে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

প্রতীকী ছবি

walton

ভোলা: করোনা ভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে ভোলায় নতুন আরও ১১ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে (নিজ নিজ বাড়িতে পর্যবেক্ষণে থাকা) রাখা হয়েছে। এনিয়ে জেলার সাত উপজেলায় কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন ২১৩ জন। আর ১৪ দিন পর্যবেক্ষণ শেষে কোনো লক্ষণ না থাকায় সুস্থ ১৮৭ প্রবাসীকে দেওয়া হয়েছে ছাড়পত্র। 

শনিবার (২৮ মার্চ) বিকেলে বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। 

হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা ২১৩ জনের মধ্যে ভোলা সদরে ৪২ জন, দৌলতখানে ৪১ জন, বোরহানউদ্দিনে ১৫ জন, লালমোহনে ১৭ জন, চরফ্যাশনে ২৮ জন, তজুমদ্দিনে ৫০ জন ও মনপুরা উপজেলায় ২০ জন রয়েছেন। 

ভোলার সিভিল সার্জন ডা. রতন কুমার ঢালী বাংলানিউজকে জানান, জেলার সব হাসপাতালে ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য সুরক্ষার সরঞ্জাম (পিপিই) সরবরাহ করা হয়েছে। আর জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সর্বমোট ৪১১ পিপিই পেয়েছে। ওই সব পিপিই ব্যবহার করছেন চিকিৎসক ও নার্সরা। আরও পিপিই চাহিদা চাওয়া হয়েছে। এ মুহূর্তে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে বলেও জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪০ ঘণ্টা, মার্চ ২৮, ২০২০
এসআরএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ভোলা করোনা ভাইরাস
চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালের জায়াগা হারাচ্ছে ইস্তানবুল
৭০০ কোটি মানুষের কাছে ভ্যাকসিন পৌঁছাতে লাগবে ৩-৪ বছর
আন্দোলন করে বহিষ্কার, ইউএসটিসি কর্মচারীদের বিক্ষোভ
মুসল্লিদের জন্য খুলছে মসজিদে নববীর দুয়ার
প্লাজমা দিয়েও বাঁচানো গেল না করোনা রোগী


শর্ত মেনে করতে হবে নাটকের শুটিং
শাহ আমানত বিমানবন্দরে স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিতে প্রস্তুতি
টানা দ্বিতীয়বার সবচেয়ে দামি ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ
রাজাপু‌রে পু‌লিশ‌কে কু‌পি‌য়ে জখম
করোনায় শান্ত-মারিয়াম ফাউন্ডেশনের ইমামুল কবীরের মৃত্যু