php glass

স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে ১০ হাজার ডাক্তার নিয়োগ দেওয়া হবে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন/ছবি: বাংলানিউজ

walton

টাঙ্গাইল: স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন। 

তিনি বলেন, দ্রুত সময়েই সাড়ে চার হাজার নতুন চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া হবে। বাকী সাড়ে ৫ হাজার আগামী বছর নিয়োগ করা হবে। আশা করি এ নিয়োগ হয়ে গেলে সারা দেশে চিকিৎসক স্বল্পতা কমে যাবে।

রোববার (২৭ অক্টোবর) বিকেলে টাঙ্গাইলে শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের একাডেমিক ভবন উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। 

একাডেমিক ভবনের তৃতীয় তলার হলরুমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কাজ শেষের দিকে। এছাড়াও এখানে জেলা হাসপাতাল রয়েছে। জেলা ও উপজেলা হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসকদের স্বল্পতা রয়েছে। তাই স্বাস্থ্য  সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ১০ হাজার ডাক্তার নিয়োগ করা হবে। জনবল না থাকায় স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা যাচ্ছে না।

তিনি বলেন, প্যারা মেডিক্যাল ডাক্তার ও নার্স নিয়াগ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এসব নিয়োগ হয়ে গেলে আর সমস্যা থাকবে না। শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেও দ্রুত জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে।

টাঙ্গাইলে জেনারেল হাসপাতাল স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা ও উন্নয়ন কমিটির সভাপতি টাঙ্গাইল স্থানীয় সংসদ সদস্য ছানোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছাড়াও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের এমপি, আহসানুল ইমলাম টিটু এমপি, তানভীর হাসান ছোট মনি এমপি, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব শেখ ইউসুফ হারুন, কেন্দ্রীয় স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের মহাসচিব অধ্যাপক ডাক্তার এম এ আজিজ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ডাক্তার কামরুল হাসান খান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচলক ডা. এনায়েত হোসেন, শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ ও প্রকল্প পরিচালক অধ্যাপক নুরুল আমীন মিঞা, টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র জামিলুর রহমান মিরন প্রমুখ।

এদিকে টাঙ্গাইলে শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের একাডেমিক ভবন উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে চিকিৎসকদের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। ফলে রোববার (২৭ অক্টোবর) বেলা ১১টার দিকে সভা নির্ধারণের সময় থাকলেও চার ঘণ্টা পরে অনুষ্ঠান শুরু হয়। ব্যানারে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষের নাম না থাকায় বিক্ষুব্দ হয়ে কয়েকজন ডাক্তার ওই ব্যানার নামিয়ে ফেলেন। এ ঘটনায় সভাস্থলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। ফলে সভাস্থলের বাইরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পরে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন বিকেল তিনটার দিকে সভামঞ্চে আসেন।

জানা গেছে, টাঙ্গাইলে শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের একাডেমিক ভবন উদ্বোধনের ব্যানারে নাম নিয়ে ডাক্তারদের মধ্যে অসন্তোষের সৃষ্টি হয়। কেন্দ্রীয় স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের মহাসচিব অধ্যাপক ডাক্তার এম এ আজিজ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ডাক্তার কামরুল হাসান খান, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের সচিব শেখ ইউসুফ হারুন,  টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের নাম ব্যানারে ক্রমানুযায়ী না থাকায় চিকিৎসকদের একটি গ্রুপ এ ঘটনার প্রতিবাদ করে। তারা সভার ব্যানার খুলে ফেলে। ফলে সভাস্থলে ব্যাপক উত্তেজনার দেখা দেয়। মন্ত্রী বেলা ১১টায় টাঙ্গাইল এসে সার্কিট হাউজে অবস্থান নেন। এনিয়ে দফায় দফায় চিকিৎসক, প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতারা আলোচনায় বসে। দু’বার করে ব্যানার পরিবর্তন করা হয়। পরে বিকেল তিনটার দিকে নেতাদের সমন্বয়ে আলোচনার ভিত্তিতে ব্যানারের নামে বিষয়টি সমঝোতা হলে সভা শুরু হয়।

বাংলাদেশ সময়: ২১১২ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৮, ২০১৯
এসএইচ

মরুর বুকে বাঘের গর্জন
রহস্যঘেরা বিস্ফোরণ, চুলার ওপর এখনো তরকারি!
রাতে পেঁয়াজের ক্ষেত পাহারায় কৃষক!
বরিশাল আদালতের সহকারী সেরেস্তাদার সাময়িক বহিষ্কার
তামিম-মাশরাফির সঙ্গে ঢাকায় আফ্রিদি


জেনে নিন বিপিএলে কে কোন দলে
বিয়ের দাবি করায় নির্যাতনের শিকার মা-মেয়ে
‘কেউ হতাশ হবেন না, রাষ্ট্র সবার দায়িত্ব নিচ্ছে’
আঙ্কারায় শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ-তুরস্ক অর্থনৈতিক কমিশন সভা
রাজধানীতে লিফটচাপায় যুবকের মৃত্যু