php glass

ঘোলাটে আন্দোলনের বেড়াজালে ঢাকা ডেন্টাল কলেজ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা

walton

ঢাকা: রাজধানীর মিরপুরের ঢাকা ডেন্টাল কলেজে গত দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে ক্লাস বন্ধ করে আন্দোলন করছেন শিক্ষার্থীরা। সাবেক অধ্যক্ষকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে ওএসডির মাধ্যমে বদলি করায় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা এ আন্দোলনে নামেন। কিছু শিক্ষার্থীদের আন্দোলন করতে বাধ্য করা হচ্ছে বলেও রয়েছে পাল্টা অভিযোগ। 

এ অবস্থায় ডা. আবুল কালাম বেপারীকে পুনরায় অধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োগের সরকারি প্রজ্ঞাপন না আসার আগ পর্যন্ত আন্দোলন চলবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার (২ অক্টোবর) শিক্ষার্থীরা বাংলানিউজকে একথা জানান।
 
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঢাকা ডেন্টাল কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থী ও চিকিৎসক জানান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের একজন নেতা স্থানীয়ভাবে ঢাকা ডেন্টাল কলেজে একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট গড়ে তুলেছেন। তিনি যা চান এখানে তাই হয়। তার মতের বিরুদ্ধে কিছু হলেই তিনি তাণ্ডব শুরু করেন। যে অধ্যক্ষকে এখান থেকে বদলি করা হয়েছে তিনিও ওই সিন্ডিকেটের একজন সদস্য। এছাড়া কলেজের আরও কিছু শিক্ষক, চিকিৎসক, ইন্টার্ন এবং শিক্ষার্থী ওই সিন্ডিকেটের হয়ে কাজ করেন। ওই সিন্ডিকেট কলেজের কেনাকাটা, ঠিকাদারিসহ সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করে।
 
এরাই নতুন অধ্যক্ষকে কলেজে ঢুকতে দিচ্ছে না। অধ্যক্ষের নির্দেশে কিছু শিক্ষক ক্লাস শুরু করলেও এ সিন্ডেকেটের সদস্যরা ওই সব শিক্ষকদের হুমকি দিয়ে ক্লাস থেকে বের করে দেন। সাধারণ শিক্ষার্থীদের ক্লাসে না যেতে ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। তারা নবনিযুক্ত অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালানো এমনকি তার বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে শিক্ষার্থীদের ওপর চাপও প্রয়োগ করছেন। 
 
বাংলানিউজকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, গত ১৬ সেপ্টেম্বর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে ঢাকা ডেন্টাল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. আবুল কালামকে কোনো স্বার্থন্বেষী মহল উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ওএসডি করিয়েছে। তিনি আমাদের জন্য অনেক ভালো ছিলেন। গত ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে আমরা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে শান্তিপূর্ণ সমাবেশ করছি। গতকাল আমরা কলেজ ভবনের প্রত্যেকটি গেটে তালা দিয়েছিলাম। কিন্তু নবনিযুক্ত প্রিন্সিপাল শ'খানেক পুলিশ ও বহিরাগতদের নিয়ে কলেজ ক্যাম্পাসে আসেন এবং পুলিশি সহযোগিতায় গেটের তালা ভেঙে ঢুকে শিক্ষার্থীদের হুমকি দিয়ে শান্তিপূর্ণ অবস্থানে ব্যাঘাত ঘটানোর চেষ্টা করেন। 

এ বিষয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বাংলানিউজকে আরও জানায়, বেপারী স্যার অধ্যক্ষ হয়ে ফিরলে আমরা আন্দোলন বন্ধ করবো। এছাড়া নয়। আর এ আন্দোলনে সর্বস্তরের শিক্ষার্থী বা প্রথম বর্ষ থেকে শেষ বর্ষের ছাত্ররা অংশ নিয়েছে।
 
এসময় তারা প্রায় ৩৫০ জন শিক্ষার্থী স্বাক্ষরিত নথিপত্র প্রদর্শন করেন। যেখানে কলেজের সব ব্যাচের শিক্ষার্থীদের স্বাক্ষর দেখা গেলেও আন্দোলনে ৪০ থেকে ৫০ জন শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি দেখা যায়। 

এদিকে সকালে ঢাকা ডেন্টাল কলেজে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মেজবাউল হোসেন সাচ্চুর নেতৃত্বে ও পুলিশের উপস্থিতিতে মূল ভবনের তালা ভাঙা হলেও ভেতর দিয়ে আটকানো থাকায় মূল ভবনে প্রবেশ করা সম্ভব হয়নি। তবে পেছনের গেট দিয়ে এই আওয়ামী নেতা ছাত্রদের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি জানান, আমি তাদের বোঝানোর চেষ্টা করেছি। কিন্তু তারা মানছে না। আশা করি সরকারি ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে খুব দ্রুত এ সমস্যার সমাধান হবে। 

বাংলানিউজকে পরিস্থিতি সম্পর্কে মিরপুর জোনের এডিসি শাহেন শাহ বলেন, এখানে শিক্ষার্থীরা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি চালাচ্ছে। তারা ক্ষতি করলে শুধু তাদের নিজেদের ক্ষতি করছে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে। আর এই সমস্যা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সমাধানের আদেশ রয়েছে। তাই করা হবে। আমরা উপস্থিত আছি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার দায়িত্বে। তবে ক্যাম্পাসে যে পুলিশ মোতায়েন ছিল তা সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

তাছাড়া বাংলানিউজের কাছে নবনিযুক্ত অধ্যক্ষ অধ্যাপক হুমায়ুন কবির তার দায়িত্ব পালন করতে দেওয়ার সুযোগ চান।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৩ ঘণ্টা, অক্টোবর ০২, ২০১৮
এমএএম/এএ

ksrm
দ্বিজেন শর্মা নিসর্গ পুরস্কার-১৯ পেলেন ড. মনোয়ার হোসেন
মানিকগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসক সংকট, সেবাবঞ্চিত রোগীরা
প্রকৃতির সান্নিধ্যে যেখানে পড়াশোনা 
উলিপুরে নছিমনের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু, আহত ৩
ময়লার স্তূপে নবজাতকের মরদেহ, হঠাৎ উধাও!


সবাই থাকতেও ‘সম্বল’ শুধু লাঠি
‘হারিয়ে যাচ্ছে গ্রামবাংলার ঐতিহ্য নৌকাবাইচ’
দুই পিলারেই শেষ ব্রিজের সব টাকা!
থানায় ডেকে ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ে: সত্যতা মিলেছে তদন্তে
মেহেরপুরে ফেনসিডিলসহ আটক ২