ঈদে স্বাস্থ্যসেবা

৩০০ রোগীর জন্য ১৩ ডাক্তার

988 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
সরকারি-আধাসরকারি সব প্রতিষ্ঠানেই চলছে তিনদিনের ঈদের বিশেষ ছুটির শেষ দিন। বাদ যায়নি সরকারি হাসপাতালগুলোও। ডাক্তার থাকা সত্ত্বেও ছুটির আমেজ থাকায় কিছুটা বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে রোগীদের।

ঢাকা: সরকারি-আধাসরকারি সব প্রতিষ্ঠানেই চলছে তিনদিনের ঈদের বিশেষ ছুটির শেষ দিন। বাদ যায়নি সরকারি হাসপাতালগুলোও। ডাক্তার থাকা সত্ত্বেও ছুটির আমেজ থাকায় কিছুটা বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে রোগীদের। তবে কর্তৃপক্ষ বলছে রোগীদের প্রয়োজনে সব ব্যবস্থাই রয়েছে তাদের।

রোববার (১৯ জুলাই) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজে সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় এ চিত্র।
 
সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের বারান্দায় গিয়ে দেখা যায় দুজন বৃদ্ধা নিউরোলজি বিভাগের টিকিট হাতে নিয়ে এ রুম থেকে অন্য রুমে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। জানতে চাইলে রহিমা বেগম নামের একজন বাংলানিউজকে জানান, বাবা সাভার থেকে আসছি, গা, হাত পায়ে ব্যথা, শরীরটা ফুলে গেছে। টিকিট নিছি ওহন দেখি ডাক্তার নাই। কারে দেখাবো কি করবো বুঝতে পারছি না।
 
তার কথা শুনে নিউরোললি বিভাগের দিকে যেতেই দেখি কলাপসিবল গেট বন্ধ। এ বিভাগের দু’একটি রুমে আলো জ্বললেও কারো দেখা পাওয়া যায়নি। পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এ বিভাগের ডাক্তার নেই, ছুটিতে আছেন। তাই সোমবারের আগে দেখানো যাবে না।
 
এর কিছুক্ষণ পরেই আসেন সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. উত্তম কুমার বড়ুয়া।
 
পরিচালক হাসপাতালের বহির্বিভাগ, ইনডোর ঘুরে দেখছেন। হাসপাতালের কার্যক্রম পরিদর্শন করছেন।
 
ঈদের সময় হাসপাতালের স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কে জানতে চাইলে বলেন, আমাদের অধ্যাপক, সহযোগী অধ্যাপক, কনসালট্যান্টদের নিয়ে ১৩ জনের একটি বিশেষ টিম প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জরুরি কোনো প্রয়োজন হলে তাদের কল করা মাত্রই পাওয়া যাবেন। তাদের অন কলে রাখা হয়েছে।
 
হাসপাতালে বর্তমানে রোগীর সংখ্যা কত জানতে চাইলে বলেন, এবার ঈদের সময় একটু বেশি রোগী রয়েছে। বর্তমানে প্রায় ৩ শতাধিক রোগী ভর্তি।
 
ঈদের সময় ডাক্তাররা ছুটিতে থাকায় কোনো সমস্যা হয় কি না জানতে চাইলে বলেন, ঈদের সময় সবাই ছুটি চান। তাছাড়া এবার ঈদের দিন রথযাত্রার ছুটিও পড়েছে। তাই অনেককেই ছুটি দিতে হয়েছে। সারা বছর কাজ করে ঈদ উৎসবে ছুটি না দিলে সবাই মন খারাপ করে। তাই জরুরি প্রয়োজনে কিছু ডাক্তার রেখে ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত বাড়তি কোনো ঝামেলায় পড়তে হয়নি। আশাকরি হবেও না। কাল (সোমবার) থেকে আবার অনেকেই কাজে যোগ দেবেন।
 
তিনি বলেন, ঈদের সময় ডাক্তার কম থাকায় একটু হলেও রোগীদের সমস্যা হয়। তবে যাদের খুব বেশি সিরিয়াস অবস্থা তাদের জন্য সিনিয়র ডাক্তারদের ফোন করে নিয়ে আসি। তাই ঈদকালীন কোনো অসুবিধাই হওয়ার  কথা নয়।
 
পরিচালক জানান, ঈদের সময়ও আমাদের ইমারজেন্সি বিভাগ, আউটডোর, ইনডোর সেবা চালু আছে। বেলা সাড়ে ১২টা পর্যন্ত বর্হিবিভাগ চালু থাকবে।
 
শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে দুই বিভাগ মিলে ৩৫০ জনের বেশি ডাক্তার রয়েছেন। এরমধ্যে কলেজ শাখায় ১৫০ থেকে ২০০ এবং হাসপাতালে ১৬০ জন। তবে ঈদের ছুটিতে থাকায় এ সংখ্যা নেমে এসেছে ১৩ জনে।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৪২০ ঘণ্টা, জুলাই ১৯, ২০১৫
এসএম/এএ

Nagad
‘বিএনপি আমলে সাহেদ হাওয়া ভবনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন’
করোনা: ঢাকাসহ চার জেলায় পশুর হাট না বসানোর প্রস্তাব
নোবেলজয়ী কবি পাবলো নেরুদার জন্ম
ঢাকার পথে সাহারা খাতুনের মরদেহ
ভিয়েতনামে মানবপাচারের ঘটনায় আটক তিনজন রিমান্ডে


পল্লবীতে ভুয়া চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠানে অভিযান, আটক ৩
রাজশাহীতে বাসচাপায় অটোরিকশার চালকসহ নিহত ২
‘আদিম’ মুক্তির আগেই নির্মিত হচ্ছে সিক্যুয়েল
লকডাউনে ভিডিওচিত্র বানিয়ে খুদে শিক্ষার্থী প্রিয়তির রোবট জয়
সিলেটে করোনার নমুনা জট নেই