স্ট্রেস কী, কেন, কোথা থেকে এলো-২

1774 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: প্রতীকী

walton
প্রথম পর্ব শেষ হয়েছিল বাস্তব পরিস্থিতি ও সম্ভাব্য ভবিষ্যতে ঘটতে পারে এমন পরিস্থিতির কথা ভেবে দুশ্চিন্তায় আমাদের একই ধরনের শারীরিক রিঅ্যাকশন কীভাবে হয় তা নিয়ে। চলতি পর্বে থাকছে সেটিরই বিস্তারিত ব্যাখ্যা।

প্রথম পর্ব শেষ হয়েছিল বাস্তব পরিস্থিতি ও সম্ভাব্য ভবিষ্যতে ঘটতে পারে এমন পরিস্থিতির কথা ভেবে দুশ্চিন্তায় আমাদের একই ধরনের শারীরিক রিঅ্যাকশন কীভাবে হয় তা নিয়ে। চলতি পর্বে থাকছে সেটিরই বিস্তারিত ব্যাখ্যা।

ধরা যাক, কেউ যদি সাপকে ভয় পায় তবে ফনা তোলা সাপের সামনে দাঁড়িয়ে যেমন তার গায়ের লোম খাড়া হয়ে যাবে, তেমন রাতের বেলা বাগানে হাঁটবার সময় সাপের কথা ভেবে ভয়েই তার গায়ের লোম খাড়া হয়ে যেতে পারে। আরও সহজ করে বলি। পাভলভস্‌ রিফ্লেকস থেকে এ উদাহরণটি ধার করে যদি বলি, তেতুলের আচার বা বিরিয়ানি খেলে যেমন জিভে পানি আসে, তেমনি ভাবলেও কিন্তু অনেকেরই জিভে পানি এসে যায়।
 
কাজেই এটি নিশ্চয় বোঝা যাচ্ছে, আসলেই বাস্তব যেকোনো স্ট্রেসফুল পরিস্থিতি ও এরকম স্ট্রেসফুল পরিস্থিতির কথা কল্পনায় ভেবে দুশ্চিন্তার মাত্রা প্রকট হলে আমাদের দৈহিক প্রতিক্রিয়া একই হতে পারে নানা ক্ষেত্রে।

কাজেই এমনটি হলে আশ্চর্য হওয়া যাবে না যে, কোনো সাংবাদিক যদি রাস্তায় বা তার কাজের জায়গায় (যেকোনো কারণ) জীবনের নিরাপত্তাহীনতা বা সেই কল্পনায় চাকরিচ্যুতির দুশ্চিন্তায় ভোগেন, তবে তিনি শারীরিকভাবে একই প্রকার অনুভব করতে পারেন।

আবার এর উল্টাটিও হতে পারে। কেউ আমাকে খুন করবে এই ভয় ও আমি সবার থেকে বিচ্ছিন্ন একলা হয়ে যাব, এ ভয়ের শারীরিক প্রতিক্রিয়া একই হতে পারে। কারণ, প্রথমেই বলেছি আমাদের অবচেতন মন বাস্তব পরিস্থিতি ও সম্ভাব্য বিপদজনক পরিস্থতিকে আলাদা করে বুঝতে না পেরে একই রকম শারীরিক প্রতিক্রয়া দেখায়।

কাল্পনিক দুশ্চিন্তা আর বাস্তাবিক পরিস্থিতির স্ট্রেস একই ধরনের শারীরিক বহিঃপ্রকাশ করে। এটি বিভিন্ন রূপে হতে পারে। ভয়, ঘাম, কান্না, বুক ধড়ফড়, মেজাজ খারাপ, অজ্ঞান হয়ে যাচ্ছি ভাবা, গা মাথা ঝিমঝিম করা, মাথা ব্যথা, ক্লান্তি লাগা ইত্যাদি নানাবিধ লক্ষণ।

আমাদের সবার জীবনে আনন্দ বা তৃপ্তির ছোঁয়া প্রয়োজন। কিন্তু এটিও সত্য, যদি কোনো সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য না থাকে, কোনো কাজ না থাকে তবে সকালে বিছানা থেকেই ওঠাই আমাদের জন্য কঠিন হয়ে যাবে।

গবেষণায় দেখা গেছে, নির্দিষ্ট পরিমাণ চাপ বা স্ট্রেস আমাদেরকে সচেতন করে, কর্মকুশলতা বাড়ায়, মেধা ও মনন শক্তির উন্নয়ন ঘটায়। কিন্তু যখন এ চাপ সহ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যায় তখন তা স্ট্রেসে রূপ নেয়। স্ট্রেস আমাদের মনোদৈহিক স্বস্তি বিনষ্ট করে।

মানসিক স্ট্রেস দেহকে প্রস্তুত করে ফাইট অর ফ্লাইট রেসপন্স (Fight or flight response) এর জন্য। ঠিক যেমন ক্রমশ নিম্নচাপ (মানসিক চাপ) রূপ নেয় ঘূর্ণিঝড়ে (মানসিক স্ট্রেস) এবং এ ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলার জন্য প্রস্তুত করা করা হয় বিভিন্ন ত্রাণ ও পুনর্বাসন কমিটি। দেহের ফাইট অর ফ্লাইট রেসপন্স ঘূর্ণিঝড় সময়কালীন ও পরবর্তী ত্রাণ তৎপরতা বাস্তবায়ন করে।
 
ফাইট অর ফ্লাইট রেসপন্স কী
ফাইট মানে যুদ্ধ বা মারপিট করা আর ফ্লাইট মানে পিঠটান বা চম্পট দেওয়া অর্থাৎ মোকাবেলা না করে পালানো। ধরুন, আপনাকে রাস্তায় পাগলা ষাঁড় তাড়া করছে এখানে যা যা দৈহিক পরিবর্তন ঘটছে তাই ফাইট অর ফ্লাইট রেসপন্স যা আমাদের অটোনোমিক নার্ভাস সিস্টেম (Autonomic nervous system) এর সিমপ্যাথেটিক (Sympathetic) ভাগ।
 
টিপস (শারীরিক প্রতিক্রিয়া)
মনে রাখবেন, স্ট্রেসের কারণে যেকোনো ধরনের মানসিক অনুভূতিই (রাগ, কষ্ট, দুঃখ, পৈশাচিক আনন্দ, অপরাধী ভাব ইত্যাদি) আপনি বোধ করুন না কেন তার একটি শারীরিক প্রতিক্রিয়া হবে। কাজেই মানসিক স্ট্রেসে আক্রান্ত হলে এখন থেকে সচেতন থাকবেন আপনার শারীরিক প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে। এতক্ষণে আপনি জেনে গেছেন স্ট্রেসের প্রতিক্রিয়া মনোদৈহিক। স্ট্রেস হলে দেহেও চাপ পড়ছে।

আগামী পর্বে থাকছে ফাইট অর ফ্লাইট রেসপন্স নিয়ে বিস্তারিত।

** স্ট্রেস কী, কেন, কোথা থেকে এলো-১

বাংলাদেশ সময়: ১১০৫ ঘণ্টা, জুলাই ০৮, ২০১৫
এসএস

Nagad
মালদ্বীপে বিক্ষোভের সময় ৩৯ বাংলাদেশি আটক
করোনা পরিস্থিতি ‘খারাপ থেকে আরও খারাপের’ দিকে যেতে পারে: হু
বগুড়ায় ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন
মুজিব শতবর্ষ ঘিরে ১০০ নদীর তীরে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি নোঙর’র
চালককে মারধরের পর অটোরিকশা ছিনতাই


আর্যবিশপ মজেস কস্তার মৃত্যুতে নওফেলের শোক
স্বল্প পরিসরে বেচাকেনা হচ্ছে, স্বপ্ন দেখছেন ব্যবসায়ীরা
‘সংগঠন বিরোধী কর্মকাণ্ডে’ যুক্ত জায়েদ, প্রযোজক সমিতির শোকজ
মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখায় ৩ ফার্মেসিকে জরিমানা
পশুর হাটের ইজারাদারদের মেয়র নাছিরের কড়া নির্দেশনা