ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৭ রবিউস সানি ১৪৪২

ফুটবল

পিছিয়ে পড়েও ড্র রিয়ালের, জিতল ম্যানসিটি-লিভারপুল-বায়ার্ন

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২১০ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৮, ২০২০
পিছিয়ে পড়েও ড্র রিয়ালের, জিতল ম্যানসিটি-লিভারপুল-বায়ার্ন গোলের পর করিম বেনজেমার উদযাপন/ছবি: সংগৃহীত

শেষ মুহূর্তের দুই গোলে নাটকীয়ভাবে বরুশিয়া মনশেনগ্লাডবাখের সঙ্গে ড্র করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। অন্যদিকে একই রাতে সহজ জয় তুলে নিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি, লিভারপুল ও বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ।

মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) দিনগত রাতে চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ 'বি'র ম্যাচে বরুশিয়া মনশেনগ্লাডবাখের মাঠে খেলার ৩৩তম মিনিটেই পিছিয়ে পড়ে ১৩ বারের চ্যাম্পিয়ন রিয়াল। এরপর দ্বিতীয়ার্ধে ব্যবধান দ্বিগুণ করে স্বাগতিকরা। দুটি গোলই আসে মনশেনগ্লাডবাখের মার্কাস থুরামের পা থেকে।  

২-০ গোলে পিছিয়ে পড়া রিয়ালকে ব্যবধান কমানোর স্বস্তি এনে দেন করিম বেনজেমা। ৮৭তম মিনিটে কাসেমিরোর পাস থেকে ওভারহেড কিকে লক্ষ্যভদ করেন এই ফরাসি স্ট্রাইকার। এরপর যোগ করা সময়ের তৃতীয় মিনিটে সমতা ফেরান কাসেমিরো। অধিনায়ক সার্জিও রামোসের পাস থেকে লক্ষ্যভেদ করেন এই ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার।

এই নিয়ে গ্রুপ পর্বে নিজের প্রথম দুই ম্যাচ থেকে ১ পয়েন্ট পেল রিয়াল। এর আগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে শাখতার দোনেৎসকের কাছে ৩-২ গোলে হেরে গিয়েছিল জিনেদিন জিদানের দল। ইউক্রেনিয়ান জায়ান্টরা এখন গ্রুপ পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে অবস্থান করছে।

একই রাতে মার্শেইকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। খেলার ১৮তম মিনিটেই ফেরান তোরেসের গোলে এগিয়ে যান সিটিজেনরা। এরপর ৭৬তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন গুন্দোগান। ৮১তম মিনিটে স্বাগতিকদের কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেন রহীম স্টার্লিং। প্রথম ও শেষ গোলে সহায়তা করেন দে ব্রুইনে। আর গুন্দোগানের গোলটিতে পরোক্ষ ভূমিকা রাখেন স্টার্লিং।

টানা দুই জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ 'সি'র শীর্ষে এখন ম্যানচেস্টার সিটি। আগামী ৩ নভেম্বর ঘরের মাঠে অলিম্পিয়াকোসের বিপক্ষে ম্যাচটি জিতলেই নকআউট পর্বে পৌঁছাতে পারবে পেপ গার্দিওলার শিষ্যরা।

রাতের আরেক ম্যাচে মিতউইলানকে ২-০ গোলে হারিয়েছে লিভারপুল। সাদিও মানে, মোহামেদ সালাহ এবং রবার্তো ফিরমিনোকে বেঞ্চে বসিয়ে মাঠে নামা লিভারপুল প্রথমার্ধে গোলের দেখা পায়নি। এরপর বিরতির পর ৫৮তম মিনিটে ট্রেন্ট অ্যালেকজান্ডার-আর্নল্ড জেরদান শাকিরির সঙ্গে ওয়ান-টু খেলে বল ঠেলে দেন দিয়েগো জোতার দিকে। তা থেকে খালি পোস্টে বল জড়িয়ে দেন জোতা।

শেষদিকে মানে, সালাহ ও ফিরমিনোকে নামান ক্লপ। তাতে কাজও হয়। দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে সালাহকে নিজেদের ডি-বক্সে ফেলে দেন মিতউইলানের পাওলিনহো। সঙ্গে সঙ্গে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। আর তা থেকে গোল করে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মিশরীয় ফরোয়ার্ড। তবে লিভারপুলের জন্য দুঃসংবাদ হয়ে আসে ডিফেন্ডার ফ্যাবিনহোর ইনজুরি। ভার্জিল ভন ডাইকের ইনজুরির পর জো গোমেজের সঙ্গে সেন্টার ডিফেন্স সামলানোর দায়িত্বটা এই ব্রাজিলিয়ানের কাঁধেই বর্তেছিল। কিন্তু হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি তাকেও ছিটকে দিল।

এই জয়ের পর গ্রুপ 'ডি'র শীর্ষে এখন লিভারপুল। গ্রুপের অন্য দুই সঙ্গী আটালান্টা ও আয়াক্স নিজেদের মধ্যকার ম্যাচে ড্র করায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা আটালান্টার চেয়ে দুই পয়েন্ট বেশি ইংলিশ জায়ান্টদের।

ওদিকে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখের জয়রথ ছুটছেই। এবার তাদের শিকার লোকোমোতিভ মস্কো। খেলার মাত্র ১৩তম মিনিটে বেঞ্জামিন পাভার্ডের ভলি ক্রসে মাত্র ছয় গজ দূর থেকে দারুণ হেডে পোস্টে জাল জড়িয়ে দেন বায়ার্নের লিওন গোরেটজকা। ৭০তম মিনিটে আন্তন মিরানুকুকের গোলে সমতা ফিরিয়েছিল মস্কোর ক্লাবটি। কিন্তু নয় মিনিট পরেই অসাধারণ ভলিতে লক্ষ্যভেদ করে বায়ার্নের জয় নিশ্চিত করেন মিডফিল্ডার জশুয়া কিমিচ।

এই নিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে টানা ১৩ ম্যাচে জয় পাওয়া বায়ার্ন ২০২০ সালে এখন পর্যন্ত ৩৬ ম্যাচে ৩৪তম জয় পেল। আর বাভারিয়ানদের কোচ হিসেবে হ্যান্সি ফ্লিক দায়িত্ব নেওয়ার পর এখন পর্যন্ত ১০টি ম্যাচের সবকটিতেই জয়ের দেখা পেলেন, গোলের ব্যবধান ৪৫-৫!  

বাংলাদেশ সময়: ১২১০ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৮, ২০২০
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa