অন্যরকম ভালোবাসা…

মাহবুবুর রহমান মুন্না, ব্যুরো এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ফুল বিক্রি করছে একদল তরুণ, ছবি: বাংলানিউজ

walton

খুলনা: শুক্রবার; পহেলা ফাল্গুন, বসন্তের প্রথম দিন। একইসঙ্গে ১৪ ফেব্রুয়ারি; বিশ্ব ভালোবাসা দিবসও। বর্তমান প্রজন্মের কাছে ভালোবাসা দিবসের সংজ্ঞাটা আলাদা। এখন ভালোবাসা শব্দটা বলতেই বোঝায়, কোনো তরুণ-তরুণীর মধ্যকার সম্পর্ক। সে হিসেবে সারাবিশ্বে তরুণ-তরুণীর কাছে বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের গুরুত্ব অন্যরকম।

কিন্তু এই ভালোবাসা শুধু প্রিয়জনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়, মানুষের প্রতি মানুষের মধ্যেও। এই ভালোবাসা ছড়িয়ে যাক বিশ্বময়। আর তাই সব মানুষের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশের অংশ হিসেবে খুলনা ব্লাড ব্যাংক ও খুলনা ফুড ব্যাংক ব্যতিক্রমী একটি উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

এ দিন খুলনা ব্লাড ব্যাংক ও খুলনা ফুড ব্যাংকের এক ঝাঁক তরুণ দল ফুল বিক্রির টাকায় (মূলধনসহ) পথশিশু ও প্রতিবন্ধী শিশুদের পোশাক ও শিক্ষাসামগ্রী তুলে দেবে। এসব তরুণ-তরুণীর সবাই কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

অসহায় শিশুদের সাহায্য করার লক্ষ্যে তারা ১৩ ও ১৪ ফেব্রুয়ারি দুইদিন ধরে মহানগরীর রূপসা সেতু, হাদিস পার্ক, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ও ৭ নম্বর ঘাটে ফুল বিক্রি করছেন। এরমধ্যে শুক্রবার সকাল থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ২৫০টি ফুল বিক্রি হয়েছে তাদের।

লবণচরা থানা সংলগ্ন ক্যাফে ডি অ্যান্টেলিয়ার সামনে ফুল বিক্রির সময় কথা হয় ফুড ব্যাংকের সদস্য তুহিন হোসেনের সঙ্গে। বাংলানিউজকে তিনি বলেন, অসহায়দের প্রতি মমতা ভালোবাসারই একটি অংশ এটি। অসহায় শিশুর মুখে একটু খাবার তুলে দিতে ও তাদের পোশাক দিতে আমরা বিভিন্ন স্থানে ফুল বিক্রি করছি। অনেক ফুল বিক্রি হয়েছে।

এসময় ৭০ জন তরুণ-তরুণীর ফুল বিক্রির তত্ত্বাবধায়ন করছেন ফুড ব্যাংকের সদস্য আসাদ শেখ বলে জানান তিনি।

ফুড ব্যাংকের সহ-সভাপতি ফারদিন ইসলাম অনিক বাংলানিউজকে বলেন, সবারই হয়তো আজ স্পেশাল মানুষটিকে ঘিরে আলাদা কিছু প্ল্যান রয়েছে। কিন্তু খুলনার কিছু সুন্দর মনের মানবিক তরুণ-তরুণী ফুল বিক্রি করছে। এ-ও নিজেদের জন্য নয়, পথশিশুদের জন্য। ফুল বিক্রি করে তারা যে মুনাফা অর্জন করবে, সেটা দিয়ে পথশিশুদের জন্য ভালোকিছু করা তাদের উদ্দেশ্য।

খুলনা ব্লাড ব্যাংক ও ফুড ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা সালেহ উদ্দিন সবুজ বাংলানিউজকে বলেন, তিন বছর ধরে আমরা ফুল বিক্রি করে সেই টাকা দিয়ে অসহায়দের সাহায্য করছি। এবার ফুল বিক্রির যে টাকা হবে, তা দিয়ে রূপসার ওপারে আলো ফুটবেই নামের একটি প্রতিবন্ধী স্কুল আছে, সেখানের ২০৮ জন শিক্ষার্থীকে স্কুলড্রেস, স্কুলব্যাগ দেওয়াসহ একবেলা খাওয়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে। এসময় বিশেষ এ দিনটিকে নিজেদের মতো করে না কাটিয়ে অসহায় শিশুদের সাহায্য করার লক্ষ্যে ফুল বিক্রির কাজে নিয়োজিত তরুণ-তরুণীদের তিনি ধন্যবাদ জানান।

এদিকে, ফুল কিনে তৃপ্তি প্রকাশ করে তারিন ইসলাম নামে সিটি কলেজের এক শিক্ষার্থী বাংলানিউজকে বলেন, আমি পরিবারের সঙ্গে এখানে একটি অনুষ্ঠানে এসেছি। এসে দেখি ভাইয়ারা ব্যানার টাঙিয়ে ফুল বিক্রি করছেন। দেখে খুব ভালো লাগলো। তাই ৫০ টাকা করে গোলাপ কিনেছি। নিজে কিনেছি ছোটভাইকেও কিনে দিয়েছি। এমন একটি ভালো কাজের সঙ্গে জড়িত হতে পেরে ভীষণ ভালো লাগছে।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২০
এমআরএম/টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: খুলনা
শেবামেকে করোনা ল্যাব, বুধবার শুরু হচ্ছে প্রশিক্ষণ-টেস্ট 
যাত্রাবাড়ীতে কর্মহীন মানুষের মধ্যে যুবলীগের ত্রাণ বিতরণ
করোনা মোকাবিলায় অর্থনৈতিক গতিশীলতা ধরে রাখতে হবে
চলে গেলেন রিয়াল, বার্সা, অ্যাতলেটিকোর সাবেক কোচ অ্যান্টিচ
করোনা: বরিশাল জেলায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা


সাজেকে ‘হাম-রবেলা’ টিকা ক্যাম্পেইন শুরু
ত্রিপুরায় করোনায় আক্রান্ত একজন শনাক্ত
বিনিয়োগ বাড়লেও ইপিজেডে কমেছে জনবল
করোনা: লালমনিরহাটে বেগুনের কেজি ২ টাকা!
হাসপাতাল থেকে ফিরিয়ে দেওয়ায় রাস্তায় ইজিবাইকে জন্ম নিলো শিশু