ইতিহাসের এই দিনে

মুহাম্মদ আলীর জন্ম, সুচিত্রা সেনের প্রয়াণ

ফিচার ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

মুহাম্মদ আলীর জন্ম, সুচিত্রা সেনের প্রয়াণ

walton

ইতিহাস আজীবন কথা বলে। ইতিহাস মানুষকে ভাবায়, তাড়িত করে। প্রতিদিনের উল্লেখযোগ্য ঘটনা কালক্রমে রূপ নেয় ইতিহাসে। সেসব ঘটনাই ইতিহাসে স্থান পায়, যা কিছু ভালো, যা কিছু প্রথম, যা কিছু মানবসভ্যতার আশীর্বাদ-অভিশাপ।

তাই ইতিহাসের দিনপঞ্জি মানুষের কাছে সব সময় গুরুত্ব বহন করে। এ গুরুত্বের কথা মাথায় রেখে বাংলানিউজের পাঠকদের জন্য নিয়মিত আয়োজন ‘ইতিহাসের এই দিন’।

১৭ জানুয়ারি ২০২০ শুক্রবার। ০৩ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ। এক নজরে দেখে নিন ইতিহাসের এই দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

ঘটনা
১৯৪৬- জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রথম অধিবেশন
১৯৬১- কঙ্গোর জননায়ক প্যাট্রিস লুমুম্বা নিহত হন।
 
জন্ম
১৭০৬- মার্কিন সাংবাদিক, রাজনীতিজ্ঞ ও বিজ্ঞানী বেঞ্জামিন ফ্রাংকলিন।
১৮৬৩- ব্রিটিশ রাজনীতিবিদ ডেভিড লয়েড জর্জ।
১৮৬৩- রুশ অভিনেতা, নাট্যকার ও পরিচালক কনস্তানতিন স্তানিস্লাভস্কি।
১৯৪২- বিশ্ববিখ্যাত মার্কিন মুষ্টিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী।

‘বাংলাদেশ, আমি তোমায় ভালোবাসি। আমেরিকা আমায় তাড়িয়ে দিলে, আমি তোমাকেই বেছে নেবো’, বাংলাদেশ নিয়ে এমন ভালোবাসার কথা বলেছিলেন  বক্সিং রিঙে তিনবারের হেভিওয়েট বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ‘দ্য গ্রেটেস্ট’ মুহাম্মদ আলী।

এ কিংবদন্তির জন্ম নাম ক্যাসিয়াস মার্সেলাস ক্লে জুনিয়র ইংরেজি। মুহাম্মদ আলী যাকে সাধারণভাবে ক্রীড়ার ইতিহাসে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হেভিওয়েট হিসেবে গণ্য করা হয়ে থাকে। ক্রীড়াজীবনের শুরুর দিকে আলী রিঙের ভেতরে ও বাইরে একজন অনুপ্রেরণাদায়ক ও বিতর্কিত ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত ছিলেন। স্পোর্টস ইলাস্ট্রেটেড তাকে শতাব্দীর সেরা খেলোয়াড় ও বিবিসি তাকে শতাব্দীর সেরা ক্রীড়াব্যক্তিত্ব হিসেবে সম্মানিত করেছে।

২০১৬ সালের ৩ জুন শ্বাসনালীর সংক্রমণে অ্যারিজোনায় মুহাম্মদ আলী মৃত্যুবরণ করেন।

১৯৪৫- ভারতীয় কবি, গীতিকার জাভেদ আখতার।
১৯৬২- কানাডিয়ান বংশোদ্ভুত মার্কিন অভিনেতা জিম ক্যারি।

মৃত্যু
১৯৭৮- শিক্ষাবিদ ও জাতীয়তাবাদী তাত্ত্বিক মুজাফফর আহমদ চৌধুরী।
১৮৯৩- যুক্তরাষ্ট্রের ১৯তম রাষ্ট্রপতি রাদারফোর্ড বি. হেইজ্।
২০১০- বাঙালি কমিউনিস্ট নেতা, পশ্চিমবঙ্গের নবম মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু।
২০১৪- কিংবদন্তি বাঙালি অভিনেত্রী সুচিত্রা সেন।

১৯৩১ সালের ৬ এপ্রিল ব্রিটিশ ভারতের বাংলা প্রেসিডেন্সির পাবনা জেলায় তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তার জন্মগত নাম ছিল রমা দাশগুপ্ত। মূলত বাংলা ও হিন্দি চলচ্চিত্রে অভিনয় করে সুচিত্রা সেন খ্যাতি অর্জন করেন। ১৯৫৫ সালে দেবদাস ছবির জন্য তিনি প্রথমবারের মতো শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর পুরস্কার জিতেন। ১৯৬৩ সালে সাত পাকে বাঁধা চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য মস্কো চলচ্চিত্র উৎসবে সুচিত্রা সেন ‘সিলভার প্রাইজ ফর বেস্ট অ্যাকট্রেস’ জয় করেন। তিনিই প্রথম ভারতীয় অভিনেত্রী যিনি কোনো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে পুরস্কৃত হয়েছেন। এছাড়া ১৯৭২ সালে ভারত সরকার তাকে পদ্মশ্রী সম্মান দেয়।

২০১৪ সালের ১৭ জানুয়ারি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে কলকাতার বেল ভিউ হাসপাতালে সুচিত্রা সেনের মৃত্যু হয়।

২০১৫- স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের গীতিকার গোবিন্দ হালদার।

বাংলাদেশ সময়: ০২৩০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৭, ২০২০
টিএ

পীরগাছায় ট্রেনের ইঞ্জিনের ধাক্কায় নিহত ৪
রাজশাহীতে বিদেশফেরত ৫১৯ জন হোম কোয়ারেন্টিনে
বগুড়ায় নতুন করে আইসোলেশনে আরও ১ জন
করোনায় থেমে গেছে রিকশার টুংটাং শব্দ
ছুটি বাড়ানোর গুঞ্জন


ভোমরা বন্দর দিয়ে প্রবেশ করছে শত শত যাত্রী, বাড়ছে আতঙ্ক
করোনা: জয়পুরহাটে এমপি দুদুর অনুদান
এবার আক্রান্তের সংখ্যায় চীনকে ছাড়িয়ে স্পেন, মৃত্যু ৭৩৪০
সঙ্কটকালে নার্সের পেশা বেছে নিলেন অভিনেত্রী
লিভারপুলের হাতে শিরোপা দেখতে চায় সিটির মিডফিল্ডার