php glass

গ্যালারিজুড়ে পাহাড়ি জীবন-প্রকৃতি

হোসাইন মোহাম্মদ সাগর, ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

পাহাড়িদের বৈচিত্র্যময় জীবন আর পার্বত্যাঞ্চলের সৌন্দর্য। ছবি: হোসাইন মোহাম্মদ সাগর

walton

ঢাকা: দেয়ালজুড়ে ৯২টি ছবির ফ্রেম। প্রত্যেকটি ফ্রেমে বাঁধা হয়ে আছে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর বৈচিত্র্যময় দৈনন্দিন জীবন যাপনের গল্প। তাদের কর্ম এবং পার্বত্য অঞ্চলের অনিন্দ্য সুন্দর প্রকৃতি।

এই ফ্রেমে যেন জীবন্ত জীবন। কেউ কাপড় বুনছে, আবার কেউবা কাঁধে করে বয়ে আনছে দূর পাহাড়ের বাজার থেকে সংগ্রহ করা প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র। পাহাড়ি ঝরনার স্বচ্ছ জলে গোসল করছে তরুণীর দল। তাদের সঙ্গেই আবার খেলায় মেতে উঠেছে কাদামাখা শিশুরা। একদিকে জুমচাষের জমিতে ব্যস্ত চাষির দল, পাশেই আবার কেউবা ব্যস্ত হুকায় তামাক টানতে।পাহাড়িদের বৈচিত্র্যময় জীবন আর পার্বত্যাঞ্চলের সৌন্দর্য। ছবি: হোসাইন মোহাম্মদ সাগরপ্রকৃতির অপার সৌন্দর্যের চাদরে বেড়ে ওঠা পার্বত্য এসব মানুষের জীবন-জীবিকার নানা বৈচিত্র্য ও উপকরণের দিক এসব ফ্রেমে বন্দি করেছেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আলোকচিত্রী এম এ তাহের। তিনি তুলে এনেছেন পার্বত্য জেলাগুলোতে বসবাসরত ১২টি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর দৈনন্দিন জীবন, র্কম এবং প্রকৃতি।

তার এসব ছবি নিয়েই আলোকচিত্র প্রদর্শনী চলছে রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের নলিনীকান্ত ভট্টশালী গ্যালারিতে। ১৮ সেপ্টেম্বর (সোমবার) থেকে শুরু হওয়া এ প্রদর্শনী চলবে ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।পাহাড়িদের বৈচিত্র্যময় জীবন আর পার্বত্যাঞ্চলের সৌন্দর্য। ছবি: হোসাইন মোহাম্মদ সাগরপ্রদর্শনী সম্পর্কে আলোকচিত্রী এমএ তাহের বলেন, ‘পাহাড় আমার ভালো লাগে। পাহাড়ি জনগণের সঙ্গে আমার পরিচয়ও দীর্ঘ। তাদের জীবনযাপন, সংস্কৃতি ভীষণ প্রিয় আমার। আর সেখান থেকেই অনুপ্রাণিত হয়ে এই প্রদর্শনীর আয়োজন। যার মধ্য দিয়ে আমাদের দেশের অনান্য সাধারণ জনগণও এই ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীগুলোর জীবন সম্পর্কে জানতে পারবে।’

১৯৯০ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত পাহাড়ে অর্জিত প্রায় তিন দশকের অভিজ্ঞতা আলোকচিত্রী তার এই প্রদর্শনীতে তুলে ধরেছেন। এ যেন এক খণ্ড পার্বত্য চট্টগ্রাম। গ্যালারির একেকটি দেয়ালে মুরং, পাংখোয়া, ত্রিপুরা, চাকমা, মারমাদের জীবনাচরণের পাশাপাশি উঠে এসেছে পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রাকৃতিক রূপ-বৈচিত্র্য। এর ফলে আদিবাসীদের জীবন যাপনসহ পার্বত্য চট্টগ্রামের অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যও দেখার সুযোগ পাচ্ছেন দর্শনার্থীরা।

গ্যালারি ঘুরে দেখছেন এক দর্শনার্থী। ছবি: হোসাইন মোহাম্মদ সাগর
প্রদর্শনী ঘুরে দর্শনার্থী তামিমুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, ‘এ প্রদর্শনীতে এসে বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রামের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীদের জীবন-যাপন সম্পর্কে অনেক নতুন তথ্য জানতে পারলাম। এছাড়া পার্বত্য অঞ্চলের অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যও মুগ্ধ করেছে।’

জাতীয় জাদুঘরের নলিনীকান্ত ভট্টশালী গ্যালারির উন্মুক্ত প্রাঙ্গণে এ প্রদর্শনী সবার জন্য উন্মুক্ত থাকছে শনি থেকে বুধবার প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত। আর শুক্রবার খোলা থাকবে দুপুর ৩টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত।

নিজের ছবি সঙ্গে আলোকচিত্রী এমএ তাহের। ছবি: হোসাইন মোহাম্মদ সাগর
বাংলাদেশ সময়: ১৬৩০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৭
এইচএমএস/এইচএ

জবির বিজ্ঞান অনুষদের ফল প্রকাশ
ছাত্র রাজনীতি
কফিনের ভেতর কথা বলে কে!
যুক্তরাষ্ট্রে ভবনে বাড়ি খেয়ে শতাধিক পাখির মৃত্যু
আইয়ুব বাচ্চু নেই, আইয়ুব বাচ্চু আছেন


শেখ রাসেলের ৫৫তম জন্মদিন শুক্রবার
কম্পিউটারের জনক চার্লস ব্যাবেজের প্রয়াণ
উজ্জ্বয়ন্ত প্রাসাদ চত্বরে চালু হলো ইলেকট্রনিক গাড়ি
মদিনায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের প্রতি ড. মোমেনের শোক 
ফেনী ইউনিভার্সিটি ফুটবল টুর্নামেন্ট সম্পন্ন