ঢাকা, শনিবার, ৩ মাঘ ১৪২৭, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ০১ জমাদিউস সানি ১৪৪২

নির্বাচন ও ইসি

ডিআরএমসি থেকে ১৩১ কেন্দ্রে পাঠানো হচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩১, ২০২০
ডিআরএমসি থেকে ১৩১ কেন্দ্রে পাঠানো হচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম পুলিশ পাহারায় ভোটকেন্দ্রে পাঠানো হচ্ছে ইভিএমসহ সরঞ্জাম। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: রাত পোহালেই সকাল থেকে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরু হবে। শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতিতে ভোটকেন্দ্রে কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা। 

শুক্রবার (৩১ জানুয়ারি) রাজধানীর মোহাম্মদপুরে ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ (ডিআরএমসি) থেকে ১৩১টি কেন্দ্রের ভোটের সরঞ্জাম বিতরণ করা হচ্ছে। এবারই প্রথম প্রতিটি কেন্দ্রে একযোগে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এ ভোট গ্রহণ করা হবে।

ফলে চিরাচরিত ব্যালট পেপার, ব্যালট বক্স, সিল এর মতো নির্বাচনী সরঞ্জাম গুলো এবার নেই। বরং এর বদলে থাকছে ইভিএম মেশিনের মনিটর, ভোটিং ইউনিট, মূল ইউনিট, প্রিন্টারসহ প্রায় ৫২ ধরনের সরঞ্জাম।  

ডিআরএমসি থেকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ২৯, ৩০, ৩১, ৩২, ৩৩ ও ৩৪ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ড এবং ১১ ও ১২ নম্বর সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডের জন্য নির্ধারিত কেন্দ্রগুলোতে যাচ্ছে নির্বাচনী সরঞ্জাম। সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তারা কেন্দ্রগুলোর প্রিজাইডিং অফিসারদের কাছে এসব সরঞ্জাম বুঝিয়ে দিচ্ছেন। এবারই প্রথম এতো সংখ্যক ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি বিতরণ করতে এবং বুঝে নিতে দুই পক্ষেরই কিছুটা হিমশিম খেতে হচ্ছে। তবে প্রতিটি কেন্দ্রের জন্য সরঞ্জাম বুঝিয়ে দেওয়া শেষ না হওয়া পর্যন্ত বিতরণ কার্যক্রম চলবে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন উত্তরের রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ আবুল কাশেম।  
পুলিশ পাহারায় ভোটকেন্দ্রে পাঠানো হচ্ছে ইভিএমসহ সরঞ্জাম।  ছবি: বাংলানিউজআবুল কাশেম বলেন, সকাল থেকে সরঞ্জাম বিতরণ শুরু হয়েছে। এখন পর্যন্ত আমার কাছে কোন জায়গা থেকে অসুবিধার খবর আসেনি। এবার আমরা প্রতিটি বুথের জন্য দু’টি করে ইভিএম মেশিনের সেট দিচ্ছি। একটি প্রথমে চালু থাকবে। আরেকটি থাকবে ব্যাকআপ। যদি কোনো কারণে প্রথমটিতে সমস্যা দেখা দেয়, তাহলে পরেরটি চালু করা হবে।  

এদিকে নির্বাচনী সরঞ্জাম কেন্দ্রে নিয়ে যেতে নিশ্চিত করা হচ্ছে নিরাপত্তা। পুলিশ ও আনসার সদস্যদের নিরাপত্তায় কেন্দ্রে সরঞ্জাম নিয়ে যাচ্ছেন প্রিজাইডিং অফিসার এবং সহকারী প্রিজাইডিং অফিসাররা।  

লালমাটিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার কামরুন নাহার বাংলানিউজকে বলেন, সরঞ্জাম কেন্দ্রে নিয়ে যেতে কোনো সমস্যা হবে না। নিরাপত্তার জন্য সঙ্গে পুলিশ।  

বাংলাদেশ সময়: ১৩০০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩১, ২০২০
এসএইচএস/আরআইএস/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa