খুলনায় কোটিপতি মুর্শেদী, মামলায় সেঞ্চুরি হেলালের

মাহবুবুর রহমান মুন্না, ব্যুরো এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

সালাম মুর্শেদী ও আজিজুল বারী হেলাল

walton

খুলনা: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খুলনায় রয়েছেন বেশ কয়েকজন হেভিওয়েট প্রার্থী। এদের মধ্যে হলফনামায় দেওয়া তথ্য অনুযায়ী বিত্ত-বৈভবে এগিয়ে রয়েছেন সাবেক তারকা ফুটবলার আবদুস সালাম মুর্শেদী। আর মামলায় এগিয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ও ছাত্রদলের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি আজিজুল বারী হেলাল।

মুর্শেদী খুলনা-৪ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য ও এনভয় গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। বাংলাদেশ গার্মেন্টস ম্যানুফেকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিজিএমইএ) সাবেক সভাপতিও ছিলেন তিনি। 

অপরদিকে মামলায় এগিয়ে আছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ও ছাত্রদলের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি আজিজুল বারী হেলাল। তিনি খুলনা-৪ আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী। হেলাল ২০০৮ সালে ঢাকা-১৮ আসনে নির্বাচন করে ১ লাখ ১৮ হাজার ভোট পেয়েছিলেন।

মামলা ও সম্পদে শীর্ষে থাকা এ দুই দলের প্রার্থী দু’জনই খুলনা-৪ (দিঘলিয়া-রূপসা-তেরখাদা) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। খুলনার ছয়টি সংসদীয় আসনের প্রার্থীদের হলফনামা বিশ্লেষণ করে এ তথ্য জানা যায়। 

হলফনামায় দেওয়া তথ্যমতে, আবদুস সালাম মুর্শেদীর বাৎসরিক আয় ৬ কোটি ৩৭ লাখ টাকা। অস্থাবর সম্পত্তি রয়েছে ৮৩ কোটি ৫৬ লাখ এবং স্থাবর সম্পদ ১১ কোটি ৫৫ লাখ টাকার। কোনো ব্যাংকে তার ঋণ না থাকলেও বিভিন্ন দায় রয়েছে ৬ কোটি ৭৪ লাখ টাকার।

সালাম মুর্শেদীর স্থাবর সম্পত্তির হিসাবে গুলশানে ১৫ কাঠা জমি, খিলগাঁওয়ে একটি ৯০০ বর্গফুটের ফ্ল্যাট, গুলশানে দু’টি ফ্ল্যাটসহ দালানকোঠা ও আবাসিক বাবদ আর্থিক মূল্য দেখিয়েছেন ১১ কোটি ৫৫ লাখ টাকা।

সালাম মুর্শেদী বাৎসরিক হিসাবে বাড়িভাড়া বাবদ ১৬ লাখ ৪২ হাজার, ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে বেতন ২ কোটি ৬২ লাখ এবং শেয়ার/সঞ্চয়পত্র/ব্যাংক থেকে ৩ কোটি ৫৭ লাখ ৯৯ হাজার টাকা আয় করেন। অস্থাবর সম্পত্তি হিসেবে তার কাছে নগদ অর্থ রয়েছে ৪ কোটি ২৭ লাখ টাকা, ব্যাংকে জমা ৪৫ লাখ, বন্ড, সঞ্চয়পত্রসহ বিভিন্ন কোম্পানির শেয়ার রয়েছে ৭১ কোটি টাকার, স্বর্ণ সাড়ে ৪ লাখ টাকার, ইলেকট্রনিক্স সাড়ে ৭ লাখ টাকার, আসবাবপত্র ৯ লাখ ৮০ হাজারসহ অন্যান্য অস্থাবর সম্পত্তি রয়েছে ৭ কোটি ৫৫ লাখ টাকার। 

তার শিক্ষাগত যোগ্যতা উচ্চ মাধ্যমিক এবং পেশা গার্মেন্ট, ব্যাংক ও হাসপাতালের পরিচালক। তার বিরুদ্ধে কোনো মামলা নেই।

হলফনামায় দেওয়া তথ্যমতে, খুলনা-৪ আসনে বিএনপির প্রার্থী ছাত্রদলের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি আজিজুল বারী হেলালের বিরুদ্ধে বর্তমানে ১০১টি মামলা রয়েছে। তিনটি মামলায় অব্যাহতি পেয়েছেন তিনি। হেলাল মৃত্তিকা বিজ্ঞানে স্নাতক উত্তীর্ণ। 

হলফনামায় পেশা হিসেবে ব্যবসা, ঠিকাদারি, সরবরাহকারী উল্লেখ করেছেন। এ থেকে তার বার্ষিক আয় তিন লাখ ৮৮ হাজার টাকা। এছাড়া কৃষিখাত থেকে বছরে ১২ হাজার টাকা আয় তার। 

খুলনা-৪ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত একমাত্র প্রার্থী আবদুস সালাম মুর্শেদী হলেও বিএনপির আজিজুল বারী হেলাল ছাড়াও বিএনপির প্রার্থী রয়েছেন কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক শিল্পপতি শরীফ শাহ কামাল তাজ। 

খুলনা জেলা নির্বাচন অফিসের তথ্যানুযায়ী, খুলনা-৪ (রূপসা-দিঘলিয়া-তেরখাদা) আসনের রূপসা উপজেলায় মোট ভোটার এক লাখ ৩৬ হাজার ৮৬৯ জন, দিঘলিয়া উপজেলায় মোট ভোটার ৮৬ হাজার ২৪৪ জন এবং তেরখাদা উপজেলায় মোট ভোটার ৮৭ হাজার ১০ জন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯১৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০২, ২০১৮
এমআরএম/এএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন
Nagad
আন্তর্জাতিক অঙ্গনে শেখ হাসিনার যত স্বীকৃতি
আইএস অনলাইনে সন্ত্রাসী নিয়োগের চেষ্টা করছে
সিউলের নিখোঁজ মেয়র পার্কের মরদেহ উদ্ধার
কিশোরীকে ধর্ষণ-গর্ভপাত, নারী চিকিৎসকসহ গ্রেফতার চার
সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে প্রধান বিচারপতির শোক


বেনাপোল বন্দরে রাজস্ব ঘাটতি ১১ কোটি ৬ লাখ টাকা
নলছিটিতে খাল থেকে স্কুলছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার
ভারতীয় সব টিভি চ্যানেল বন্ধ করে দিয়েছে নেপাল
লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি হত্যা, মানবপাচারকারীর স্বীকারোক্তি
রাজশাহীতে বিদেশি পিস্তল, ম্যাগজিন ও গুলিসহ ব্যবসায়ী আটক