শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধে দুই মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা জারি

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

শিক্ষার্থীদের ফাইল ফটো

walton

ঢাকা: করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের আশঙ্কা রোধে ১৮ হতে ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের কিন্ডারগার্টেন হতে শুরু করে সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের মৌখিক নির্দেশনার পর দুটি আদেশ জারি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার (১৬ মার্চ) তেজগাঁওয়ে তার কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ হতে সোমবার (১৬ মার্চ) পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আটজন সংক্রমণ হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

পড়ুন>> তাপমাত্রা ১০১ ডিগ্রি হলেই সচিবালয়ে প্রবেশ নয়

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক নির্দেশনায় বলা হয়েছে, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার লক্ষ্যে আগামী ১৮ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত সকল ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টারগুলো বন্ধ থাকবে। এ সময়ে নিজেদের এবং অন্যদের করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুরক্ষার লক্ষ্যে শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ বাসস্থানে অবস্থান করবেন।

উপসচিব আনোয়ারুল ইসলাম স্বাক্ষরিত আদেশে বলা হয়, শিক্ষার্থীদের বাসস্থান অবস্থানের বিষয়টি অভিভাবকেরা নিশ্চিত করবেন এবং স্থানীয় প্রশাসন তা নিবিড়ভাবে পরিবীক্ষণ করবেন।

আর প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় বলা হয়, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার লক্ষ্যে আগামী ১৮ হতে ৩১ মার্চ পর্যন্ত সকল ধরনের সরকারি-বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেন বন্ধ থাকবে। এই সমেয় নিজেদের এবং অন্যদের করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুরক্ষার লক্ষ্যে শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ বাসস্থানে অবস্থান করবে।

উপসচিব নাজমা শেখ স্বাক্ষরিত নির্দেশনায় বলা হয়, শিক্ষার্থীদের বাসস্থানের অবস্থানের বিষয়টি অভিভাবকেরা নিশ্চিত করবেন এবং স্থানীয় প্রশাসন তা নিবিড়ভাবে পরিবীক্ষণ করবেন।

মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

‘সেই সেঙ্গ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে যে, অভিভাবকেরা ইনশিউর করবেন যে- তাদের ছেলে-মেয়েরা একাকী বাইরে ঘুরে না বেড়ায়। তাদের ছুটি দেওয়াই হচ্ছে সেফটির জন্য। বাইরে ঘোরাফেরা করলে তদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। একা একা যেন বাইরে না যায়, অভিভাবকদের সঙ্গে যেতে পারে।’

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি দুপুরে সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, যদিও সংক্রমণের ঘটনা অত্যন্ত কম, তবুও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশের সকল পর্যায়ে, সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে, মন্ত্রিসভায় এই সিদ্ধান্ত হয়েছে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি সব কোচিং সেন্টারও এই সময় বন্ধ রাখা হবে বলে জানান তিনি।

এদিকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন একই দিন সংবাদ সম্মেলনে জানান, নানা বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করে প্রাথমিক থেকে শুরু করে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ৩১ মার্চ পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। ৩১ মার্চের পরে আমরা পরিবেশ যদি দেখি স্বাভাবিক হয়ে গেছে আমরা খুলে দেব।

বাংলাদেশ সময়: ১৭২১ ঘণ্টা, মার্চ ১৬, ২০২০
এমআইএইচ/এমএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: করোনা ভাইরাস
পদ্মাসেতুর সাড়ে ৪ কিলোমিটার দৃশ্যমান 
গ্রিসে ভ্রমণের অনুমতি পেল না যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, ইতালি
কাটছে না খুলনার উপকূলের দুর্গতদের দুঃখ-দুর্দশা!
লিবিয়ায় নিহত মাগুরার লালচাঁদ, আহত এক
করোনা হটাতে ১৯ হাজার কোটি টাকার ৪ প্রকল্প উঠছে একনেকে


শনিবার ভিডিও কনফারেন্সে ১৮ বিচারকের শপথ
সবকিছু খুলে দিলে বিপদ হবে ত্রিমুখী: ডা. লেলিন
স্বাস্থ্যবিধি মতো পরিস্থিতি মানিয়ে চলার ওপর গুরুত্ব সরকারের
খোলার ব্যাপারে ফের বৈঠকে বসছে রাবি প্রশাসন 
করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়ায় ঠাঁই হলো না স্বামীর বাড়ি