আম্পানে ফসল হারিয়ে মাগুরায় কৃষকের মাথায় হাত

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

আম্পানে ফসল হারিয়ে মাগুরায় কৃষকের মাথায় হাত

walton

মাগুরা: ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তাণ্ডবে মাগুরায় ঘরবাড়ি, গাছপালা ও বৈদ্যুতিক খুটি ক্ষতিগ্রস্ত এবং মাঠে থাকা লিচু, আম, পেঁপে, কলা, ধান ও সবজি ফসল ব্যাপকভাবে নষ্ট হয়েছে। মাছের ঘের প্লাবিত হয়ে ভেসে গেছে অনেক জায়গায়।

বৃহস্পতিবার (২১ মে) ভোর রাত পর্যন্ত টানা ঝড়ের সঙ্গে ভারী বর্ষণে অধিকাংশ ফসল হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন কৃষকরা।

জেলা প্রশাসক ড. আশরাফুল আলম ও মাগুরা সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু নাসির বাবলুর দাবি, স্মরণকালের দীর্ঘস্থায়ী এ ঝড়ে সব মিলিয়ে জেলায় ক্ষতির পরিমাণ কমপক্ষে শত কোটি টাকা।

মাগুরা সদর উপজেলার হাজরাপুর কৃষক উন্নয়ন সমিতির সদস্য কাজী সাইফুল ইসলাম  বলেন, উপজেলার হাজীপুর, হাজরাপুর, রাঘবদাইড় ইউনিয়ন, আঠারখাদা, মঘি ও পৌরসভার কিছু এলাকায় ছোট-বড় মিলিয়ে  ২০ হাজারের ওপরে লিচু, আম, কাঁঠাল, কলা ও পেঁপে বাগান রয়েছে। যার মধ্যে জেলার প্রধান অর্থকরী ফসল লিচুর বাগান রয়েছে প্রায় ৭ হাজার। কিন্তু বুধবার সারা রাতের ঝড়ের তাণ্ডবে গোটা এলাকার সব ফসল নষ্ট হয়ে গেছে। প্রতি বছর এ এলাকা থেকে ৫০ থেকে ৬০ কোটি টাকার আম ও লিচু বিক্রি হয়ে থাকে। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা তাদের ফসলহানিতে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। কারণ, এসব ফসল বিক্রির টাকায় সারা বছর পরিবার-পরিজন নিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন তারা।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক জাহিদুল আমিন জানান, জেলায় এবার ৬০০ হেক্টর জমিতে লিচু, ১ হাজার ৩০০ হেক্টরে আম, ৭০০ হেক্টরে কলা, ৬০০ হেক্টরে পেঁপে, ৬২০ হেক্টরে কাঁঠাল, ২০০ হেক্টরে নালিম, ৭২০ হেক্টরে  মুগডাল, ২ হাজার ৭২০ হেক্টরে বিভিন্ন সবজি, ২ হাজার ৮২০ হেক্টরে তিল এবং ৩৫ হাজার ৪০ হেক্টর জমিতে পাট চাষ হয়েছে। এর মধ্যে প্রায় শতভাগ পেঁপে এবং কলা ও অন্যান্য ফসলের ক্ষতি হয়েছে প্রায় ৫০ শতাংশ। আর্থিক ক্ষতি নিরুপণে তারা মাঠ পর্যায়ে কাজ করছেন।

জেলা প্রশাসক ড. আশরাফুল আলম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পংকজ কুণ্ডু ও মাগুরা সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু নাসির বাবলু জানান, স্মরণকালে দীর্ঘস্থায়ী এ ঝড়ে শত শত কাঁচা ও আধাপাকা বাড়িঘর, গাছপালা ভেঙে পড়েছে। বিশেষ করে জেলার প্রধান অর্থকরী ফসল হাজারপুরী লিচুর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। পেঁপে কলা, আম, সবজিসহ মাঠে থাকা ফসলের অধিকাংশ নষ্ট হয়ে গেছে। ক্ষয়ক্ষতি নিরুপণের কাজ চলছে। তবে তারা জানান, জেলায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমপক্ষে শত কোটি টাকা।

বাংলাদেশ সময়: ২২৩৫ ঘণ্টা, মে ২১, ২০২০
এনটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: মাগুরা
Nagad
হাতীবান্ধায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে কৃষকের মৃত্যু 
আ. লীগকে বারবার ক্ষমতায় আনতেই ইসির যতো উদ্যোগ: ফখরুল
বন্ধ পাটকলগুলো আধুনিকায়ন করা হবে: প্রধানমন্ত্রী
করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৪১ মৃত্যু, শনাক্ত ৩৩৬০
চট্টগ্রামেও কোরবানির পশু পরিবহন করবে ট্রেন


ঈদের আগেই বেতন-বোনাস দাবি শিক্ষক-কর্মচারীদের
ফিল্ড হাসপাতালে হাই ফ্লো-ন্যাসাল ক্যানোলা প্রদান
খুলনা জেলা পরিষদের শিক্ষাবৃত্তি পেলো ৪৫০ ছাত্র-ছাত্রী
শূন্য পদে নিয়োগ চান এসআই সুপারিশ বঞ্চিতরা
দোকানে মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য, হোটেলে বাসি খাবার