বৃহস্পতিবার ভোজ্যতেল ও চিনির মূল্য পুনঃনির্ধারণ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

বৃহস্পতিবার খুচরা পর্যায়ে ভোজ্যতেল ও চিনির মূল্য পুনঃনির্ধারণ করবে ট্যারিফ কমিশন। মঙ্গলবার বিকেলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে ভোজ্যতেল ও চিনি আমদানিকারক-উৎপাদক ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ঢাকা: বৃহস্পতিবার খুচরা পর্যায়ে ভোজ্যতেল ও চিনির মূল্য পুনঃনির্ধারণ করবে ট্যারিফ কমিশন। মঙ্গলবার বিকেলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে ভোজ্যতেল ও চিনি আমদানিকারক-উৎপাদক ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

প্রায় আড়াই ঘণ্টার দীর্ঘ এ বৈঠকে বাণিজ্যমন্ত্রী জিএম কাদের সভাপতিত্ব করেন। বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য সচিব মোহাম্মদ গোলাম হোসেন, ট্যারিফ কমিশন চেয়ারম্যান ড. মুজিবুর রহমান, এফবিসিসিআই সভাপতি একে আজাদ প্রমুখ।  

বৈঠক শেষে বাণিজ্যমন্ত্রী ও বাণিজ্য সচিব বৈঠকের বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি।
সাংবাদিকদের বিশেষ অনুরোধে এফবিসিসিআই সভাপতি একে আজাদ ‘বৃহস্পতিবার ট্যারিফ কমিশন ভোজ্যতেল ও চিনির নতুন মূল্য নির্ধারণ করবে’ বলে জানান।

তিনি বলেন, এরমধ্যেই মিলগেট থেকে পূর্ব নির্ধারিত মূল্যে (প্রতি লিটার ১০৫ টাকা) ভোজ্যতেল সরবরাহ করার পরও বাজারে এর মূল্য বৃদ্ধির কারণ খতিয়ে দেখবে কমিশন। পাশাপাশি তেলের মূল্য নির্ধারণের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র চাওয়া হয়েছে আমদানিকারকদের কাছে।


এক প্রশ্নের জবাবে একে আজাদ বলেন, ২০ জুলাই সর্বশেষ ভোজ্যতেল ও চিনির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছিল। তেমন কোনো সমস্যা না হওয়ায় এতোদিন এ সংক্রান্ত কোনো বৈঠক হয়নি।

প্রসঙ্গক্রমে তিনি আরো বলেন, বর্তমানে দেশে ভোজ্যতেল সরবরাহের ক্ষেত্রে কোনো ঘাটতি নেই। গত জুলাই থেকে এ পর্যন্ত ১০ লাখ টন পাম অয়েল ও সয়াবিন তেল আমদানি করা হয়েছে। আর আমাদের মাসিক ও বাৎসরিক চাহিদা হচ্ছে যথাক্রমে ১ লাখ ২০ হাজার টন এবং ১৪ লাখ মেট্রিক টন।
 
বৈঠকে আলোচিত অন্যান্য বিষয় সম্পর্কে এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, দেশের তেল ও চিনি ব্যবসায়ীরা পার্শ্ববর্তী দেশসমূহে (উত্তর-পূর্ব ভারত, নেপাল, ভুটান) তেল-চিনি রফতানিতে বেশি আগ্রহী। কারণ আমাদের এখানে শ্রম সস্তা; তাই পর্যাপ্ত পরিমাণ অপরিশোধিত তেল ও চিনি আমদানি করে তা পরিশোধন করে রফতানি করতে চান।

একে আজাদ আরো বলেন, ভোজ্যতেল ও চিনি আমাদের জন্য অতি প্রয়োজনীয় এবং স্পর্শকাতর দু’টি পণ্য, তাই সরকারের কাছে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক প্রস্তাবের আগে এফবিসিসিআই’র পক্ষ থেকে অভ্যন্তরীণ বাজারে এ দু’টি পণ্যের চাহিদা ও সরবরাহের নিশ্চয়তা চাওয়া হয়েছে ব্যবসায়ীদের কাছে।

দেশের জন্য প্রয়োজনীয় মজুদ রাখার পাশাপাশি যারা লিখিত আন্ডারটেকেন দেবেন শুধুমাত্র তাদের রফতানির অনুমতি প্রদানের জন্য সরকারের কাছে এফবিসিসিআই সুপারিশ করবে বলে তিনি জানান।     

উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্যতেলের অব্যাহতভাবে দাম কমলেও সাম্প্রতিক সময়ে দেশের অভ্যন্তরীণ বাজারে ভোজ্যতেলের মূল্য বেড়ে চলেছে লাগামহীনভাবে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, ডিও প্রথা বাতিল করে নতুন পরিবেশক প্রথা চালুর পর পরিবেশকরা তাদের কাছ থেকে ভোজ্যতেল ও চিনি ক্রয় করছে না। ফলে তাদের লোকসান গুনতে হচ্ছে।

একারণে কোনো ঘোষণা ছাড়াই এবং সরকারকে না জানিয়েই তারা দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন। এ অবস্থায় ভোজ্যতেল ও চিনির বাজার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও পর্যালোচনার জন্যেই বাণিজ্য মন্ত্রণালয় মঙ্গলবার এ বৈঠকের আহ্বান করে।


বাংলাদেশ সময় : ১৮৫৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৭, ২০১১

Nagad
প্রযোজক-পরিচালকদের সম্মান করেন না জায়েদ খান, বয়কটের ঘোষণা
নওফেলকে নিয়ে মানহানিকর স্ট্যাটাস, আটক যুবক
‘লাখ টাকার গরুর চামড়া বিক্রি হচ্ছে দুই থেকে তিনশ’ টাকায়’
২৬ তরুণের স্বেচ্ছাশ্রমে ঘরে বসেই মিলছে নমুনা প্রতিবেদন
২৫ জুলাইয়ের মধ্যে বোনাস-বকেয়া বেতন পরিশোধের দাবি


সুনামগ‌ঞ্জে কমেছে সুরমার পা‌নি
সাহেদ বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
বিজয়নগরে পিকআপ ভ্যান উল্টে চালক নিহত
সাহেদের সর্বোচ্চ শাস্তি কামনা করি: বিএসএমএমইউ উপাচার্য
বাতাসেও করোনা সংক্রমণ! বাঁচতে যা করতে বলছে হু