‘ভেজাল মেশাতে না পারায় ভোজ্য তেলের দাম বেড়েছে’

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

শীতের কারণে পাম অয়েল জমে যায়, এ কারণে ব্যবসায়ীরা সয়াবিনে ভেজাল মেশাতে পারছে না। সম্প্রতি ভোজ্য তেলের দাম বেড়ে যাওয়া এর অন্যতম কারণ বলে সংসদীয় কমিটির কাছে জানিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

ঢাকা: শীতের কারণে পাম অয়েল জমে যায়, এ কারণে ব্যবসায়ীরা সয়াবিনে ভেজাল মেশাতে পারছে না। সম্প্রতি ভোজ্য তেলের দাম বেড়ে যাওয়া এর অন্যতম কারণ বলে সংসদীয় কমিটির কাছে জানিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ ভবনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ৩০তম বৈঠকে বাজার দর নিয়ে আলোচনার সময় এ কথা জানিয়েছে মন্ত্রণালয়। বৈঠক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

কমিটির সভাপতি এবিএম আবুল কাসেম বৈঠকে সভাপতিত্বে বৈঠকে অংশ নেন কমিটির সদস্য মো. আবুল কাশেম, টিপু মুনশি, রুমানা মাহমুদ, মো. জয়নাল আবেদীন ও শেখ আফিল উদ্দিন।

এছাড়া বাণিজ্যসচিব মো. গোলাম হোসেন, চা বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. মাহবুবুল হাসান ও টিসিবির চেয়ারম্যান সরোয়ার জাহানসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র জানায়, বৈঠকে বাজার দর নিয়ে আলোচনার সময় কমিটির সদস্যরা বলেন, বর্তমানে বাজার মোটামুটি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তবে ভোজ্য তেলের দাম একটু বেড়েছে।

এই দাম বাড়ার কারণ জানতে চাইলে বাণিজ্য সচিব মো. গোলাম হোসেন কমিটিকে বলেন, শীতের কারণে পাম অয়েল জমে যায়। ফলে ব্যবসায়ীরা সয়াবিনে ভেজাল হিসেবে পাম অয়েল মেশাতে পারছে না। একারণে দাম একটু বেড়েছে।

ভোজ্য তেলের দাম কিছু বেশি হওয়ায় এর দাম স্থিতিশীল রাখতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার সুপারিশ করা হয়। প্রয়োজনে দেশে সয়াবিন চাষ সম্প্রসারণের লক্ষ্যে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যৌথ আলোচনারও পরামর্শ দেওয়া হয়।

বৈঠকের পরে সংসদ ভবনের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে কমিটির সভাপতি এবিএম আবুল কাশেম সাংবাদিকদের বলেন, ‘ভোজ্য তেলের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে মন্ত্রণালয়ে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।’

দাম বেড়ে যাওয়া প্রসঙ্গে কমিটির সভাপতি বলেন, ব্যবসায়ীরা সম্প্রতি এলসি কমিয়ে দিয়েছে। এছাড়া টেকনিক্যাল দিকও রয়েছে।’

এদিকে, বৈঠকে বাংলাদেশ চা শিল্পের জন্য কৌশলগত উন্নয়ন পরিকল্পনা এবং চা নিলাম কেন্দ্র সম্পর্কে আলোচনা হয়।

বৈঠকে জানানো হয়, চা চাষযোগ্য ৫০ ভাগ জমিকে চা চাষের আওতায় আনতে ১২ মেয়াদি ‘কৌশলগত উন্নয়ন পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। ওই পরিকল্পনার আওতায় হেক্টর প্রতি গড় উৎপাদন এক হাজার ২৪০ কেজি থেকে এক হাজার ৫০০ কেজিতে উন্নীত করাও পরিকল্পনাও নেওয়া হয়েছে।

বৈঠকে ৬০ বছরের পুরাতন চা গাছ উৎপাটন করে নতুন গাছ লাগানোর মাধ্যমে দেশে চা উৎপাদন বাড়ানোর সুপারিশ করা হয়।

বৈঠকে বর্তমান বাজার পরিস্থিতি পর্যালোচনা করা হয়। নিত্য-প্রয়োজনী দ্রব্যের দাম স্থিতিশীল থাকায় সন্তোষ প্রকাশ করা হয়।  

বৈঠকে ‘আসন্ন বাণিজ্য মেলা-২০১২’ বিষয়ে আলোচনা হয়। বিদেশি কোম্পানির নাম ব্যবহার করে স্থানীয়দের মেলায় অংশগ্রহণ বন্ধ করাসহ মেলার গুণগত মানের উন্নয়নের সিদ্ধান্ত নেওয়ায় বৈঠকে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়।

বৈঠকে মেলার শেষ পর্যন্ত যাতে সব গুণগত মান বজায় থাকে সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৫২৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২২, ২০১১

Nagad
নেতারা বলছেন সাহেদ আওয়ামী লীগের কেউ না
পাটুরিয়া নৌরুট পারের অপেক্ষায় তিন শতাধিক ট্রাক
রামেক হাসপাতালে করোনা রোগীর মৃত্যু
বগুড়া-১, যশোর-৬ উপ-নির্বাচনের তদন্ত কমিটি গঠন ইসির
পায়ে পায়ে ৬৪ দিনে ৬৪ জেলা (পর্ব-৬৪)


বগুড়া-১, যশোর-৬ উপ-নির্বাচন: অনিয়মে জরিমানা ১ লাখ টাকা
করোনা: চট্টগ্রামে নতুন ১৬২ জনসহ মোট আক্রান্ত ১১১৯৩
ছোটপর্দায় আজকের খেলা 
৮ কোটি টাকার গরু নিয়ে প্রস্তুত নাহার ডেইরি ফার্ম
আন্তর্জাতিক অঙ্গনে শেখ হাসিনার যত স্বীকৃতি